বাইডেনের পর ডেমোক্র্যাট প্রেসিডেন্ট প্রার্থী কে?

জো বাইডেন, কমলা হ্যারিস ও হুইটমার

বাইডেনের পর ডেমোক্র্যাট প্রেসিডেন্ট প্রার্থী কে?

অনলাইন ডেস্ক

যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট ও রিপাবলিকান দলের প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে গত সপ্তাহে বিতর্কে বাইডেনের পারফরম্যান্স নিয়ে ডেমোক্র্যাট শিবিরে উৎকণ্ঠা তৈরি হয়েছে। অনেকে মনে করছেন দ্বিতীয় মেয়াদে প্রেসিডেন্ট হওয়ার মতো শারীরিক সক্ষমতা হারিয়েছেন বাইডেন। তাকে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর দাবি উঠেছে দলের মধ্যে। যদিও বাইডেন জোর দিয়ে বলেছেন, তিনি শেষ পর্যন্ত নির্বাচনে লড়বেন।

 

এখন যদি প্রেসিডেন্ট বাইডেন শেষ পর্যন্ত ডেমোক্র্যাটিক দলের হয়ে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়াতে বাধ্য হন, তা হলে কে হবে ডেমোক্র্যাটিক দলের পরবর্তী প্রার্থী। এ ক্ষেত্রে মনে করা হচ্ছে ডেমোক্র্যাটিক দলের প্রার্থী হওয়ার দৌড়ে সবচেয়ে এগিয়ে রয়েছেন ভাইস প্রেসিডেন্ট কমলা হ্যারিস। এ বিষয় নিয়ে আলোচনা সম্পর্কে অবগত বাইডেনের প্রচার শিবির, হোয়াইট হাউজ ও ডেমোক্র্যাটিক ন্যাশনাল কমিটির সাতটি সিনিয়র সূত্র গণমাধ্যমকে এমন আভাস দিয়েছে। তবে এই তালিকায় আরও অনেকের নাম রয়েছে।

যাদের মধ্যে অনেকে শুধু এই মেয়াদে নয়, পরবর্তীতেও  প্রেসিডেন্ট প্রার্থীর জন্য লড়বেন বলে আগেই ঘোষণা দিয়েছেন।   

ভাইস-প্রেসিডেন্ট কমলা হ্যারিস

বাইডেনের পর ডেমোক্র্যাট শিবিরে সবচেয়ে আলোচিত নাম কমলা হ্যারিস। হ্যারিস প্রসিডেন্ট ও দলের প্রতি অনুগত থেকে সব সময় কাজ করেছেন। তাকে অন্যরা প্রেসিডেন্ট প্রার্থীর জন্য চিন্তা করলেও তিনি  বিতর্কে বাইডেনের পারফরম্যান্সকে সমর্থন করেছেন। প্রেসিডেন্ট ধীরে বিতর্ক শুরু করলেও ট্রাম্পের চেয়ে আরও বেশি যুক্তিনির্ভর ছিলেন বলে মনে করেন হ্যারিস।  

হ্যারি অবশ্য বলেছেন, ‘জো বাইডেনই আমাদের মনোনীত প্রার্থী। আমরা একবার ট্রাম্পকে পরাজিত করেছি এবং আবারও পরাজিত করতে যাচ্ছি। জো বাইডেনের রানিং মেট হতে পেরে আমি গর্বিত। ’

জুলাই মাসজুড়ে কৃষ্ণাঙ্গ ভোটার, নারী এবং তরুণদের সঙ্গে যুক্ত থাকতে হ্যারিসকে মোতায়েন করার পরিকল্পনা করেছিল হোয়াইট হাউস। তার প্রথম কাজ করার কথা নিউ অরলিন্সের এসন্স ফেস্টিভ্যালের একটি প্যানেল।

মিশিগানের গভর্নর গ্রেচেন হুইটমার

গ্রেচেন হুইটমার মিশিগানের দুই মেয়াদি গভর্নর। তিনিও বেশ জনপ্রিয় মিডওয়েস্ট ডেমোক্র্যাট। ২০২৮ সালে তিনি প্রেসিডেন্ট পদের জন্য লড়বেন বলে অনেকে অনুমান করছেন।

