ঠাকুরগাঁওয়ে এসিল্যান্ডের আগুন আতঙ্ক, গ্রাম ছেড়ে দিতে হুমকি

ঠাকুরগাঁওয়ে এসিল্যান্ডের আগুন আতঙ্ক, গ্রাম ছেড়ে দিতে হুমকি

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি

ঠাকুরগাঁওয়ের হরিপুর উপজেলায় ভূমিহীনদের বাসস্থান থেকে হটিয়ে দিতে পেট্রোল দিয়ে খড়কুটোতে আগুন জ্বালিয়ে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে ওই উপজেলার ভূমি অফিসের সহকারী কমিশনার (ভূমি) আব্দুল্লাহ-আল-নোমানের বিরুদ্ধে। এই ঘটনার পর ওই এলাকায় আতঙ্ক বিরাজ করছে।

সোমবার (১০ জুন) রাত ৮টার দিকে উপজেলার ৬নং ভাতুরিয়া ইউনিয়নের চাপসার গুচ্ছগ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

গুচ্ছগ্রামের ওই ভূমিহীনরা অভিযোগ করে বলেন, কোনো নোটিশ বা কোনো কথাবার্তা ছাড়াই হঠাৎ এসিল্যান্ড স্যার রাতে আসে আমাদের গুচ্ছগ্রামে স্তূপ করে রাখা খড়গুলোতে পেট্রোল লাগিয়ে আগুন জ্বালিয়ে দেয়।

এসময় আমরা সকলে মিলে আগুন লাগার কারণ এসিল্যান্ডের কাছে জানতে চাইলে তিনি ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে গালাগালি করেন। এক পর্যায়ে আমাদেরকে এই গ্রাম ছেড়ে দেবার হুমকিও দেন।

জানা যায়, দীর্ঘদিন ধরেই ওই ইউনিয়নের গুচ্ছগ্রামে বসবাস করে আসছেন প্রায় শতাধিক মানুষ। ওই জমির পাশে ভাতুরিয়া ইউনিয়ন ভূমি অফিস।

সোমবার রাতে ওই গুচ্ছগ্রামে উপস্থিত হয় হরিপুর উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) আব্দুল্লাহ-আল-নোমান। এসময় কোন কথা না বলেই গুচ্ছগ্রামের ব্যক্তিদের স্তূপ করে রাখা খড়িগুলোতে পেট্রোল দিয়ে আগুন জ্বালিয়ে দেয় এসিল্যান্ড। মুহূর্তের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ে আগুনটি। এসময় স্থানীয়রা ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শাজাহান সরকার বিষয়টি অবগত করলে তিনিও ঘটনাস্থলে আসেন। পরে চেয়ারম্যান এসিল্যান্ডের সাথে কথা বলতে গেলে এক পর্যায়ে চেয়ারম্যানকেও লাঞ্ছিত করেন তিনি। এসময় স্থানীয়রা আরও বেশি ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে। পরে উপজেলা নির্বাহী অফিসার আরিফুজ্জামান ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।

গুচ্ছগ্রামে থাকা কয়েকজন ভুক্তভোগী বলেন, এসিল্যান্ড স্যার কেন এমন করলো জানিনা। তিনি যখন তখন এসে বলে আমাদের এই গুচ্ছগ্রাম ছেড়ে চলে যেতে। আমার দীর্ঘদিন ধরে এখানে বসবাস করছি। কোন কারণ ছাড়া আমাদের উপর এভাবে অত্যাচার করা হলো এটার বিচার চাই আমরা। যেভাবে আগুন দিছে অল্পের জন্য আমরা বেঁচে গেছি। তিনি পেট্রোলসহ যেখানে আগুন দিয়েছিলো সেটি যদি আরও বেশি ছড়িয়ে যেতো তাহলে আমাদের অনেক ঘরবাড়ি পুড়ে যাইতো।

ভাতুরিয়ার চেয়ারম্যান শাজাহান সরকার বলেন, একজন এসিল্যান্ড এমন কাজ করবে তা মানা যায়না। আমি চেয়ারম্যান হয়ে তাকে বললাম স্থানীয়দের সাথে কথা বলবো আপনি আগুন দিয়েন না। তিনি আমার কথা তো শুনলোইনা বরং সকলের সামনে আমাকে অপমান করলো। একজন সরকারি কর্মকর্তা এমন হলে কিছু বলার থাকে না।

অভিযোগের বিষয়ে হরিপুর ভূমি অফিসের সহকারী কমিশনার (ভূমি) আব্দুল্লাহ-আল-নোমান’কে মোবাইল করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করে ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেন। অভিযোগ বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে তিনি ফোন কেটে দেন।

ঠাকুরগাঁও জেলা প্রশাসক মাহবুবুর রহমান বলেন, বিষয়টি শুনেছি। কি কারণে এমন হলো বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

news24bd.tv/SC