বুধবার, ২০ নভেম্বর, ২০১৯ | আপডেট ১০ মিনিট আগে

‘রনির মতো অন্যরা এলে রিফাত বাঁচতো’

নিউজ টোয়েন্টিফোর ডেস্ক

‘রনির মতো অন্যরা এলে রিফাত বাঁচতো’

রিফাতের ওপর হামলার সময় বরগুনা সরকারি কলেজ ছাত্রদলের সভাপতি নুরুল ইসলাম রনি হামলাকারীদের শান্ত করার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়েছেন। তিনি একজনকে থামাতে গেলে আরেকজন পেছন থেকে রিফাতকে কোপাতো। সেই লোমহর্ষক ঘটনার কথা কাঁদতে কাঁদতে বললেন রিফাতের হতভাগা স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নি।

আরও পড়ুন: ‘এগিয়ে গিয়েও রিফাতকে বাঁচাতে পারলাম না’

বৃহস্পতিবার (২৭ জুন) বিকেলে রিফাতের নিজ বাড়িতে তিনি বলেন, ‘রনির ভাইয়ের মতো আরও পাঁচজন এগিয়ে এলে আমার স্বামী রিফাত শরীফ বাঁচতো’।

আরও পড়ুন: বরগুনার ঘটনায় সীমান্তে রেড অ্যালার্ট

উল্লেখ্য, রিফাত শরীফ গতকাল সকাল সাড়ে ১০টার দিকে তাঁর স্ত্রী আয়েশা আক্তারকে বরগুনা সরকারি কলেজে নিয়ে যান। কলেজ থেকে ফেরার পথে মূল ফটকে ক্যালিক্স কিন্ডার গার্টেনের সামনে নয়ন, রিফাত ফরাজীসহ আরও দুই যুবক রিফাত শরীফের ওপর হামলা চালান। এ সময় তাঁরা ধারালো অস্ত্র দিয়ে রিফাত শরীফকে এলোপাতাড়ি কোপাতে থাকেন। রিফাত শরীফের স্ত্রী আয়েশা দুর্বৃত্তদের নিবৃত্ত করার চেষ্টা করেন। কিন্তু কিছুতেই হামলাকারীদের থামানো যায়নি। তাঁরা রিফাত শরীফকে উপর্যুপরি কুপিয়ে রক্তাক্ত করে চলে যায়। পরে স্থানীয়রা রিফাত শরীফকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যায়। পরে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানে রিফাত শরীফের মৃত্যু হয়।

আরও পড়ুন: উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ করায় তরুণীকে কুপিয়ে হত্যা

এই হামলার ভিডিওচিত্র সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। নিহত রিফাত শরীফ সদর উপজেলার বুড়িরচর ইউনিয়নের দুলাল শরীফের ছেলে।

অভিযোগ ওঠা যুবকদের মধ্যে নয়ন ও রিফাত ফরাজী নামের দুজনের নাম বলতে পেরেছেন নিহত যুবকের বন্ধুরা।

আরও পড়ুন: বরগুনার ঘটনায় সাংবাদিকের আত্মহত্যার ঘোষণা

(নিউজ টোয়েন্টিফোর/তৌহিদ)

মন্তব্য