শুক্রবার, ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৯ | আপডেট ৪০ মিনিট আগে

কমতে শুরু করেছে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা

নিউজ টোয়েন্টিফোর ডেস্ক

কমতে শুরু করেছে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা

স্বাস্থ্য অধিদফতরের রিপোর্ট বলছে, বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা থেকে শুক্রবার সকাল ৮টা পর্যন্ত ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত হয়ে নতুন আরও ২০০২ জন ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশনস সেন্টার ও কন্ট্রোল রুম জানিয়েছে, রাজধানী ঢাকার চেয়ে অন্যান্য অঞ্চলে ভর্তি হওয়া রোগীর সংখ্যা বেশি। ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে ঢাকায় ৯৪৭ জন এবং ঢাকার বাইরে ১০৫৫ জন রোগী বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।

তবে গত চারদিনের তুলনায় ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হওয়া রোগীর সংখ্যাও কমছে- এমনটাই দেখা গেছে স্বাস্থ্য অধিদফতরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশনস সেন্টার ও কন্ট্রোল রুমের রিপোর্টে।

বুধবার সকাল ৮টা থেকে বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় ২ হাজার ৩২৬ জন ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী হাসপাতালে ভর্তি হন। এর মধ্যে ঢাকায় ভর্তি হন ১ হাজার ১৫৯ জন এবং ঢাকার বাইরে ১ হাজার ১৬৭ জন।

এ ছাড়া মঙ্গলবার সকাল ৮টা থেকে বুধবার সকাল ৮টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় এ সংখ্যা ছিল ২ হাজার ৪২৮। সোমবার সকাল ৮টা থেকে মঙ্গলবার সকাল ৮টা পর্যন্ত ছিল ২ হাজার ৩৪৮ জন। আর রোববার সকাল ৮টা থেকে সোমবার সকাল ৮টা পর্যন্ত ডেঙ্গুতে আক্রান্ত ভর্তি রোগীর সংখ্যা ছিল ২ হাজার ৮৫ জন।

সরকারি হিসাব অনুযায়ী, চলতি মাসের ৮ দিনে এ রোগে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা জুলাইর চেয়ে বেশি। আগস্টের শুরু থেকে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত ১৮ হাজার ২০৫ জন ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছেন। আর জুলাইয়ে ১৬ হাজার ২৫৩ জন ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছিলেন। চলতি মাসে প্রতি ঘণ্টায় ৯৫ জন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। আর জুলাইয়ে প্রতি ঘণ্টায় ২৩ জন ভর্তি হয়েছিলেন।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশনস সেন্টারের হিসাব অনুযায়ী, চলতি বছরের ১ জানুয়ারি থেকে ৮ আগস্ট পর্যন্ত ৩৪ হাজার ৬৬৬ জন ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত হয়েছেন।

একই সময়ে আক্রান্তদের মধ্যে চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি ফিরেছেন ২৫ হাজার ৮৭২ জন। বর্তমানে বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি আছেন ৮ হাজার ৭৬৫ জন।

এর মধ্যে ঢাকার ৪০টি সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি আছেন ৫ হাজার ১৪০ জন। অন্য বিভাগে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা ৩ হাজার ৬২৫ জন। সরকারি হিসাবে এ পর্যন্ত এ রোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৪৯ জন। কিন্তু বেসরকারি হিসাবে এটি আরও বেশি।


(নিউজ টোয়েন্টিফোর/কামরুল)

মন্তব্য