বুধবার, ২৩ অক্টোবর, ২০১৯ | আপডেট ৩১ মিনিট আগে

‘বাংলাদেশ একটা কারাগার’

নিউজ টোয়েন্টিফোর ডেস্ক

‘বাংলাদেশ একটা কারাগার’

সরকারের ইচ্ছাতেই খালেদা জিয়ার জামিন আটকে আছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি গোটা বাংলাদেশকে একটা বিরাট কারাগার বলেও মন্তব্য করেন।

শনিবার (৬ জুলাই) দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপি আয়োজিত এক মানববন্ধন কর্মসূচিতে তিনি এ কথা বলেন। বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ও যুগ্ম মহাসচিব হাবিব-উন-নবী-খান সোহেলসহ সকল নেতাদের নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে এ কর্মসূচি ডাকা হয়।

সরকার ইচ্ছে করেই খালেদা জিয়ার জামিন আটকে রেখেছে দাবি করেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। 

বলেন, খালেদা জিয়াকে মিথ্যা ও সাজানো মামলায় কারাগারে আটকে রাখা হয়েছে। একই ধরনের মামলায় আওয়ামী লীগের নেতা ও অনুসারীরা জামিনে রয়েছেন কিন্তু আমাদের নেত্রী আছেন জেলে। এটা সম্পূর্ণ বেআইনি ও অবৈধ। এই সরকার ইচ্ছে করেই খালেদা জিয়ার জামিন আটকে রেখেছে।

‘খালেদা জিয়ার মুক্তি আজকে গণদাবিতে পরিণত হয়েছে। কারণ, সবাই তার মুক্তি চায়। তাই, গণবিরোধী সরকার, যারা মানুষের অধিকার কেড়ে নিয়েছে, তাদের সরাতে হলে জনগণের ঐক্যের কোনো বিকল্প নেই। সেই ঐক্য আমাদেরকে সৃষ্টি করতে হবে’ বলেন ফখরুল।

ফখরুল বলেন, বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হলে আমাদের অবশ্যই গণঐক্য ও জনগণের ঐক্য তৈরি করতে হবে।

আর সমস্ত রাজনৈতিক দল ও জনগণকে ঐক্যবদ্ধ করে একটা গণ জোয়ারের মধ্যে দিয়ে এই সরকারকে পরাজয় মানতে বাধ্য করা হবে বলেও মন্তব্য করেন ফখরুল।

সারাদেশে ক্ষমতাসীনরা নৈরাজ্য সৃষ্টি করছে। বাংলাদেশ একটা বিরাট কারাগারে পরিণত হয়েছে মন্তব্য করে  ফখরুল বলেন, আজকে সরকার বিএনপি চেয়ারপারসনকে কারাগারে আটক রেখে গণতন্ত্রকে আটক রাখতে চায়। কারণ খালেদা জিয়া গণতন্ত্রের প্রতীক। একদলীয় শাসন ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠিত করার জন্য সরকার একে একে সমস্ত গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানগুলোকে ধ্বংস করে দিয়েছে।

গতকাল বিএনপির মহসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর রাজধানীতে এটি মানববন্ধনে বলেছেন, দেশের বিচার-ব্যবস্থায় স্বাধীনতা নেই। সব আওয়ামী লীগ নেতার হাতে চলে গেছে। রাজনৈতিক প্রতিহিংসার মধ্যমে নিম্ন আদালতে একটি রায় পাঁচ বছর থেকে ১০ বছর বাড়ানো হয়েছে।

(নিউজ টোয়েন্টিফোর/তৌহিদ)

মন্তব্য