১০ ঘণ্টা বিদ্যুৎহীন, অন্ধকারে ৩ উপজেলা 

১০ ঘণ্টা বিদ্যুৎহীন, অন্ধকারে ৩ উপজেলা 

অনলাইন ডেস্ক

বিদ্যুৎ সরবরাহ লাইনে সমস্যার কারণে ১০ ঘণ্টা ধরে অন্ধকারে কিশোরগঞ্জের তিন উপজেলা অষ্টগ্রাম, ইটনা ও মিঠামইনের ২৩টি ইউনিয়ন।

রোববার (৯ জুন) ভোর ৬টা থেকে বেলা ৪টা পর্যন্ত ওই তিন উপজেলায় বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ থাকায় কয়েক লাখ মানুষের দুর্ভোগ চরমে উঠেছে।

পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি সূত্রে জানা যায়, রোববার ভোর রাতে হঠাৎ কিশোরগঞ্জ গ্রিড উপকেন্দ্র থেকে তিন উপজেলার ৩৩ কেভি সাবস্টেশনে বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ হয়ে পড়ে। এতে হাওরের অষ্টগ্রাম, ইটনা ও মিঠামইন উপজেলার ৭৪ হাজারের বেশি পল্লী বিদ্যুৎ গ্রাহক বিদ্যুৎহীন হয়ে পড়েন।

এ সময় হাওরের তিন উপজেলার ২৩টি ইউনিয়নে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান কল-কারখানা, হাসপাতাল ও সরকারি-বেসরকারি অফিস, অটোরিকশা চার্জসহ বিদ্যুৎ চালিত কাজ করতে চরম ভোগান্তিতে পড়তে হয় সাধারণ মানুষের।

চরম বিপাকে পড়েছেন নিম্ন আয়ের মানুষ, অটোরিকশা চালকরা। রাতে লোডশেডিং ও দিনে বিদ্যুৎহীনতায় যানবাহনে চার্জ দিতে না পারায় যাত্রী পরিবহন করতে পারছেন না তারা। সড়কে কম গণপরিবহন থাকায় জনদুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে সাধারণ মানুষকে।

বিদ্যুৎ সরবরাহ লাইন সমস্যার পর কিশোরগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির (পবিস) কর্মীরা হাওরে নৌকা দিয়ে সমস্যা শনাক্তকরণে কাজ করছেন। তবে রোববার বেলা ৪টা পর্যন্ত মিঠামইন থেকে করিমগঞ্জ উপজেলার বালিখলা বিদ্যুৎ সরবরাহ লাইনে সমস্যা শনাক্ত করতে পারেননি তারা।

কিশোরগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি (পবিস) মিঠামইন জোনাল অফিসের অধীনে প্রায় ৭৪ হাজারের বেশি গ্রাহক রয়েছেন। অষ্টগ্রামে প্রায় ২৯ হাজার, মিঠামইনে ২৫ হাজার ও ইটনা আংশিকে ২০ হাজার গ্রাহক রয়েছেন।

মিঠামইন পল্লী বিদ্যুৎ জোনাল অফিসের ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার (ডিজিএম) প্রকৌশলী কামাল উদ্দিন বলেন, রোববার ভোরে হঠাৎ বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ হয়ে পড়ে। তাৎক্ষণিক পল্লী বিদ্যুৎ প্রকৌশলী ও কর্মীরা হাওরে বিদ্যুৎ সরবরাহ লাইনের সমস্যা শনাক্তকরণে কাজ শুরু করেন। এখনও সমস্যা খোঁজে পাওয়া যায়নি। সমস্যা শনাক্ত হলে দ্রুত সমাধান করে বিদ্যুৎ সরবরাহ চালু করা হবে। ’

news24bd.tv/তৌহিদ

পাঠকপ্রিয়