৮ বছর পর ভারতকে হারিয়ে উচ্ছ্বসিত জিম্বাবুয়ে

৮ বছর পর ভারতকে হারিয়ে উচ্ছ্বসিত জিম্বাবুয়ে

অনলাইন ডেস্ক

বিশ্বকাপে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পর মূল দলকে বিশ্রাম দিয়েছে ভারত। তাই অন্য সারির দল নিয়ে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে খেলতে নামে ভারত। সর্বশেষ ২০১৬ সালে ভারতের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টিতে জয় পেয়েছিলো জিম্বাবুয়ে। এরপর আর কখনো জয় পাওয়া হয়নি সিকান্দার রাজাদের।

সেই দীর্ঘ ৮ বছরের অপেক্ষা ফুরিয়েছে জিম্বাবুয়ের।

সর্বশেষ ভারতের বিপক্ষে যে মাঠে জয় পেয়েছিল জিম্বাবুয়ে সেই হারারেতে শনিবার (৬ জুলাই) বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ভারতকে হারালো তারা। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে সুযোগ না পাওয়া জিম্বাবুয়ের ১৩ রানের জয়টি ভারতের বিপক্ষে যেকোনো ফরম্যাটে তাদের তৃতীয় জয়। ২০১৫ সালে প্রথম জয় পেয়েছিলো তারা।

জিম্বাবুয়ের দেওয়া ১১৬ রানের লক্ষ্য ভারতের জন্য ছেলেখেলা হওয়ারই কথা ছিলো। কিন্তু  রান তাড়া করতে নেমে প্রথম ওভার থেকেই বিপদে পড়তে থাকে ভারত। অভিষেক ম্যাচ খেলতে নামা অভিষেক শর্মা শূন্য রানে ফেরেন সাজঘরে। তার মতো এ ম্যাচ দিয়েই আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে অভিষেক হওয়া রিয়ান পরাগ ২ রান করে এবং ধ্রুব জুরেল ৬ রান করে সাজঘরে ফেরেন।

ব্যাটারদের ব্যর্থতায় একটা সময় ৪৭ রানে ৬ উইকেট হারিয়ে বড় হারের শঙ্কায় ছিল ভারত। তবে সাতে নামে এক প্রান্ত আগলে রেখে ভারতকে ম্যাচ জয়ের আশা দেখাচ্ছিলেন ওয়াশিংটন ‍সুন্দর। কিন্তু শেষ ওভারে ১৬ রানের সমীকরণ আর মেলাতে পারেননি তিনি। উল্টো টেন্ডাই চাতারার পঞ্চম বলে তার ২৭ রানের ইনিংস থেমে ভারতকে অলআউট করে ১৩ রানের জয় পায় জিম্বাবুয়ে।

অলরাউন্ডার ওয়াশিংটনের আগে ৩১ রানের ইনিংস খেলে শুরুর দিকের কিছুটা ধাক্কা সামাল দিয়েছিলেন অধিনায়ক শুবমান গিলও। তবে দুজনের কারো ইনিংসই কাজে আসেনি ভারতের। কিন্তু বিরাট কোহলি-রোহিত শর্মার উত্তরসূরিরা দলকে হতাশাই উপহার দিলেন। সেটিও আবার বিশ্বকাপে সুযোগ না পাওয়া জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে।

আজ ভারতের বিপক্ষে জয়ের ম্যাচে জিম্বাবুয়ের সব বোলারই কমপক্ষে একটি করে উইকেট নিয়েছেন। তবে ৩ টি করে উইকেট নিয়ে স্বাগতিকদের জয়ের কাজটা করেছেন চাতারা ও অধিনায়ক সিকান্দার রাজা।

এর আগে টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে ১১৫ রানের বেশি করতে পারেনি জিম্বাবুয়ে। স্বাগতিকদের অল্প রানে আটকাতে দুর্দান্ত বোলিং করেছেন রবি বিষ্ণোই। ১৩ রানে ৪ উইকেট নিয়ে জিম্বাবুয়ের ব্যাটিং অর্ডার ধসিয়ে দিয়েছেন এই লেগ স্পিনার। ২ ওভার আবার মেডেনও দিয়েছেন তিনি। তবে রানে হারায় তার দুর্দান্ত বোলিং কোনো কাজে আসেনি ভারতের। জিম্বাবুয়ের হয়ে চার ব্যাটার বিশোর্ধ্ব ইনিংস খেললেও কেউই অর্ধশতক ছুঁতে পারেনি কেউই। জিম্বাবুয়ের হয়ে সর্বোচ্চ ২৯ রান করেছেন ক্লাইভ মাদান্দে।

৩ উইকেট নিয়ে এবং ১৭ রান করে ম্যাচসেরা হয়েছেন জিম্বাবুয়ের কাপ্তান সিকান্দার রাজা।

news24bd.tv/SC