জিম্মিদের মুক্তি না দিলে শান্তি চুক্তি ভেস্তে দেবে ইসরায়েল

জিম্মিদের মুক্তি না দিলে শান্তি চুক্তি ভেস্তে দেবে ইসরায়েল

অনলাইন ডেস্ক

গাজায় বিগত আট মাস ধরে চলমান রয়েছে ইসরায়েলি আগ্রাসন। শুক্রবার (৩১ মে) ইসরায়েলের প্রতিরক্ষা বাহিনীর এক কর্মকর্তা সংবাদ সংস্থা রয়টার্সের বরাতে জানান, হামাসের হাতে আটক জিম্মিদের মুক্তি দিলেই শুধুমাত্র গাজা ইস্যুতে শান্তি চুক্তির ব্যাপারটি বিবেচনা করবে ইসরায়েল।

এর আগে বৃহস্পতিবার (৩০ মে) এক বিবৃতিতে হামাস জানিয়েছে, গাজায় যুদ্ধবিরতি সংক্রান্ত আর কোনো আলোচনায় অংশ নিতে রাজি নয় তারা। তবে ইসরায়েল যদি গাজায় সামরিক অভিযান বন্ধ করে, তাহলে সব জিম্মিকে ছেড়ে দেওয়ার পাশাপাশি স্থায়ী শান্তি চুক্তির জন্য প্রস্তুত রয়েছে তারা।

বিবৃতিতে হামাসের পক্ষ থেকে আরও বলা হয়েছে, ‘গাজায় আমাদের জনগণ, পরিবার-পরিজনদের ওপর গণহত্যা চলছে। যারা বেঁচে আছে, তারা প্রতিদিন আগ্রাসন, দুর্ভিক্ষ ও দখলদারিত্বের শিকার হচ্ছে।

হামাস ও ফিলিস্তিনের অন্যান্য নেতৃস্থানীয় বিভিন্ন গোষ্ঠী মনে করে, এই পরিস্থিতিতে গাজায় যুদ্ধবিরতির আলোচনায় হামাসের অংশগ্রহণ সার্বিক অবস্থার কোনো পরিবর্তন ঘটাতে সক্ষম হবে না। আমরা আমাদের মধ্যস্থতাকারীদের জানিয়ে দিয়েছি, যদি দখলদার বাহিনী গাজায় আগ্রাসন বন্ধ করে, তাহলে গাজা ইস্যুতে একটি সম্পূর্ণ শান্তি চুক্তির জন্য আমরা প্রস্তুত।

এই চুক্তিতে জিম্মিদের মুক্তি দেওয়া নিয়ে বিস্তৃত সমঝোতাও যোগ হবে বলেও জানায় হামাস।

হামাসের এই বিবৃতির প্রতিক্রিয়ায় ইসরায়েলের অবস্থান স্পষ্ট করেন ওই কর্মকর্তা বলেন, ‘সবার আগে জিম্মিদের মুক্তি দিতে হবে। না হয় গাজায় অভিযান থামবে না, কোনো চুক্তিও হবে না। ’

রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়, এক সপ্তাহেরও বেশি সময় আগে থেকে গাজার দক্ষিণ সীমান্ত শহর রাফায় অভিযান শুরু করেছে ইসরায়েলি বাহিনী।

শহরটিতে গাজার বিভিন্ন এলাকা থেকে প্রাণ বাঁচাতে আসা বেসামরিক ফিলিস্তিনিরা আশ্রয় নিয়েছে।

সম্প্রতি অন্যতম অঙ্গপ্রতিষ্ঠান আন্তর্জাতিক বিচার আদালত রাফায় ইসরায়েলি বাহিনীর অভিযান বন্ধের আদেশ দিয়ে রায় দিয়েছে। যদিও সেই রায় উপেক্ষা করেই সেনা অভিযান অব্যাহত রেখেছেন ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু।

news24bd.tv/SC