রক্তের চিহ্ন দেখে যুবকের দেহ ও মাথা উদ্ধার

নিউজ টোয়েন্টিফোর ডেস্ক

রক্তের চিহ্ন দেখে যুবকের দেহ ও মাথা উদ্ধার

প্রথমে দেহ পরে মাথা উদ্ধার

রক্তের চিহ্ন দেখে নিহতের বাড়ি থেকে প্রায় ৩০০ মিটার দূর থেকে মাথাবিহীন দেহ মাটি খুঁড়ে উদ্ধার করল পুলিশ। পরে প্রায় ৮০০ মিটার দূর থেকে মাথা মাটি খুঁড়ে উদ্ধার করা হয়।

মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে দিনাজপুরের খানসামা উপজেলার আলোকঝাড়ী ইউনিয়নের শুশুলী গ্রাম থেকে এ মরদেহ উদ্ধার করা হয়। 

হতভাগা ওই যুবকের নাম গোলাপ হোসেন (২৭)। তিনি হোসেন খানসামা উপজেলার আলোকঝাড়ী ইউনিয়নের শুশুলী গ্রামের মৃত আতিক ইসলামের ছেলে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, সোমবার ঈদের দিন খাবার খেয়ে গোলাপ হোসেন নিজ কক্ষে ঘুমিয়ে পড়েন। পরের দিন মঙ্গলবার সকালে বাড়ির পার্শ্বে স্থানীয় লোকজন রক্ত দেখে ইউপি সদস্য ও পুলিশকে খবর দেয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে রক্তের চিহ্ন দেখে দেখে নিহত গোলাপের বাড়ি থেকে প্রায় ৩০০ মিটার দূরে তার মাথাবিহীন দেহ মাটি খুঁড়ে উদ্ধার করে। এরপর প্রায় ৮০০ মিটার দূরে গোলাপের মাথা মাটির নিচ থেকে উদ্ধার করে পুলিশ।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে খানসামার থানার ওসি (তদন্ত) এসএম মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, খবর পেয়ে নিহতের শয়নকক্ষসহ বিভিন্ন স্থান থেকে আলামত উদ্ধার করা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে তাকে নিজ শয়নকক্ষেই গলা কেটে হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিহতের সৎ মা ও সৎ ভাইসহ তিনজনকে থানায় আনা হয়েছে। 

লাশের সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করে ময়নাতদন্তের জন্য এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

(নিউজ টোয়েন্টিফোর/তৌহিদ)

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

হাত-পা বাঁধা অবস্থায় মাদ্রাসা শিক্ষকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

শেখ রুহুল আমিন, ঝিনাইদহ:

হাত-পা বাঁধা অবস্থায় মাদ্রাসা শিক্ষকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

ঝিনাইদহে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় এক মাদ্রাসা শিক্ষকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। আজ সকালে সদর উপজেলার বাজারগোপালপুর কলুপাড়া একটি ভাড়াবাসা থেকে লাশ উদ্ধার করা হয়।

পুলিশ জানায়, বাজারগোপালপুর বড়বাড়ি দাখিল মাদ্রাসার সুপার ইসমাইল হোসেন সুজনের ঘরে হাত-পা বাধা অবস্থায় ঝুলন্ত লাশ দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেয় পরিবারের লোকজন। পরে পুলিশ এসে তার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠায়। 


ইয়াবার টাকা না পেয়ে কাঁচি দিয়ে মাকে হত্যা

৯৯৯ এ ফোন এক ঘন্টায় চোরাই মোটরসাইকেল উদ্ধার

ঠাকুরগাঁওয়ে ব্যাংক থেকে বয়স্ক ভাতার টাকা উধাও

আল্লাহর কাছে যে তিনটি কাজ বেশি প্রিয়


হাত-পা বেঁধে ঝুলিয়ে হত্যা করা হয়েছে বলে ধারণা পরিবার ও স্থানীয়দের। নিহত সুজন সদর উপজেলার হলিধানী গ্রামের আবুল খায়েরের ছেলে। গত ৪ বছর ধরে গ্রামের শরিফুল ইসলামের বাড়িতে স্ত্রী সন্তান নিয়ে তিনি বসবাস করে আসছিল।

news24bd.tv / কামরুল 

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

চলন্ত বাস থেকে লাফ দিয়ে নিজেকে রক্ষা করলেন কলেজছাত্রী

অনলাইন ডেস্ক

চলন্ত বাস থেকে লাফ দিয়ে নিজেকে রক্ষা করলেন কলেজছাত্রী

চলন্ত বাসে এক কলেজছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন বাসের চালক ও হেলপার। এক পর্যায়ে ওই ছাত্রী চলন্ত বাস থেকে লাফ দিয়ে নিজেকে রক্ষা করেন। হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলা সদরে এ ঘটনা ঘটেছে। রোববার দুপুরে নবীগঞ্জ শহরের ওসমানী রোড থেকে দুইজনকে আটক করা হয়েছে। 

কলেজছাত্রীকে শ্নীলতাহানির ঘটনায় লাকী পরিবহনের বাসচালক রিয়াদ মিয়া ও তার সহকারী ইব্রাহিম খলিল রুবেলকে ধরে পিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেছেন স্থানীয় জনতা।

নবীগঞ্জ থানার ওসি ডালিম আহমেদ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

স্থানীয়রা জানান, শনিবার সকালে ওই শিক্ষার্থী কলেজে যাওয়ার উদ্দেশে নবীগঞ্জ-হবিগঞ্জ সড়কের তিমিরপুর এলাকায় দাঁড়িয়ে ছিলেন। এ সময় আজমিরীগঞ্জ-বানিয়াচং-হবিগঞ্জ-ঢাকা সড়কে চলাচলকারী লাকী পরিবহনের বাসটিতে ওঠেন ওই কলেজছাত্রী।