হুইটমার অবশ্য অতীতে বাইডেনের পক্ষে প্রচারণা চালিয়েছেন এবং তিনি তার রাজনৈতিক ইচ্ছার কথা নির্দিধায় জানিয়েছেন। তিনি নিউইয়র্ক টাইমসকে জানান, তিনি ২০২৮ সালে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডেমোক্র্যাটিক প্রার্থী হতে চান।  

ক্যালিফোর্নিয়ার গভর্নর গ্যাভিন নিউজম

ক্যালিফোর্নিয়ার গভর্নর গ্যাভিন নিউজম বাইডেন প্রশাসনের খুবই অনুরক্ত। তিনি প্রায়শই বিভিন্ন গণমাধ্যমে উপস্থিত হয়ে বাইডেনের প্রশংসা করে থাকেন। তিনি আপাতত বাইডেনের পক্ষেই থাকছেন বলে জানিয়েছেন। তবে ক্রমবর্ধমান তার গুরুত্ব বাড়ছে।  

পরিবহন সচিব পিট বুটিগিগ

পিট বুটিগিগকে বাইডেনের একজন প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে মনে করা হচ্ছে। আগে থেকেই তার প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হওয়ার আকাঙ্ক্ষা রয়েছে। ২০২০ সালের তিনি প্রেসিডেন্ট প্রার্থীর জন্য প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন। তবে তিনি বাইডেন প্রশাসনের সঙ্গে সবসময় ভালোভাবে যোগাযোগ রাখেন।  

পেনসিলভানিয়ার গভর্নর জোশ শাপিরো

জো বাইডেনের উত্তরসূরি আসার চিন্তা আছে জোশ শাপিরো। ফিলাডেলফিয়া হাইওয়েতে একটি ধসে পড়া সেতু দ্রুত পুনর্নির্মাণের পরে তিনি পত্রিকায় শিরোনাম হন। প্রথম মেয়াদের গভর্নরের জন্য এটি ছিল একটা বড় বিজয়। ২০২৮ সালে তিনি প্রেসিডেন্ট প্রার্থীর জন্য লড়তে পারেন বলে মনে করা হচ্ছে।  

ইলিনয়ের গভর্নর জেবি প্রিটজকার

সম্প্রতি জেবি প্রিটজকার ট্রাম্পের বিরুদ্ধে বাইডেনকে রক্ষায় বেশ কাজ করেছেন এবং নিজেকে জনপ্রিয় করে তুলেছেন। তিনি বিতর্কের পর ট্রাম্পকে ‘মিথ্যাবাদী; বলে অভিহিত করেছেন। সম্প্রতি ডেমোক্র্যাট দলে জেবি প্রিটজকার নিজের গুরুত্বপূর্ণ অবস্থান করে নিয়েছেন।  

অন্যান্য সম্ভাব্য প্রার্থী

ডেমোক্র্যাট দল থেকে প্রেসিডেন্ট হওয়ার পাইপ লাইনে আরও রয়েছেন কেনটাকি গভর্নর অ্যান্ডি বেশিয়ার। তিনি একটি রক্ষণশীল রাজ্যে দুই মেয়াদি গভর্নর। গত বছর তার পুনর্নির্বাচনের পর থেকে ক্রমবর্ধমান মনোযোগ আকর্শন করেন।  

তালিকায় আও আছেন মেরিল্যান্ডের গভর্নর ওয়েস মুর, সিনেটর অ্যামি ক্লোবুচার, কোরি বুকার, জর্জিয়ার সিনেটর রাফেল ওয়ার্নক।

যদিও গত মঙ্গলবার প্রকাশিত রয়টার্স আইপিএসওএস জরিপে দেখা গেছে, নভেম্বরে ট্রাম্পকে পরাজিত করতে পারা একমাত্র ব্যক্তি হলেন মিশেল ওবামা। যদিও সাবেক এই ফার্স্ট লেডি বারবার বলেছেন, তার প্রেসিডেন্ট হওয়ার আকাঙ্ক্ষা নেই।
news24bd.tv/আইএএম