ব্রিটিশ নাগরিকত্ব ফিরে পেতে শামীমার আরেকটি চেষ্টা ব্যর্থ

শামীমা খাতুন

ব্রিটিশ নাগরিকত্ব ফিরে পেতে শামীমার আরেকটি চেষ্টা ব্যর্থ

ইসলামি জঙ্গিগোষ্ঠী আইএসে যোগ দিতে ২০১৫ সালে যুক্তরাজ্য ছেড়েছিলেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ব্রিটিশ নাগরিক শামীমা বেগম। ২০১৯ সালে তার ব্রিটিশ নাগরিকত্ব বাতিল হয়।
বর্তমানে উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় সিরিয়ার ‘আল রোজ’ নামে একটি আশ্রয় শিবিরে আটকে আছেন শামীমা। যেটিকে তিনি কারাগারের চেয়েও অসহনীয় বলে উল্লেখ করেছেন।

সূত্র, আল জাজিরা।  
শামীমার বিরুদ্ধে অভিযোগ, লন্ডন থেকে সিরিয়ায় গিয়ে জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেটে (আইএস) যোগ দেওয়া। বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত শামীমা বেগম ব্রিটিশ নাগরিকত্ব ফিরে পেতে চেষ্টা করছেন। কিন্তু চলতি বছরের ফেব্রুয়ারির শেষের দিকে আপিল আদালতের তিনজন বিচারপতি সর্বসম্মতিক্রমে তাঁর নাগরিকত্ব ফিরে পাওয়ার আবেদন খারিজ করে দেন।

ব্রিটিশ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা বলেন, দেশের নিরাপত্তার স্বার্থে এমন  সিদ্ধান্তে তাঁরা অটল থাকবেন। কারণ শামীমা নিষিদ্ধ উগ্রবাদী সংগঠনের সদস্য। তবে শামীমা  এরিমধ্যে স্বীকার করেছেন, তিনি জেনেশুনেই একটি নিষিদ্ধ সংগঠনে যোগ দিয়েছিলেন এবং সেজন্য  অনুশোচনা রয়েছে তার।  
২৪ বছর বয়সী শামীমা ২০১৫ সালে যুক্তরাজ্য থেকে পালিয়ে সিরিয়ায় গিয়ে আইএসের সঙ্গে যোগ দেন। তখন তাঁর বয়স ছিল ১৫ বছর। এরপরই ২০১৯ সালে যুক্তরাজ্য সরকার তাঁর নাগরিকত্ব বাতিল করে।

news24bd.tv/ডিডি


 

পাঠকপ্রিয়