চতুর্থ ধাপে ১১৮ জন শহিদ বুদ্ধিজীবীর তালিকা প্রকাশ

চতুর্থ ধাপে ১১৮ জন শহিদ বুদ্ধিজীবীর তালিকা প্রকাশ

নিজস্ব প্রতিবেদক

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে শহিদ আরও ১১৮ জন বুদ্ধিজীবীর তালিকা প্রকাশ করেছে। এ নিয়ে চার ধাপে ৫৬০ জন শহিদ বুদ্ধিজীবীর তালিক প্রকাশ করেছে মন্ত্রণালয়।

রোববার (২৪ মার্চ) মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে সংবাদ সম্মেলন করে চতুর্থ ধাপের এ তালিকা প্রকাশ করেন মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক। তিনি বলেন, চতুর্থ ধাপে ১১৮ জনসহ এখন পর্যন্ত ৫৬০ জন শহিদ বুদ্ধিজীবীর খসড়া তালিকা প্রকাশ করছি।

তবে এটি চূড়ান্ত তালিকা নয়। আগামী ১৪ ডিসেম্বরের আগে চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করা হবে।

তিনি বলেন, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় ২০২০ সালের ১৯ নভেম্বর শহিদ বুদ্ধিজীবীদের তালিকা দেয়ার লক্ষ্যে গবেষক, বীর মুক্তিযোদ্ধা ও মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধির সমন্বয়ে একটি যাচাই-বাছাই কমিটি গঠন করে। মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিবকে সভাপতি করে গঠিত এ কমিটির সদস্য সংখ্যা ১১ জন।

এর মধ্যে মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধি ৩ জন, গবেষক ৬ জন এবং বীর মুক্তিযোদ্ধা ২ জন। এছাড়া শহিদ বুদ্ধিজীবীর তালিকা প্রণয়নের লক্ষ্যে গঠিত কমিটি শহিদ বুদ্ধিজীবীর সংজ্ঞা নির্ধারণের জন্য ৩ সদস্য বিশিষ্ট এবং শহিদ বুদ্ধিজীবীর তালিকা প্রাথমিকভাবে যাচাই বাছাইয়ের জন্য ৮ সদস্য বিশিষ্ট দুটি উপ-কমিটি গঠন করে।

মন্ত্রী আরও বলেন, শহিদ বুদ্ধিজীবীদের তালিকা প্রণয়নের লক্ষ্যে গঠিত উপ-কমিটি প্রাথমিকভাবে প্রাপ্ত তালিকা যাচাই-বাছাই করে জাতীয় কমিটির কাছে সুপারিশ সহকারে তালিকা প্রণয়ন করে। জাতীয় কমিটি চূড়ান্তভাবে যাচাই-বাছাই ও বিশ্লেষণ করে তালিকা অনুমোদন করে।

চার পর্ব মিলিয়ে মোট ৫৬০ জন শহীদ বুদ্ধিজীবীর তালিকা গেজেট আকারে প্রকাশ করা হয়েছে। চতুর্থ পর্বের তালিকা প্রকাশ করার বিষয়ে তিনি আরও বলেন, চতুর্থ পর্বে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় থেকে ১১৮ জন শহিদ বুদ্ধিজীবীর তালিকার প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়।  প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় পর্বের তালিকা প্রকাশের পর অনেক ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান শহিদ বুদ্ধিজীবীর তালিকায় নাম ওঠানোর জন্য আবেদন করতে থাকেন। কমিটি সেই আবেদনসমূহও আমলে নিয়েছে। এ ছাড়া প্রজন্ম ৭১, রক্তঋণ, ১৯৭১: গণহত্যা নির্যাতন আর্কাইভ ও জাদুঘর থেকে নাম সংগ্রহ করেছে কমিটি। এরপর কমিটি যাচাই বাছাই করে চতুর্থ পর্বের তালিকা চূড়ান্ত করেছে।

সংবাদ সম্মেলনে আরও জানানো হয়, মোট ৫৬০ জন শহিদ বুদ্ধিজীবীর মধ্যে সাহিত্যিক ১৮ জন, দার্শনিক ১ জন, বিজ্ঞানী ৩ জন, চিত্রশিল্পী ১ জন, শিক্ষক ১৯৮ জন, গবেষক ১ জন, সাংবাদিক ১৮ জন, আইনজীবী ৫১ জন, চিকিৎসক ১১৩ জন, প্রকৌশলী ৪০ জন, সরকারি ও বেসরকারি কর্মচারী ৩৭ জন, রাজনীতিবিদ ২০ জন, সমাজসেবী ২৯ জন, সংস্কৃতিসেবী এবং চলচ্চিত্র, নাটক, সঙ্গীত, শিল্পকলার অন্যান্য শাখার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি ৩০ জন।

news24bd.tv/FA

পাঠকপ্রিয়