সোমবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৯ | আপডেট ০৬ মিনিট আগে

যেভাবে উদ্ধার হলো অপহৃত শিশু তাওসিফুর

নিউজ টোয়েন্টিফোর ডেস্ক

যেভাবে উদ্ধার হলো অপহৃত শিশু তাওসিফুর

রাজধানীর একটি শপিং মল থেকে অপহৃত ছয় বছরের শিশু তাওসিফুর রহিমকে শনিবার উদ্ধার করেছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। তেজগাঁও শিল্পাঞ্চলের মধ্য কুনিপাড়া এলাকা থেকে শিশুটিকে উদ্ধার করা হয়। এ সময় তিন অপহরণকারীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

তারা হলেন রুবেল রানা, শিপন শেখ ও সাগর। 

গতকাল রবিবার সকালে ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে এ বিষয়ে জানাতে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

এতে ডিবি উত্তরের উপ-কমিশনার শেখ নাজমুল আলম বলেন, গত ৩ নভেম্বর সন্ধ্যা ৭টার দিকে মোমিন আহম্মেদ, তার স্ত্রী নাজমুন আক্তার ও তাদের ছেলে তাওসিফসহ শপিং মলে কেনাকাটা করতে আসেন। এসময় অপহরণকারী রুবেল রানা ও তার সহযোগীরা তাওসিফকে প্রলোভন দেখিয়ে শপিং মল থেকে অপহরণ করে। পরে তেজগাঁও শিল্পাঞ্চলের হাতিরঝিলের সামনে মধ্য কুনিপাড়ায় নিয়ে যায়। অপহরণের পর শিশুটির কাছ থেকে তার বাবার মোবাইল নম্বর নিয়ে কল করে ১০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। বিষয়টি তাওসিফের বাবা পুলিশকে জানালে গুলশান বিভাগ ও ডিবি উত্তর যৌথ অভিযান চালিয়ে শিশুটিকে উদ্ধার করে। অভিযানের সময় ডিবি উত্তরের সিনিয়র এসি গোলাম সাকলায়েন আহত হন।

গোয়েন্দা কর্মকর্তা আরও বলেন, মুক্তিপণের উদ্দেশ্যে তাওসিফকে অপহরণ করা হয়েছিল। অপহরণকারীরা শনিবার ভোর ৪টার দিকে র‌্যাংগস ভবন ফ্লাইওভারের নিচে মুক্তিপণের টাকা নেওয়ার জন্য আসে। এর আগেই গোয়েন্দা পুলিশ ছদ্মবেশে তেজগাঁও-বিজয় সরণি ক্রসিংয়ের আশপাশে অবস্থান নেয়। তথ্য প্রযুক্তির মাধ্যমে অপহরণকারীদের অবস্থান নিশ্চিত হয়ে গোয়েন্দা কর্মকর্তারা ধীরে ধীরে অগ্রসর হন।

পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়েই উপর্যুপরি গুলি বর্ষণ করতে করতে অপহরণকারীরা প্রাইভেটকারযোগে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে।

পুলিশও আত্মরক্ষার্থে পাঁচ রাউন্ড গুলি বর্ষণ করে। একপর্যায়ে অপহরণকারী দলের রুবেল রানা গাড়ি থেকে নিচে পড়ে যায়। তার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে কুনিপাড়ার হাতিরঝিল সংলগ্ন একটি ঘনবসতিপূর্ণ বাড়ির তৃতীয় তলা থেকে শিশুটিকে উদ্ধার করা হয়। ঘটনাস্থল থেকে আরও দুইজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। অপহরণকারী চক্রের অপর সদস্যদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

মন্তব্য