রাত পোহালেই দুই সিটিতে নির্বাচন

সংগৃহীত ছবি

রাত পোহালেই দুই সিটিতে নির্বাচন

অনলাইন ডেস্ক

রাত পোহালেই ময়মনসিংহ ও কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের ভোটগ্রহণ শুরু হবে। এর মধ্যে ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশনে সাধারণ নির্বাচন ও কুমিল্লা সিটির মেয়রের মৃত্যুতে এ পদে উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশন নির্বাচন সফলভাবে শেষ করার জন্য সব প্রস্তুতি শেষ হয়েছে। আজ শনিবার (৯ মার্চ) সকাল ৮টা থেকে ভোট শুরু হয়ে চলবে বিকেল ৪টা পর্যন্ত।

ইভিএমে ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হবে। নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হবে বলে নির্বাচন কমিশন ও প্রশাসনের দায়িত্বশীল কর্মকর্তারা আশা প্রকাশ করেছেন।

গতকাল শুক্রবার সকাল থেকে নগরীর সার্কিট হাউস মাঠ সংলগ্ন জিমনেসিয়াম থেকে নির্বাচনী দায়িত্ব পালনকারী কর্মকর্তাদের হাতে নির্বাচনী সরঞ্জাম তুলে দেওয়া হয়। আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে গতকাল দিনে ও রাতে নগরীর বিভিন্ন এলাকায় ডিবি পুলিশসহ আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনীর সদস্যরা টহল দিয়েছেন।

 

বিধিনিষেধ থাকার কারণে গতকাল শুক্রবার কোনো প্রার্থী প্রকাশ্যে কোনো প্রচারণা চালাননি। ময়মনসিংহ সিটিতে ১২৮টি ভোটকেন্দ্র রয়েছে। এসব কেন্দ্রের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা ছাড়াও ভোটের এলাকায় নিয়োজিত রয়েছে পুলিশ, এপিবিএন, আনসারের ৩৩টি মোবাইল টিম, ১১টি স্ট্রাইকিং ফোর্স ও একটি রিজার্ভ টিম। ৩৩টি ওয়ার্ডে থাকছে র‍্যাবের ১৭টি টিম ও বিজিবি থাকবে সাত প্লাটুন। এই সিটি নির্বাচনে মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. ইকরামুল হক টিটু, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এহতেশামুল আলম, শহর আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি সাদেকুল হক খান (টজু), জাতীয় পার্টির প্রার্থী শহীদুল ইসলাম ও কেন্দ্রীয় কৃষক লীগের সাবেক সদস্য কৃষিবিদ রেজাউল হক প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

সিটি নির্বাচন সুষ্ঠু করতে সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক দিদারে আলম মোহাম্মদ মাকসুদ চৌধুরী।  

পুলিশ সুপার মাছুম আহম্মেদ ভুঞা বলেন, ‘আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে পুলিশ সতর্ক অবস্থানে রয়েছে। কেউ কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটাতে চাইলে তা কঠোর হস্তে দমন করা হবে। ’

অন্যদিকে, কুমিল্লা সিটির ২৭টি ওয়ার্ডে পুলিশ, এপিবিএন ও আনসারের ২৭টি, ৯টি স্ট্রাইকিং ফোর্স ও দুইটি রিজার্ভ টিম থাকছে। এছাড়া নিয়োজিত থাকছে র‍্যাবের ২৭টি টিম ও বিজিবি ১২ প্লাটুন। এই সিটি নির্বাচনে চার স্বতন্ত্র প্রার্থী-তাহসীন বাহার, নূর-উর রহমান মাহমুদ তানিম, মোহাম্মত নিজাম উদ্দিন ও মো. মুনিরুল হক প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এ সিটিতে ২ লাখ ৪২ হাজার ৪৫৮ জন ভোটার ১০৫টি কেন্দ্রে ভোট দেওয়ার সুযোগ পাচ্ছেন। এর মধ্যে পুরুষ ১ লাখ ১৮ হাজার ১৮২ জন, নারী ১ লাখ ২৪ হাজার ২৭৪ জন ও হিজড়া দু'জন।

গতকাল নির্বাচনী সরঞ্জাম হস্তান্তরের সময় রিটার্নিং অফিসার ফরহাদ হোসেন বলেন, ‘কোনো কেন্দ্রে সমস্যা হলে পাঁচ মিনিটের মধ্যেই যেন সেটি নিয়ন্ত্রণ করা যায়, সেভাবেই নেওয়া হয়েছে নিরাপত্তার ব্যবস্থা। ফল ঘোষণার পর পর্যন্ত এ ব্যবস্থা থাকবে। ভোটারদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে হুমকি দেওয়ার কিছু অভিযোগ এসেছে। আমরা এগুলো নিয়ে কাজ করছি। ’

রিটার্নিং অফিসার জানান, এবারের নির্বাচনে গতবারের মতো সিসি ক্যামেরা লাগানো না হলেও ১০৫ কেন্দ্রের মধ্যে ২২টি ছাড়া সব প্রতিষ্ঠানের সিসি ক্যামেরা আছে। এগুলো শুক্রবার দুপুর ১২টার পর থেকে সচল রাখা হয়েছে। ভোটের দিনের পরিবেশ নিয়ে ভোটারদের শঙ্কা থাকার কোনো সুযোগ নেই।  

নির্বাচন কমিশনের উপ-সচিব মো. আতিয়ার রহমান জানান, ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশন সাধারণ নির্বাচন ও কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের মেয়রের শূন্য পদে উপ-নির্বাচন আজ অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়া, ৩টি পৌরসভার (পটুয়াখালী পৌরসভা, জামালপুর জেলার বকশীগঞ্জ পৌরসভা এবং বরগুনা জেলার আমতলী পৌরসভা) সাধারণ নির্বাচনসহ ৩টি পৌরসভার (ময়মনসিংহ জেলার ত্রিশাল পৌরসভা, মুন্সীগঞ্জ পৌরসভা এবং বগুড়া জেলার শিবগঞ্জ পৌরসভার মেয়রের শূন্য পদ) মেয়রের শূন্য পদের উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

দুই সিটি নির্বাচনেই ভোটকেন্দ্রের নিরাপত্তা নিশ্চিতে সাধারণ কেন্দ্রে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীগুলোর ১৬ জনের ফোর্স ও ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রে ১৭ জনের ফোর্স মোতায়েন থাকছে। এদিকে, পৌরসভাগুলোয় ১২ থেকে ১৪ জনের ও ইউপির নির্বাচনগুলোতে ২২ জনের ফোর্স নিয়োজিত করেছে ইসি।

news24bd.tv/DHL

পাঠকপ্রিয়