নারীমুক্তির মাধ্যমে রুচিশীল প্রজন্ম গঠন এবং অর্থনৈতিক অগ্রগতি

সাত কোটি নারীকে সামাজিক দাসত্ব থেকে মুক্ত করে আত্মসন্মানবোধ সম্পন্ন জীবন দিতে কাজ করে যাচ্ছেন বঙ্গবন্ধু কন্যা।

আওয়ামী লীগের ৭৫ বছর

নারীমুক্তির মাধ্যমে রুচিশীল প্রজন্ম গঠন এবং অর্থনৈতিক অগ্রগতি

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রতিষ্ঠার ৭৫তম বছর পূর্তি বর্ণাঢ্যভাবে উদযাপন করবে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ। দীর্ঘ সময়ের নানা নানা চড়াই-উৎরাইয়ের পেরিয়ে নিজেদের অর্জনগুলো তুলে ধরছে দলটি। আওয়ামী বহুবিধ উন্নয়নের মধ্যে নারীর ক্ষমতায়ন ও নারী উন্নয়ন অন্যতম।

স্বাধীনতার পর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান নারীদের জন্য বিনামূল্যে শিক্ষা ও সরকারি কর্মক্ষেত্রে ১০ শতাংশ কোটা চালু করেন, সেই পথ ধরেই আজ প্রাথমিকে ৬০ শতাংশ পদ নারীদের জন্য সংরক্ষণ করছে আওয়ামী লীগ সরকার।

এর ফলে নিজ অঞ্চলে বাস করেই প্রাইমারি স্কুলগুলোতে চাকরি করতে পারেন নারীরা, বিশেষায়িত কোনো দক্ষতাও প্রয়োজন হয় না। নারীদের জন্য এটি সুবিধাজনক ও সহজ। ফলে নারী শিক্ষকের সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে নারী শিক্ষার্থীর হারও বাড়ছে। পরবর্তীতে যারা উচ্চশিক্ষা নিয়ে পুরুষদের মতোই সবরকমের কর্মে যোগদান করতে সমর্থ হচ্ছেন।

দেশের অর্ধেক জনগোষ্ঠী নারী। তাই আর্থিক ও সামাজিকভাবে তাদের ক্ষমতায়নের মাধ্যমে ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে শিক্ষিত ও মানবিক প্রজন্ম হিসেবে গড়ে তোলার উদ্দেশে নারী উন্নয়নের ওপর বিশেষ গুরুত্ব দেয় আওয়ামী লীগ।

বিনামূল্য প্রাথমিক থেকে উচ্চশিক্ষা এবং উপবৃত্তির মাধ্যমে নারীদের এগিয়ে নেওয়ার সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন সরকার। প্রায় সাত কোটি নারীকে উগ্রবাদের কবল ও সামাজিক দাসত্ব মুক্ত করে আত্মসন্মানবোধ সম্পন্ন জীবন দিতে এবং তাদের কর্মের মাধ্যমে দেশের অর্থনীতিকে শক্তিশালী করার নীতিমালা বাস্তবায়ন করে যাচ্ছেন বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা।

news24bd.tv/FA

এই রকম আরও টপিক