শুক্রবার, ৩ জুলাই, ২০২০ | আপডেট ২১ মিনিট আগে

প্রধান শিক্ষককে কোপাল সহকারী শিক্ষক

হুমায়ুন কবির সূর্য্য, কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি

প্রধান শিক্ষককে কোপাল সহকারী শিক্ষক

গুরুতর আহত প্রধান শিক্ষক তরিকুল ইসলাম রাসেল

কুড়িগ্রামের ভুরুঙ্গামারীতে সহকারি প্রধান শিক্ষকের পদ না পেয়ে ক্ষিপ্ত হয়ে প্রধান শিক্ষককে কুপিয়েছেন এক সহকারি শিক্ষক।

অভিযুক্ত সহকারি শিক্ষকের নাম এমরান হোসেন বাবলা (৪২)।

এ ঘটনায় প্রধান শিক্ষক তরিকুল ইসলাম রাসেলকে (৪২) গুরুতর আহত অবস্থায় ভুরুঙ্গামারী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে অবস্থার অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

শনিবার দুপুরে উপজেলার ছিট পাইকেরছড়া নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে।

প্রধান শিক্ষকের চাচাতো ভাই সেলিম জানান, ছিট পাইকেরছড়া নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারি প্রধান শিক্ষকের পদ নিয়ে প্রধান শিক্ষকের সঙ্গে সহকারি শিক্ষক এমরান হোসেন বাবলার দ্বন্দ্ব চলে আসছিল। এরই জের ধরে শনিবার দুপুরে বাবলা প্রধান শিক্ষককে বিদ্যালয়ের ছাদে ডেকে নিয়ে তার উপর অতর্কিত হামলা চালায়। এসময় তার মাথায় দা দিয়ে এলোপাতাড়ি কোপানো হয়। এতে তরিকুল ইসলামের মাথায় চারটি গভীর ক্ষতের সৃষ্টি হয়। দায়ের কোপ থেকে মাথা বাঁচাতে হাত দিয়ে দা ধরার চেষ্টা করলে তার ডান হাতের অনামিকা ও কনিষ্ঠা আঙ্গুল এবং বাম হাতের তর্জনী ও মধ্যমা আঙ্গুল বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়।

এসময় প্রধান শিক্ষকের চিৎকারে এলাকাবাসী এসে এমরান হোসেন বাবলাকে আটক করে।

তরিকুল ইসলাম রাসেল ছিট পাইকেরছড়া গ্রামের মৃত আব্দুল কাদের সরকারের ছেলে। হামলাকারী এমরান হোসেন বাবলা নাগেশ্বরী উপজেলার রামখানা ইউনিয়নের হাতিরভিটা গ্রামের মৃত সেকেন্দার মোল্লার ছেলে।

ভূরুঙ্গামারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ডা. নাছিম তানভীর জানান, তরিকুল ইসলাম রাসেলের শারীরিক অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

ভূরুঙ্গামারী থানার অফিসার ইনচার্জ ইমতিয়াজ কবির জানান, হামলাকারীকে আটক করা হয়েছে।

(নিউজ টোয়েন্টিফোর/সূর্য্য/তৌহিদ)

মন্তব্য