নড়াইলে ডাকাতি করতে গিয়ে হাতেনাতে আটক ৬

নড়াইলে ডাকাতি করতে গিয়ে হাতেনাতে আটক ৬

নড়াইল প্রতিনিধি:

নড়াইলে ডাকাতি করতে গিয়ে ৬ আন্তঃজেলা ডাকাত গ্রেপ্তার হয়েছে। ডাকাতদের নিকট থেকে উদ্ধার করা হয়েছে ডাকাতিতে ব্যবহৃত বিভিন্ন প্রকার দেশীয় অস্ত্রপাতি।  

রোববার (৭ জুলাই) দিবাগত রাতে নড়াগাতী থানাধীন চালনা গ্রামের জনৈক গাউসুল আলমের বাড়ি ডাকাতি করতে গেলে পুলিশ তাদের হাতেনাতে ধরে ফেলে। এ সময় তাদের নিকট থেকে ঐ বাড়ির লুণ্ঠিত বেশ কিছু স্বর্ণালংকার উদ্ধার করা হয়।

এ ব্যাপারে সোমবার (৮জুলাই) দুপুরে পুলিশ সুপার মো. মেহেদী হাসান নিজ কার্যালয়ে অয়োজিত প্রেস ব্রিফিং এ জানান, নড়াগাতী এলাকায় মফিজুর রহমান নামে এক কৃষিজীবীর বাড়ি গত ২ জুলাই ডাকাতি সংঘোঠিত হলে পুলিশ তদন্তে নেমে সংঘবদ্ধ এই ডাকাত দলের তথ্য পায়। পরে তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় তাদের কথোপকথন ট্রাক করে ঐ এলাকায় আবারও তাদের একটা ডাকাতি সংঘোঠিত করার পরিকল্পনার ব্যাপারে পুলিশ তথ্য পায়।  

সেই অনুযায়ী পুলিশ অবস্থান নিয়ে রোববার (৭ জুলাই) দিবাগত রাতে চালনা গ্রামের গাউসুল আলমের বাড়ি ডাকাতি করে পালানোর সময় ৬ ডাকাতকে লুন্ঠিত স্বর্ণালংকারসহ ধরে ফেলে। পরে জিজ্ঞাসাবাদে তাদের দেয়া তথ্যমতে গত ২ জুলাই মফিজুর রহমানের বাড়ি থেকে লুটে নেয়া স্বর্ণালংকার মোটরসাইকেল নড়াইলের বড়দিয়া ও গোপালগঞ্জের কাশিয়ানি এলাকা থেকে পুলিশ উদ্ধার করেছে।

 

আটক করা হয়েছে লুটের সোনা কেনাবেচায় জড়িত দুই জনকে। গ্রেপ্তারকৃত ডাকাতরা দীর্ঘদিন যাবত ডাকতিসহ নানা অপরাধের সঙ্গে জড়িত। গ্রেপ্তারকৃতদের মধ্যে খুলনার তেরখাদা উপজেলার নলিয়ার চর গ্রামের মৃত জলিল মোল্যার ছেলে মো. জাকির হোসেন মোল্যা ও একই গ্রামের মৃত তারা ভূঁইয়ার ছেলে গোলাম রসুলের নামে গোপালগঞ্জ, যশোর ও খুলনা জেলায় একাধিক ডাকাতি, চুরি ও অস্ত্র আইনে মামলা রয়েছে বলে জানা গেছে অন্যান্যদের অপরাধের ব্যাপারে অনুসন্ধান চলছে।  

এদিন বিকালে আদালতের মাধ্যমে তাদের জেল হাতে পাঠানো হয়, আসামিদের সঙ্গে আরও কারা জড়িত আছে সেসব বিষয়ে অধিকতর জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রিমান্ডের আবেদন করা হয়েছে।

news24bd.tv/কেআই

এই রকম আরও টপিক

পাঠকপ্রিয়