অভিযানের নামে হয়রানি বন্ধের দাবি রেস্তোরাঁ মালিক সমিতির

রেস্তোরাঁ ব্যবসা নিয়ে ষড়যন্ত্র চলছে বলে অভিযোগ মালিক সমিতির - সংগৃহীত ছবি

অভিযানের নামে হয়রানি বন্ধের দাবি রেস্তোরাঁ মালিক সমিতির

অনলাইন ডেস্ক

অভিযানের নামে হয়রানি বন্ধের দাবি জানিয়েছে রেস্তোরাঁ মালিক সমিতি। সংগঠনটির দাবি ট্যাক্স, লাইন্সেসসহ সব ধরনের কাগজপত্র থাকার পরও গণহারে রেস্টুরেন্ট সিলগালা করা হচ্ছে।  

আজ মঙ্গলবার (৫ মার্চ) সকালে রাজধানীর পল্টনের আল-রাজী টাওয়ারে রেস্তোরাঁ ব্যবসার সংকট উত্তরণ ও রমজান মাসে ব্যবসা পরিচালনা নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছে বাংলাদেশ রেস্তোরাঁ মালিক সমিতি।

সেখানেই বাংলাদেশ রেস্তোরাঁ মালিক সমিতি নেতারা অভিযোগ করেন, বেকারি শিল্পের মতো রেস্তোরাঁ ব্যবসাও কর্পোরেট কোম্পানিগুলোর হাতে নিয়ে যাওয়ার ষড়যন্ত্র চলছে।

তারা বলেন, বহু বছর ধরে রেস্তোরাঁ সেক্টরের সমস্যা নিয়ে সরকারি দপ্তরগুলোর শরণাপন্ন হয়েও কোনো সহযোগিতা মেলেনি। মনিটরিংয়ের নামে শুধু হয়রানি চলছে। শুধুমাত্র অভিযান নয়, এসময় টাস্কফোর্স গঠন করে তদন্ত করার দাবি তাদের। এছাড়া রেস্তোরাঁ সেক্টরের জন্য সুনির্দিষ্ট একটি গাইডলাইনও তৈরি করারও দাবি জানান তারা।

 

রেস্তোরাঁ মালিক সমিতির সভাপতি ইমরান হাসান বলেন, গ্রিন কোজি কটেজে অগ্নিকাণ্ডের দায় কেউ এড়াতে পারে না। পুরো ভবনটাই ছিল অনিয়মে ভরা। ভবনটির অনুমোদন দিয়েছে রাজউক, রেস্তোরাঁ খাতটি তদারকি করে বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ, জাতীয় ভোক্তা অধিকার ও সংরক্ষণ অধিদপ্তর, সিটি করপোরেশন, কলকারখানা পরিদর্শন অধিদপ্তর, সংযুক্ত আছেন জেলা প্রশাসক প্রশাসনসহ অনেক অধিদপ্তর ও সংস্থা। ৪৬ জনের প্রাণহানির পর রাজউক ও সিভিল ডিফেন্সের টনক নড়েছে। ঘটনার পর থেকেই আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ঢাকা শহরের বিভিন্ন রেস্তোরাঁয় অভিযান চালিয়ে গ্যাসের সিলিন্ডার জব্দ করছে এবং স্টাফদের গ্রেপ্তার করছে। এটি সমস্যার সমাধান নয়।
 
তিনি বলেন, বেইলি রোডের নবাবী ভোজ রেস্তোরাঁয় আজ সকালে ঝটিকা অভিযান চালিয়ে সেটি বন্ধ করে দিয়েছে রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (রাজউক)। কিন্তু নবাবী ভোজের ১২টি লাইসেন্স আছে। তাহলে কেন সেটি বন্ধ করে দেয়া হলো?

ইমরান হাসান  আরও বলেন, ‘আমরা প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাতের অপেক্ষায় আছি। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে চেয়ে দপ্তরে চিঠি দিয়েছি। বিশ্বাস করি, তিনি দেখলে আমাদের ডাকবেন। আর যদি সাক্ষাৎ না পাই, তাহলে সব রেস্তোরাঁর চাবি প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরে পাঠিয়ে দিয়ে অন্য কাজে চলে যাব। ’

news24bd.tv/SHS

পাঠকপ্রিয়