স্বস্তি ও ভোগান্তি যখন একসাথে!

সংগৃহীত ছবি

স্বস্তি ও ভোগান্তি যখন একসাথে!

অনলাইন প্রতিবেদক

ঘরমুখো মানুষের বাড়ি ফেরার তাড়ায় ব্যস্ত নগরীর সড়ক মহাসড়ক। চারদিকে গরমে হাঁসফাঁস জনজীবন। ঠিক এরই মধ্যে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় বৃষ্টি যেন একটু স্বস্তি এনে দিলো। কিন্তু স্বস্তি এলেও কর্দমাক্ত ও কাকভেজা শহরে এ যেন আরেক ভোগান্তি।

বৃহস্পতিবার (৭ জুন) বিকেল থেকেই বিভিন্ন স্থানে ভারী বৃষ্টি শুরু হয়। ক্ষণে ক্ষণে মেঘের গর্জনে কেঁপে উঠছে আকাশ। বৃষ্টিতে কিছুটা স্বস্তি মিললেও তাৎক্ষণিক ভোগান্তিতে পড়তে হয়েছে পথচারী ও ফুটপাতের দোকানিদের।

ঈদযাত্রায় বের হওয়া মানুষজন জানান, সারাদিন রৌদ্রজ্জ্বল থাকায় বাইরে বের হওয়ার সময়ে ছিলো না প্রস্তুতি।

ফলে অনেকে ভিজে যান। আবার কাউকে কাউকে আশপাশের ছাউনি ও দোকানের ভেতর প্রবেশ করতে দেখা যায়।

এদিন সকাল থেকেই কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে যাত্রীদের ভিড় দেখা যায়। ট্রেনে ঈদযাত্রার দ্বিতীয় দিনে শিডিউল বিপর্যয়ের কোনো ঘটনা ঘটেনি এখন পর্যন্ত। পারাবত এক্সপ্রেস, তিস্তা এক্সপ্রেস, মহানগর এক্সপ্রেস, সুন্দরবন এক্সপ্রেসসহ সবগুলো ট্রেনকে সময়মত প্লাটফর্ম ছাড়তে দেখা যায়।

news24bd.tv/FA

এই রকম আরও টপিক