ইউক্রেনের আভদিভকার নিয়ন্ত্রণ নিল রাশিয়া, যুদ্ধে বড় সাফল্য

ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলীয় শহর আভদিভকার পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে রাশিয়া। ছবি: সংগৃহীত

ইউক্রেনের আভদিভকার নিয়ন্ত্রণ নিল রাশিয়া, যুদ্ধে বড় সাফল্য

অনলাইন ডেস্ক

ইউক্রেনের দোনেৎস্কের গুরুত্বপূর্ণ শহর আভদিভকার পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে রাশিয়া। এছাড়া যুদ্ধের সম্মুখভাগে রুশ সেনারা ৮ দশমিক ৬ কিলোমিটার সামনে এগিয়ে এসেছেন। রোববার (১৮ ফেব্রুয়ারি) এই ঘোষণা দিয়েছে রুশ কর্তৃপক্ষ। খবর রয়টার্সের।

আগামী ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেন যুদ্ধের দুই বছর পূর্ণ হবে। ২০২২ সালের এই দিনে সামরিক অভিযানের নামে ইউক্রেনে হামলা চালানোর নির্দেশ দিয়েছিলেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। এ পটভূমিতে আভদিভকা শহর থেকে ইউক্রেনের পিছু হটাকে রাশিয়ার জন্য গুরুত্বপূর্ণ প্রতীকী বিজয় হিসেবে দেখা হচ্ছে। দুই বছর ধরে চলমান এই যুদ্ধে যেসব জায়গায় সবচেয়ে তীব্র লড়াই হয়েছে, সেগুলোর একটি হলো এটি।

এছাড়া গত বছরের মে মাসে বাখমুত শহর দখলের ৯ মাস পর এত বড় সাফল্য পেল রুশ বাহিনী।

আরও পড়ুন: জীবন বাঁচাতে গুরুত্বপূর্ণ শহর ছাড়লো ইউক্রেনীয় সেনারা

গত বছর মে মাসে রুশ বাহিনী ইউক্রেনের বাখমুত শহর দখলে নেওয়ার পর এই আভদিভকা শহরের পতন রাশিয়ার জন্য সবচেয়ে বড় বিজয়। রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ইউক্রেনে সর্বাত্মক হামলা শুরু করার দুই বছর পূর্তির প্রাক্কালে দেশটি এই সাফল্য পেল। কয়েক মাসের তীব্র লড়াইয়ের পর আভদিভকা থেকে সেনা প্রত্যাহারের ঘোষণা দিয়ে ইউক্রেন বলেছে, সেনাদের যেন আত্মসমর্পণ করতে না হয় সে জন্য তারা এই পদক্ষেপ নিয়েছে। রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন আভদিভকার পতনকে গুরুত্বপূর্ণ বিজয় অভিহিত করে রুশ সেনাদের অভিনন্দন জানিয়েছেন।
ইউক্রেন বাহিনী গত বছর তুমুল পাল্টা আক্রমণ চালিয়েও রুশ বাহিনীর অবস্থানে ফাটল ধরাতে ব্যর্থ হয়।

রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বলেছে, বর্তমানে এক হাজার কিলোমিটার এলাকাজুড়ে যুদ্ধ চলছে। তার মধ্যে ৮.৬ কিলোমিটার এলাকায় তাদের সেনারা এগিয়ে গেছে।

কিয়েভ যখন সেনাবাহিনীর নতুন সদস্য অন্তর্ভুক্ত করা এবং দেশটির প্রেসিডেন্ট ভোলোদিমির জেলেনস্কি যুদ্ধ পরিচালনার জন্য নতুন কমান্ডার নিয়োগ দিয়েছেন, সে সময় যুদ্ধক্ষেত্রে তাদের এই ব্যর্থতার ঘটনা ঘটল।  

যুদ্ধের আগে আভদিভকায় ৩০ হাজার বাসিন্দা ছিলেন। তবে বর্তমানে শহরটির সব বাসিন্দা সরে গেছেন। এছাড়া আবদিভকাও একটি ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়েছে।

news24bd.tv/DHL

পাঠকপ্রিয়