জলদস্যুদের সঙ্গে যোগাযোগ হয়েছে, নাবিক-ক্রুরা ভালো আছে: নৌ প্রতিমন্ত্রী

খালিদ মাহমুদ চৌধুরী

জলদস্যুদের সঙ্গে যোগাযোগ হয়েছে, নাবিক-ক্রুরা ভালো আছে: নৌ প্রতিমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক

ভারত মহাসাগরে বাংলাদেশি জাহাজ এমভি আবদুল্লাহ ছিনতাইকারী সোমালিয়ান জলদস্যুদের সঙ্গে কথা হয়েছে বলে জানিয়েছেন নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী। তিনি বলেন, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কথা অনুয়ায়ী, জলদস্যুদের সঙ্গে  একটি পক্ষ আলোচনা করেছে। আমাদের জিম্মি নাবিক ও ক্রুরা ভালো আছে।  

বুধবার (২০ মার্চ) সন্ধ্যায় নিউজ টোয়েন্টিফোর টেলিভিশনকে তিনি এসব কথা বলেন।

 

কারা যোগাযোগ করেছে জানতে চাইলে নৌ প্রতিমন্ত্রী বলেন, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুযায়ী, দ্বিতীয় ও তৃতীয় পক্ষ তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করছে। এ ধরনের ঘটনায় যারা রেসকিউ (উদ্ধার) করে এমন একটি দল কাজ করছে। কিন্তু তারা কারা- তা আমরা জানি না। তবে তারা সহযোগিতা করতে চাই।

কিন্তু কীভাবে সহযোগিতা হবে, আমার জানা নেই।

তাদের ফেরানোর ব্যাপারে বলেন, আমরা আশবাদী। যোগাযোগ চলছে। আমরা যেহেতু আইডেনটিফাই করে ফেলেছি, আমাদের চোখে ধুলো দিয়ে চলে যাবে, তা তো হবে না। যারা জিম্মি করছে তাদের জীবনেরও তো নিরাপত্তার ব্যাপার আছে। কীভাবে এগুলো নিশ্চিত হবে অনেক বিষয় আছে।  

গত ১২ মার্চ দুপুরে কেএসআরএমের মালিকানাধীন এসআর শিপিংয়ের জাহাজটি জিম্মি করে সোমালিয়ান দস্যুরা। সেখানে থাকা ২৩ নাবিক ও ক্রুকে একটি কেবিনে রাখা হয়। জাহাজটিকে সোমালিয়ার উপকূলে নিয়ে যাওয়া হয়। দুই দফা স্থান পরিবর্তন করে জাহাজটিকে সবশেষ সোমালিয়ার গদভজিরান উপকূলের কাছে নোঙর করে রাখা হয়।

৫৮ হাজার মেট্রিক টন কয়লা নিয়ে গত ৪ মার্চ আফ্রিকার মোজাম্বিকের মাপুটো বন্দর থেকে যাত্রা শুরু করে এমভি আবদুল্লাহ। ১৯ মার্চ সেটি সংযুক্ত আরব আমিরাতের হামরিয়াহ বন্দরে পৌঁছানোর কথা ছিল।  

কবির গ্রুপের অঙ্গপ্রতিষ্ঠান এসআর শিপিংয়ের মালিকানাধীন ‘এমভি আবদুল্লাহ’ আগে ‘গোল্ডেন হক’ নামে পরিচিত ছিল। ২০১৬ সালে তৈরি বাল্ক কেরিয়ারটির দৈর্ঘ্য ১৮৯ দশমিক ৯৩ মিটার এবং প্রস্থ ৩২ দশমিক ২৬ মিটার। গত বছর জাহাজটি এসআর শিপিং কিনে নেয়। বিভিন্ন ধরনের পণ্য নিয়ে আন্তর্জাতিক রুটে চলাচলকারী এরকম মোট ২৩টি জাহাজ আছে কবির গ্রুপের বহরে।
news24bd.tv/আইএএম

পাঠকপ্রিয়