প্রথম দিনেই রেল পথে স্বস্তির ঈদযাত্রা

রেলপথ

প্রথম দিনেই রেল পথে স্বস্তির ঈদযাত্রা

অনলাইন ডেস্ক

ঈদযাত্রায় প্রথম দিন আজ শুক্রবার রাজধানীর কমলাপুর রেলস্টেশনে উপচেপড়া ভিড় লক্ষ করা যায়। তবে চিরচেনা ভোগান্তি ছিল না এবার। সকাল থেকে কোনো ধরনের শিডিউল বিপর্যয় ছাড়াই কমলাপুর ও চট্টগ্রাম থেকে ট্রেন ছেড়েছে সময়মতো। এতে অনেকটা স্বস্তি নিয়েই বাড়ি ফিরছেন নগরবাসী।

 

শুক্রবার সকাল ৬টায় কমলাপুর থেকে রাজশাহীর উদ্দেশে ছেড়ে যায় দিনের প্রথম ট্রেন। এরপর থেকে বেশিরভাগ ট্রেনই ছেড়ে গেছে সময়মতো।

একই চিত্র চট্টগ্রাম স্টেশনেও। ভিড় থাকলেও নির্ধারিত সময় রেল ছেড়ে যাওয়ায় স্বস্তি নিয়ে বাড়ির পথে রওনা হয়েছেন যাত্রীরা।

 

গত ঈদুল ফিতরের মতো এবারও প্ল্যাটফর্ম এলাকায় যেন কোনো টিকিটবিহীন ব্যক্তি প্রবেশ করতে না পারে, সেজন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হয়। যার ফলে ঢাকা স্টেশনের প্ল্যাটফর্ম এলাকায় অবাঞ্ছিত কোনো মানুষকে দেখা যায়নি। এতে স্টেশনের প্লাটফর্ম এলাকার পরিবেশ অনেকটাই ভালো।  

ঈদযাত্রায় ট্রেনের যাত্রীদের যেন কোনো ভোগান্তিতে না পড়তে হয়, সেজন্য প্লাটফর্ম এলাকায় প্রবেশের মুখে র‌্যাব, পুলিশ এবং রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনী (আরএনবি) কন্ট্রোল রুম স্থাপন করেছে। প্লাটফর্মে প্রবেশের মুখে ট্রাভেলিং টিকিট এক্সামিনারদের (টিটিই) দেখা গেছে যাত্রীদের টিকিট চেক করতে। তবে, এবার টিকিটের সঙ্গে এনআইডি মেলাতে দেখা যায়নি। যাদের টিকিট নেই, তারা ১-৬ নম্বর কাউন্টারে গিয়ে দাঁড়িয়ে যাওয়ার টিকিট সংগ্রহ করতে দেখা গেছে। তারপর যাত্রীরা পরিচ্ছন্ন একটি পরিবেশের মধ্য দিয়ে প্ল্যাটফর্ম হয়ে নির্দিষ্ট গন্তব্যের ট্রেনে উঠছেন।

নির্ধারিত সময়ের পাঁচ মিনিট পরে ৯টা ১৫ মিনিটে ঢাকা রেলওয়ে স্টেশন ছেড়ে যায় রংপুর এক্সপ্রেস। ওই ট্রেনের পীরগাছাগামী যাত্রী রফিকুল ইসলাম রফিক গণমাধ্যমকে বলেন, ট্রেনের টিকিট সংগ্রহ করতে যতটা কষ্ট হয়েছে, ততটা কষ্ট ট্রেনে চড়তেও হয়নি। রিকশা থেকে নামার পর ট্রেন পর্যন্ত পায়ে হেঁটে এসেছি। আগে প্লাটফর্ম এলাকায় মানুষের সঙ্গে ধাক্কা লেগে হোঁচট খেতে হতো, এবার কারো সঙ্গে ধাক্কা পর্যন্ত লাগেনি। প্ল্যাটফর্মে এসে দেখলাম ট্রেন দাঁড়ানো আছে। ট্রেনে উঠতেও তেমন কোনো ভিড় ছিল না।  সুন্দরভাবে নিজের আসন খুঁজে পেয়েছি। এমন ব্যবস্থাপনা থাকলে রেলওয়ে ভালো করবে।  

জামালপুর এক্সপ্রেস প্রেমের যাত্রী গোলাম সারওয়ার বলেন, ট্রেনে টিকিট কাটার পরেও কয়েক বছর আগে পরিবার নিয়ে ভ্রমণ করতে খুব কষ্ট হতো। প্লাটফর্ম এলাকায় হাজার হাজার মানুষের ভিড় থাকতো, ট্রেনে নিজের সিট পর্যন্ত যাওয়া যেত না। গত দুই বছর যাবত এই ভোগান্তি লাঘব হয়েছে। টিকিট সংগ্রহ করতে অনেক কষ্ট হলেও অন্তত নিজের আসনে যেতে না পারার দুঃখটা লাঘব হয়েছে। আসলে স্টেশন এরিয়া এমনই থাকা উচিত। বাইরের কোনো মানুষ থাকবে না, টিকিটসহ যাত্রী ছাড়া।  

ঢাকা রেলওয়ে স্টেশনের স্টেশন ব্যবস্থাপক মোহাম্মদ মাসুদ সারওয়ার বলেন, সকাল থেকে এখন পর্যন্ত প্রতিটি ট্রেন নির্ধারিত সময় ছেড়ে গেছে।

news24bd.tv/আইএএম

এই রকম আরও টপিক

পাঠকপ্রিয়