দেড় যুগ পর ডিএনএ টেস্টে সন্তানকে পিতার স্বীকৃতি 

আদালত

দেড় যুগ পর ডিএনএ টেস্টে সন্তানকে পিতার স্বীকৃতি 

হাবিবুল ইসলাম হাবিব

প্রয় দেড় যুগ পর সন্তানকে স্বীকৃতি দিলো পিতা। তাও আদালতের নির্দেশে ডিএনএ টেস্টের মাধ্যমে এই স্বীকৃতি মিলেছে। আর সন্তানের এই স্বীকৃতির জন্য মাকে লড়তে হয়েছে দীর্ঘ আইনি লড়াই। ওই পিতা ও  সন্তান রংপুরের বাসিন্দা।

 

রংপুরের মিঠাপুকুরের বন্দেরপাড়া নাজিয়া সুলতানা সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে চাচাতো ভাই আসাদুলের। সম্পর্ক গড়ায় বিয়ের প্রতিশ্রুতিতে। আর সেই প্রতিশ্রুতিতেই সন্তান সম্ভবা হন নাজিয়া। পরে নাজিয়ার কোলজুড়ে আসে সন্তান।

যার বয়স এখন ১৬ বছর।

বাদি পক্ষের আইনজীবী রফিকুল ইসলাম জানান, সন্তানের স্বীকৃতি পেতে রংপরের নারী-শিশু আদালতের দ্বারস্থ হন নাজিয়া। পরে আদালতের নির্দেশে ডিএনএ টেস্টের মাধ্যমে প্রমাণ মেলে শিশুটি আসাদুল ও নাজিয়ার। তবুও স্বিকৃতি না দেওয়ায় আসাদুলকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেন বিচারিক আদালত। প্রায় ৮ বছর কারাভোগের পর হাইকোর্টে জামিন চান আসাদুল। আদালত ঘটনাটি শুনে আসামিপক্ষের আইনজীবী সাবেক রেলমন্ত্রী অ্যাডভোকেট নুরুল ইসলাম সুজনকে দায়িত্ব দেন উভয়পক্ষের মধ্যে মধ্যস্ততার। পরে সন্তানের স্বীকৃতি দেওয়ায় আসাদুলকে শর্ত সাপেক্ষে জামিন দেন হাইকোর্ট।  

আইনি লড়াই দীর্ঘ হওয়ায় নাজিয়া কিংবা আসাদুল অন্যত্র বিয়ে করে সেই ঘরে সন্তানও হয়েছে। কিন্তু কী দোষ ছিল বৈবাহিক সম্পর্ক ছাড়াই জন্ম নেওয়া শিশুটির এমন প্রশ্নের কোনো সদুত্তর নেই কারও কাছে। আসাদুলের কণ্ঠে তাই অপরাধ বোধের সুর। এ ঘটনায় নিজেকে দুষেণ তিনি।  

আসামির পক্ষ নেওয়া সাবেক মন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন বলেন, এটি একটি উদাহর সৃষ্টি হলো, যেন এমন ভুল আর কেউ না করে।

বুধবার উভয়পক্ষের উপস্থিতিতে বাবার পরিচয় পাওয়া ১০ পারা কোরআনের হাফেজ শিশুটি ভালো মানুষ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হতে চায়।

news24bd.tv/আইএএম

এই রকম আরও টপিক

পাঠকপ্রিয়