দেশে ৫৫ শতাংশ অকাল মৃত্যুতে দায়ী দূষিত বায়ু: বিশ্বব্যাংকের প্রতিবেদন

দেশে ৫৫ শতাংশ অকাল মৃত্যুতে দায়ী দূষিত বায়ু: বিশ্বব্যাংকের প্রতিবেদন

অনলাইন ডেস্ক

উদ্বেগজনক মাত্রার দূষণ ও পরিবেশগত স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে রয়েছে বাংলাদেশ। এর ফলে দরিদ্র, পাঁচ বছরের শিশু, বয়স্ক এবং নারীরা বেশি ক্ষতির মুখে পড়ছে। বিশ্বব্যাংকের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে এসেছে। দূষণ রোধে পলিসি সংশোধন, সুশাসন নিশ্চিত করা এবং এ খাতে বিনিয়োগ বৃদ্ধির পরামর্শ দিয়েছে বিশ্বব্যাংক।

 

আজ বৃহস্পতিবার রাজধানীর একটি হোটেলে ‘দ্য বাংলাদেশ কান্ট্রি এনভায়রেন্টমেন্ট অ্যানালাইসিস’ (সিইএ) নামে বিশ্বব্যাংকের প্রতিবেদন এ তথ্য প্রকাশ করা হয়।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দেশের ৫৫ শতাংশ অকাল মৃত্যুর পেছনে দায়ী দূষিত বায়ু। এই দূষণের ফলে ২০১৯ সালে ৮ দশমিক ৩২ শতাংশ জিডিপি হারিয়েছে বাংলাদেশ।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, বায়ু দূষণের পাশাপাশি, অস্বাস্থ্যকর স্যানিটারি, পানি ও সীসা দূষণে বছরে ২ লাখ ৭২ হাজার মানুষের অকাল মৃত্যু ঘটে।

সময় মতো ও কার্যকরী পদক্ষেপ নেয়া গেলে বছরে অন্তত ১ লাখ ৩৩ হাজার অকাল মৃত্যু ঠেকানো সম্ভব।
এ সময় বাংলাদেশ ও ভুটানে নিযুক্ত বিশ্বব্যাংকের কান্ট্রি ডিরেক্টর আবদুলায়ে সেক বলেন, বাংলাদেশের জন্য পরিবেশের ঝুঁকি মোকাবেলা জরুরি। পরিবেশের ক্ষতি করে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি হলে তা টেকসই হতে পারে না।

পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক মন্ত্রী সাবের হোসেন চৌধুরী বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনের জন্য বাংলাদেশ দায়ী না হলেও এর ক্ষতিকর প্রভাব মোকাবেলা করতে হচ্ছে। বাংলাদেশের একার পক্ষে আর্থিকভাবে জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব মোকাবেলা করা সম্ভব না। জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব মোকাবেলায় ঋণ নেয়া হয়েছে। যা বাংলাদেশের ওপর একধরনের চাপ।

পরিবেশ দূষণ রোধ বাংলাদেশের প্রবৃদ্ধি ও উন্নয়নের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ মন্তব্য করে তিনি বলেন, চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে ভবিষ্যতে বেশকিছু কার্যকর পদক্ষেপ হাতে নেবে সরকার।

news24bd.tv/SHS   

পাঠকপ্রিয়