বিয়ের জন্য টিভি উপস্থাপককে অপহরণ করেছিলেন সেই নারী

বিয়ের জন্য টিভি উপস্থাপককে অপহরণ করেছিলেন সেই নারী

অনলাইন ডেস্ক

একত্রিশ বছর বয়সী নারী। উচ্চবিত্ত। বিলাসবহুল ফ্যাশনেবল জীবন যাপন করেন। একদিন টিভি দেখতে দেখতে ভালো লেগে যায় একটি টিভি চ্যানেলের উপস্থাপককে।

জীবনে যা চেয়েছেন তাই পেয়েছেন। অতএব এই উপস্থাপককেও তার পাওয়া চাই। কিন্তু বিদেশ গিয়েছিলেন। বিদেশ থেকে ফিরে ভুলে যান।
 
এরপর নিজে বিয়ে করার সিদ্ধান্ত নেন।  বিবাহ বিষয়ক একটা ডিজিট্যাল ওয়েবসাইটে যেখানে বিয়ে ও পাত্র-পাত্রীর খোঁজখবর দেওয়া হয় সেখানে মেম্বার হয়ে দেখেন সেই টিভি উপস্থাপকের ছবি। এবার পাকা ডিসিশনই নিয়ে নেন বিয়ে করলে ওই উপস্থাপককেই করবেন। যোগাযোগ করেন উপস্থাপকের সঙ্গে। কথা বলতে থাকেন।  
একপর্যায়ে  বুঝতে পারেন, ওয়েবসাইটে পাত্রের প্রোফাইলে কেউ একজন নিজের ছবি ব্যবহার না করে ওই উপস্থাপকের ছবি ব্যবহার করেছেন।
এরপর তিনি প্রোফাইল ঘেঁটে ওই উপস্থাপকের ফোন নম্বর সংগ্রহ করেন। পরে একটি মেসেজিং অ্যাপ ব্যবহার করে ওই টিভি উপস্থাপকের সঙ্গে যোগাযোগ করেন সেই নারী। তখন জানতে পারেন, অন্য কোনো অচেনা ব্যক্তি ওই ওয়েবসাইটে পাত্রের প্রোফাইলে উপস্থাপকের ছবি দিয়েছেন। পাত্র-পাত্রীর ওয়েবসাইটে থাকা সেই অ্যাকাউন্ট আসলে ভুয়া। ওই টিভি উপস্থাপক তখন এ ব্যাপারে সাইবার অপরাধসংক্রান্ত পুলিশের কাছে অভিযোগ করেন।
কিন্তু হাল ছাড়ার পাত্রী নন সেই নারী। ক্রমাগত টিভি উপস্থাপককে মেসেজ দিয়ে যাচ্ছিলেন। একপর্যায়ে ওই উপস্থাপক নারীর নম্বরটি ব্লক করে দেন।
এরপরই সেই নারী ওই উপস্থাপককে অপহরণের সিদ্ধান্ত নেন। গতকাল পুলিশ জি নিউজসহ বেশ কিছু গণমাধ্যমকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছে।  
ইতোমধ্যে ভারতের  হায়দরাবাদ থেকে সেই নারীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। সেই নারী মুখ খুলতে শুরু করেছেন।  
পুলিশ জানায় ওই উপস্থাপকের গতিবিধির ওপর নজর রাখতে তাঁর গাড়িতে অবস্থান শনাক্তকারী একটি যন্ত্রও স্থাপন করেছিলেন ওই নারী। তিনি কয়েকজন অপহরণকারীও ভাড়া করেছিলেন।
পুলিশের ভাষ্য, ১১ ফেব্রুয়ারি চার ভাড়াটে অপহরণকারী ওই উপস্থাপককে অপহরণ করে সেই নারীর অফিসে নিয়ে যান। এরপর তাঁকে প্রচণ্ড মারধর করা হয়। জীবনশঙ্কায় পড়ে ওই উপস্থাপক তখন সেই নারীর প্রস্তাবে হ্যাঁ বলে দেন। এরপর তাঁকে ছেড়ে দেওয়া হয়। পরে ওই উপস্থাপক উপ্পাল পুলিশ স্টেশনে গিয়ে লিখিত অভিযোগ করেন।  
সেই নারীসহ চার অপহরণকারী এখন সবকিছু স্বীকার করছেন।  

news24bd.tv/ডিডি

পাঠকপ্রিয়