শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | আপডেট ২১ মিনিট আগে

সিগারেট ধরাতে দিয়াশলাই না দেওয়ায়...

নিজস্ব প্রতিবেক, নরসিংদী

সিগারেট ধরাতে দিয়াশলাই না দেওয়ায়...

লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলায় এক ইউনিয়ন ছাত্রলীগ সভাপতিকে সিগারেট ধরানোর জন্য দিয়াশলাই না দেওয়ায় ওই ইউনিয়নের দুই ইউপি সদস্য ও এক গ্রাম পুলিশকে পিটিয়ে আহত করেছেন ছাত্রলীগ সভাপতি ও তার ভাই।

বুধবার দুপুরে পাটিকাপাড়া ইউনিয়নের শিমুলতলা ও হাতীবান্ধা হাসপাতালে পৃথকভাবে এ হামলা চালায় ওই ছাত্রলীগ নেতা ও তার ভাই। এ ঘটনায় ছাত্রলীগ সভাপতি বাঁধন পাটোয়ারী ও তার ভাই সাগরসহ চারজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

প্রতক্ষ্যদর্শীরা জানায়, গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ওই উপজেলার পারুলিয়া বাজারে ছাত্রলীগ সভাপতি বাঁধন পাটোয়ারী সিগারেট ধরানোর জন্য পাটিকাপাড়া ইউনিয়নের গ্রাম পুলিশ নুর মোহাম্মদের নাতি আরাফাতের কাছে দিয়াশলাই চায়। এ সময় আরাফাত দিয়াশলাই না দেওয়ায় তাকে মারধর করে বাঁধন পাটোয়ারী। পরে গ্রাম পুলিশ নুর মোহাম্মদ ও তার ভাই পাটিকাপাড়া ইউপি সদস্য আতিয়ার রহমান বাজারে এসে বাঁধন পাটোয়ারীকে গালিগালাজ করেন।

এ ঘটনার জের ধরে বাঁধন পাটোয়ারী ও তার ভাই সাগর পাটোয়ারী বুধবার সকালে পারুলিয়া শিমুলতলা এলাকায় ইউপি সদস্য আতিয়ার রহমান ও গ্রাম পুলিশ নুর মোহাম্মদের উপর হামলা চালায়। স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে হাতীবান্ধা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও হামলা চালায় বাঁধন পাটোয়ারী ও তার ভাই। এ সময় অপর ইউপি সদস্য আবুল কালাম ও বাঁধন পাটোয়ারীর বাবা লিচু মিয়াসহ তিনজন আহত হয়। আহত গ্রাম পুলিশ নুর মোহাম্মদকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

খবর পেয়ে হাতীবান্ধা থানা-পুলিশ হাসপাতালে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এ সময় হাতীবান্ধা থানায় উপ-সহকারী পরিদর্শক নারায়ন চন্দ্রও আহত হয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ছাত্রলীগ সভাপতি বাঁধন পাটোয়ারী, তার ভাই সাগর পাটোয়ারীসহ চারজনকে গ্রেপ্তার করে।

লালমনিরহাট সহকারী পুলিশ সুপার (বি-সার্কেল) তাপস সরকার এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ঘটনাটি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

(নিউজ টোয়েন্টিফোর/মানিক/তৌহিদ)

মন্তব্য