মালদ্বীপে প্রেসিডেন্ট মুইজ্জুর দলের জয়

নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে জয় পেয়েছে প্রেসিডেন্ট মোহামেদ মুইজ্জুর দল পিপলস ন্যাশনাল কংগ্রেস (পিএনসি)।

মালদ্বীপে প্রেসিডেন্ট মুইজ্জুর দলের জয়

অনলাইন ডেস্ক

মালদ্বীপের পার্লামেন্ট নির্বাচনে নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে জয় পেয়েছে প্রেসিডেন্ট মোহামেদ মুইজ্জুর দল পিপলস ন্যাশনাল কংগ্রেস (পিএনসি)। রোববার (২১ এপ্রিল) দেশটিতে সকাল থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হয়। প্রায় সাড়ে ৯ ঘণ্টা ভোট গ্রহণ চলে।

শতকরা ৫৪ ভাগ ভোট পেয়ে বর্তমান প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিতম মোহমেদ সলিহকে পরাজিত করেছেন তিনি।

খবর বিবিসির।

রাত সাড়ে ১২টা পর্যন্ত মালদ্বীপের নির্বাচন কমিশন ৯৩টি আসনের মধ্যে ৮৬টির ফলাফল ঘোষণা করে। এসব আসনের মধ্যে ৬৬টিতে জয় পেয়েছে মুইজ্জুর দল পিএনসি। এককভাবে সরকার গঠনের জন্য প্রয়োজনীয় আসনের চেয়ে এই সংখ্যা অনেক বেশি।

বিদায়ী পার্লামেন্টে পিএনসি ও তাদের শরিকদের মাত্র আটটি আসন ছিল।

যদিও দেশটিতে নির্বাচন ঘনিয়ে আসতেই প্রেসিডেন্ট মোহামেদ মুইজ্জুর জন্য সহজ ছিল বলে মনে করা হচ্ছিল। যার অন্যতম কারণ, চীনপন্থী মুইজ্জু প্রেসিডেন্ট হলেও পার্লামেন্টের নিয়ন্ত্রণ ছিল তার পূর্বসূরি ভারতপন্থী ইব্রাহিম মোহামেদ সালেহর দল মালদিভিয়ান ডেমোক্রেটিক পার্টির (এমডিপি) হাতে। ফলে চীনপন্থী মুইজ্জুর দল পার্লামেন্টের নিয়ন্ত্রণ নিতে পারবে কি না, এটাকে তার জন্য চ্যালেঞ্জ বলে মনে করা হচ্ছিল।

বর্তমান মেয়াদে মোহমেদ সলিহ প্রেসিডেন্ট থাকাকালীন মালদ্বীপ সরকার ভারতের সাথে কূটনৈতিক সম্পর্ক জোরদার করেছিল। ইতোমধ্যেই তিনি নিজের পরাজয় মেনে নিয়ে প্রতিপক্ষ মুইজ্জুকে স্বাগত জানিয়েছেন। দেশটির নির্বাচন কমিশন ফলাফল ঘোষণার পরই তিনি এক্স হ্যান্ডেলে (সাবেক টুইটার) দেওয়া এক পোস্টে অভিনন্দন জানান।

গত ৯ সেপ্টেম্বর প্রথম দফায় নির্বাচনে এককভাবে কোনো প্রার্থী ৫০ শতাংশের বেশি ভোট পাননি। ফলে এ নির্বাচন গড়ায় দ্বিতীয় দফায় (রানঅফ), যার ফলাফলে জয়ী হলেন মুইজ্জু। প্রথম দফার নির্বাচনে মুইজ্জু পেয়েছিলেন ৪৬ শতাংশ ভোট। আর সলিহ ৩৯ শতাংশ।

গত বছর সেপ্টেম্বরে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ভারতবিরোধী অবস্থান প্রকাশ করে বিজয়ী হন মোহামেদ মুইজ্জু। মালদ্বীপের সাবেক প্রেসিডেন্ট আবদুল্লাহ ইয়ামিনের মতো চীনপন্থী অবস্থান নেন। এদিকে দুর্নীতির অভিযোগে ইয়ামিনের ১১ বছরের কারাদণ্ড হয়েছিল। তবে গত সপ্তাহে আদালত এ সাজা বাতিল করে।

news24bd.tv/DHL

পাঠকপ্রিয়