শুক্রবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০১৯ | আপডেট ০২ ঘণ্টা ১৭ মিনিট আগে

চকলেটের লোভ দেখিয়ে ৬ বছরের শিশুকে ধর্ষণ

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি

চকলেটের লোভ দেখিয়ে ৬ বছরের শিশুকে ধর্ষণ

চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার ছয় বছরের এক শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। চকলেট দেওয়ার লোভ দেখিয়ে বুধবার দুুপুরে ওই শিশুকে ধর্ষণ করা হয়। ঘটনার পর থেকেই পলাতক রয়েছেন অভিযুক্ত পঞ্চাশোর্ধ আব্দুল মালেক। গুরুতর জখম অবস্থায় ওই শিশুকে বৃহস্পতিবার রাতে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, উপজেলার পদ্মবিলা ইউনিয়নে শ্বশুরবাড়িতে থাকেন আবদুল মালেক (৫৫) নামে এক ব্যক্তি। দরিদ্র ভ্যান চালকের ওই শিশু কন্যা বুধবার দুুপুরে বাড়ির পাশে খেলা করছিল। এ সময় আব্দুল মালেক ওই শিশুকে চকলেট দেওয়ার লোভ দেখিয়ে একটি ঘরে নিয়ে ধর্ষণ করে। পরে বিষয়টি কাউকে না জানাতে শিশুটিকে ভয়ভীতি দেখান তিনি।

নির্যাতিতা শিশুর মা জানান, সেদিন দুপুরে শিশুটিকে গোসল করাতে গিয়ে তার দাদি রক্তের দাগ দেখতে পান। শিশুটির কাছে জানতে চাইলেও ভয়ে বাড়ির কাউকে কিছু বলে সে। উপর্যপুরি ধর্ষণের কারণে ঘটনার দিন সন্ধ্যায় শিশুটি অসুস্থ হয়ে পড়ে। পরে সে তার মামীর কাছে ঘটনার বর্ণনা দেয়। সকালে বিষয়টি জানাজানি হলে পালিয়ে যায় আব্দুল মালেক। অবস্থার অবনতি হলে বৃহস্পতিবার রাত আটটার দিকে ওই শিশুকে ভর্তি করা হয় চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে।

খবর পেয়ে রাতেই চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ছুটে যান পুলিশ সুপার মাহবুবুর রহমান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কানাই লাল সরকার, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (হেড কোয়ার্টার) আবুল বাশার ও চুয়াডাঙ্গা পৌর মেয়র ওবাইদুর রহমান চৌধুরী জিপু।

পুলিশ সুপার মো.মাহবুবুর রহমান জানান, শিশুটিকে সদর হাসপাতালে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। পলাতক আবদুল মালেককে ধরতে চেষ্টা চালাচ্ছে পুলিশ।

আরও পড়ুন: ছেলের অনুপস্থিতিতে পুত্রবধূকে ধর্ষণ!

(নিউজ টোয়েন্টিফোর/জামান/তৌহিদ)

মন্তব্য