সোমবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৯ |

টিস্যু পেপার শিল্প

শীর্ষ ব্র্যান্ড ঘোষিত হলো বসুন্ধরা টিস্যু

নিজস্ব প্রতিবেদক

শীর্ষ ব্র্যান্ড ঘোষিত হলো বসুন্ধরা টিস্যু

পণ্য খাতে সবচেয়ে জনপ্রিয় ব্র্যান্ডগুলোর মধ্যে টিস্যু পেপার খাতে দেশের শীর্ষ ব্র্যান্ডের স্বীকৃতি পেল বসুন্ধরা টিস্যু। শনিবার রাতে বাংলাদেশ ব্র্যান্ড ফোরাম আয়োজিত বেস্ট ব্র্যান্ড অ্যাওয়ার্ডের দশম আসরে এই ঘোষণা দেওয়া হয়। রাজধানীর লা মেরেডিয়ান হোটেলে জাঁকজমকপূর্ণ এক অনুষ্ঠানে দেশের ব্র্যান্ডিং শিল্পের সবচেয়ে বড় সম্মাননা দেওয়া হয়।

বসুন্ধরা টিস্যুর পক্ষে সম্মাননা স্মারক গ্রহণ করেন বসুন্ধরা গ্রুপের উপব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. মোস্তাফিজুর রহমান। অনুষ্ঠানে বসুন্ধরা গ্রুপের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। বাংলাদেশ ব্র্যান্ড ফোরামের উদ্যোগে ‘বেস্ট ব্র্যান্ড অ্যাওয়ার্ড ২০১৮’ নিয়েলসেন বাংলাদেশের অংশীদারিত্বে এবং দ্য ডেইলি স্টারের পৃষ্ঠপোষকতায় অনুষ্ঠিত হয়। 

এ পুরস্কার আয়োজনের উদ্দেশ্য : দেশে পরিচালিত ব্র্যান্ডগুলোর সফলতাকে সম্মাননার মাধ্যমে অনুপ্রাণিত করা। নিয়েলসেনের বিশ্বমানের জরিপ পদ্ধতি ‘উইনিং ব্র্যান্ডস’ অনুসারে দেশের সর্বাধিক প্রিয় ব্র্যান্ডগুলোকে সম্মাননা জানানো হয়। এ বছর জরিপের কার্যক্রমে বাংলাদেশের নিয়েলসেন দলকে পরামর্শ প্রদান করেছে নিয়েলসেন দক্ষিণ এশিয়া। দেশজুড়ে প্রায় চার হাজার ভোক্তার অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত এ জরিপের ওপর ভিত্তি করে এ বছর মোট ৩৪টি ক্যাটাগরিতে এ পুরস্কার দেওয়া হয়। 

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন দ্য ডেইলি স্টারের প্রকাশক ও সম্পাদক মাহফুজ আনাম। এ ছাড়াও বক্তৃতা করেন বাংলাদেশ ব্র্যান্ড ফোরামের প্রতিষ্ঠাতা ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক শরীফুল ইসলাম। মাহফুজ আনাম বলেন, ‘ব্র্যান্ড মানে শুধু লোগো এবং প্রচারণা নয়, সেরা ব্র্যান্ডগুলো ভোক্তাদেরকে পণ্যের কার্যকারিতা এবং আবেগজনিত উপকারিতা উভয় দিক থেকেই মূল্যায়ন করে থাকে। তাই আগামী দিনের ব্র্যান্ডগুলোকে আরও টেকসই হতে হবে। তাদেরকে আর্থিক মুনাফার ঊর্ধ্বে গিয়ে বৃহত্তর লক্ষ্য নিয়ে কাজ করতে হবে। 

অনুষ্ঠানে বেস্ট ব্র্যান্ড অ্যাওয়ার্ডের জরিপ পদ্ধতি সম্পর্কে বক্তব্য দেন নিয়েলসেন সাউথ ইস্ট এশিয়ার মার্কেট লিডার দীপতংশু রায়। পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে আরও ছিল ব্র্যান্ডিং এবং স্ট্র্যাটেজি বিষয়ক দুটি আলোচনা। এগুলো সঞ্চালনা করেন আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত বক্তা প্রফেসর জনাথন এ জে উইলসন পিএইচডি এবং যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়াভিত্তিক উদ্যোক্তা ও বিনিয়োগকারী মোহাম্মেদ জেরাল্ডস। দশম বেস্ট ব্র্যান্ড অ্যাওয়ার্ডে ৩৪টি ক্যাটাগরিতে সর্বমোট ১০০টি ব্র্যান্ডকে সম্মানিত করা হয়, এর মধ্যে প্রতিটি ক্যাটাগরিতে শ্রেষ্ঠ ব্র্যান্ডগুলোর প্রতিনিধিদের হাতে সম্মাননা পদক তুলে দেওয়া হয়।

এ ছাড়াও পদক লাভ করেন সর্বশ্রেণীয় সেরা ১৫ ব্র্যান্ডের প্রতিনিধিরা। সর্বশ্রেণীয় সেরা ১৫টি ব্র্যান্ডের মধ্যে প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থান লাভ করেছে যথাক্রমে ইস্পাহানি মির্জাপুর চা, ক্লোজআপ এবং রাঁধুনী মসলা। এই প্রথমবারের মতো সর্বশ্রেণীয় সেরা ১৫-এর তালিকায় প্রথম স্থান লাভ করে সম্পূর্ণ দেশীয় কোনো ব্র্যান্ড। বাংলাদেশ ব্র্যান্ড ফোরাম আয়োজিত এ অনুষ্ঠানের রিসার্চ পার্টনার ছিল নিয়েলসেন বাংলাদেশ এবং সহযোগিতায় ছিল দ্য ডেইলি স্টার।

মন্তব্য