৭০০-তে অ্যান্ডারসন

৭০০-তে অ্যান্ডারসন

৭০০-তে অ্যান্ডারসন

অনলাইন ডেস্ক

ধর্মশালা টেস্টে খেলতে নামার আগে জেমস অ্যান্ডারসনের টেস্ট উইকেট সংখ্যা ছিল ৬৯৮টি। গতকাল ম্যাচের দ্বিতীয় দিনে শুবমান গিলকে বোল্ড করে মাইলফলকের আরও কাছাকাছি যান এই পেসার। আজ কুলদীপ যাদবকে ফিরিয়ে ৭০০তম টেস্ট উইকেটের এলিট ক্লাবে নাম লেখালেন অ্যান্ডারসন।

টেস্ট ইতিহাসের প্রথম পেসার হিসেবে এই কীর্তি গড়লেন অ্যান্ডারসন।

সবমিলিয়ে তিনি তৃতীয় বোলার। তার আগে মুত্তিয়া মুরালিধরন ও শেন ওয়ার্ন এই ক্লাবের সদস্য হয়েছেন।

সবচেয়ে দ্রুততম সময়ে ৭০০ উইকেটের মাইলফলক ছুঁয়েছিলেন মুরালিধরন। ৭০০ টেস্ট উইকেট পেতে এই লঙ্কান স্পিনারের লেগেছিল ১১৩ টেস্ট।

ওয়ার্ন মাইলফলক ছুঁয়েছিলেন নিজের ১৪৪তম ম্যাচে। আর অ্যান্ডারসনের লাগল ১৮৭ ম্যাচ।

ইতিহাসের সর্বোচ্চ উইকেটশিকারির তালিকায় সবার ওপরে আছেন ৮০০ উইকেট নেওয়া মুরালিধরন। ৪১ বছর বয়সী অ্যান্ডারসনের সামনে এখন ৭০৮ উইকেট নেওয়া ওয়ার্ন।

২০০৬ সালে মেলবোর্নে বক্সিং ডে টেস্টে ইতিহাসের প্রথম বোলার হিসেবে ৭০০ টেস্ট উইকেটের রেকর্ড গড়েছিলেন ওয়ার্ন। বছর খানেক পরই এই এলিট ক্লাবে নাম লেখান মুরালিধরন। লঙ্কান এই স্পিনার বাংলাদেশের বিপক্ষে ক্যান্ডি টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে শেষ ব্যাটসম্যান সৈয়দ রাসেলকে আউট করে ৭০০ উইকেটের মাইলফলকে পৌঁছান।

এরপর কেটে গেছে প্রায় ১৭ বছর। এই সময়ে ৭০০ উইকেটের ক্লাবে যোগ হয়নি আর কোনো সদস্য। অবশেষে প্রায় দেড় যুগের অপেক্ষার পর ওয়ার্ন-মুরালি পেলেন নতুন সদস্য। দুই স্পিনারের এমন কীর্তিতে প্রথম পেসার হিসেবে যোগ দিলেন অ্যান্ডারসন।  

আরেকটি দিক থেকেও অনন্য অ্যান্ডারসন। ৪১ বছর বয়সী এই ফাস্ট বোলার সবচেয়ে বয়োজ্যেষ্ঠ হিসেবে ৭০০ উইকেটের মাইলফলক ছুঁয়েছেন। ওয়ার্ন ও মুরালির দুজনেই ৭০০ উইকেট পেয়েছেন ৪০ বছরের কম বয়সে।

৭০০ উইকেটের মাইলফলকে পৌঁছানো ম্যাচে জিতেছিলেন ওয়ার্নের অস্ট্রেলিয়া ও মুরালির শ্রীলঙ্কা। তবে অ্যান্ডারসনের জন্য সেই কাজটা কঠিন হয়ে গেছে! ধর্মশালায় প্রথম ইনিংসে ভারতের চেয়ে ২৫৯ রানে পিছিয়ে থেকে দ্বিতীয় ইনিংস খেলতে নেমেছে ইংলিশরা।

news24bd.tv/aa

পাঠকপ্রিয়