ইয়াবার টাকা না পেয়ে কাঁচি দিয়ে মাকে হত্যা

৯৯৯ এ ফোন এক ঘন্টায় চোরাই মোটরসাইকেল উদ্ধার

ঠাকুরগাঁওয়ে ব্যাংক থেকে বয়স্ক ভাতার টাকা উধাও

আল্লাহর কাছে যে তিনটি কাজ বেশি প্রিয়


বাসটিতে কোনো যাত্রী না থাকায় ওই শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের চেষ্টা করে চালক ও হেলপার। একপর্যায়ে নিজেকে রক্ষা করতে চলন্ত বাস থেকে লাফ দেন ওই শিক্ষার্থী। পরে বাড়িতে এসে পরিবারের সদস্যদের বিষয়টি জানান।

রোববার দুপুরে নবীগঞ্জ শহরের ওসমানী রোডের আরজু হোটেলের সামনে স্থানীয়রা ওই বাসসহ চালক ও হেলপারকে আটক করেন এবং মারধর করে পুলিশে সোপর্দ করেন। 

news24bd.tv / কামরুল 

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

ইয়াবার টাকা না পেয়ে কাঁচি দিয়ে মাকে হত্যা

অনলাইন ডেস্ক

ইয়াবার টাকা না পেয়ে কাঁচি দিয়ে মাকে হত্যা

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুরে মাদক সেবনের টাকা না দেওয়ায় মেয়ের কাঁচির আঘাতে মা রহিমা বেগম (৫০) নিহত হয়েছেন। রোববার সকালে উপজেলার আইয়ূবপুর ইউনিয়নের দশআনী গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।

নিহতের স্বামীর নাম বাবুল মিয়া। স্বামীর বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা আখাউড়া উপজেলার দেবগ্রামে হলেও বিয়ের পর থেকে তিনি বাবার বাড়িতেই থাকতেন। এ ঘটনায় ঘাতক মেয়ে পাপিয়া বেগমকে (২৭) আটক করেছে পুলিশ।

এলাকাবাসী জানায়, আইয়ুবপুর ইউনিয়নের দশআনী গ্রামের করিম মিয়ার মেয়ে রহিমা বেগমের সঙ্গে বিয়ে হয় আখাউড়া উপজেলার দেবগ্রাম বাবুল মিয়ার সাথে। বিয়ের পর থেকে স্বামীসহ বাবার বাড়িতে বসবাস করছিলেন তিনি। তাদের দুই মেয়ে পাপিয়া ও পপি। 


গুলি ছুড়ে ইয়েমেনের ক্ষেপণাস্ত্র আকাশেই ধ্বংস করেছে সৌদি

জানা গেল আসল রহস্য, ১৩-১৪ বছরের দুই বোনের সঙ্গেই শরীরিক মেলামেশা ছিল তার

আবাহনীকে ৪-১ গোলে উড়িয়ে দিল বসুন্ধরা কিংস

৬৬ নারীকে ধর্ষণ


বড় মেয়ে পাপিয়া বেগম (২৭) প্রথম স্বামীর সঙ্গে বিচ্ছেদের পর দুই বছর আগে আইয়ুবপুর গ্রামের ইসহাক মিয়া নামের এক যুবককে বিয়ে করেন। কিন্তু ইসহাক মিয়ার পরিবার এই বিয়ে মেনে না নেওয়ায় তিনিও পাপিয়ার বাবার বাড়িতে অবস্থান করছিলেন। পাপিয়া মাদকাসক্ত ছিলেন। মাদকের টাকার জন্য পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কলহ লেগেই থাকতো পাপিয়ার। তার স্বামী ইসহাকও মাদকাসক্ত। 

পুলিশ জানায়, রোববার সকাল ছয়টার দিকে মার কাছে ইয়াবা কেনার জন্য টাকা চান পাপিয়া বেগম। এ নিয়ে মা-মেয়ের মধ্যে কথা কাটাকাটি শুরু হয়। এক পর্যায়ে পাপিয়া মায়ের পেটে কাঁচি দিয়ে আঘাত করেন। এতে তিনি গুরুতর আহত হলে তাকে প্রথমে দশআনী বাজারে বাবুল মিয়ার ফার্মেসিতে নেওয়া হয়। পরে তাকে বাঞ্ছারামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

নিহত রহিমা বেগমের ছোট মেয়ে পপি বলেন, সকালে আমরা ঘুমিয়ে ছিলাম। হঠাৎ শব্দ শুনে উঠে দেখি পাপিয়া মার পেটে কাঁচি ঢুকিয়ে দিয়েছে। এ সময় আমরা মাকে বাবুল ডাক্তারের দোকানে নিয়ে যাই। সেখানে ব্যান্ডেজ করে বাড়িতে নিয়ে আসলে তার অবস্থা খারাপ হওয়ার বাঞ্ছারামপুর হাসপাতালে নিয়ে গেলে মা মারা যায়। 

বাঞ্ছারামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার আতাউল করিম জানান, রহিমা বেগমকে হাসপাতালে আনার পর পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখি তিনি আগেই মারা গেছেন। 

বাঞ্ছারামপুর মডেল থানার ওসি রাজু আহমেদ জানান, মেয়ের কেচির আঘাতে মা মারা যাওয়ার খবর পেয়ে আমরা অভিযান চালিয়ে ঘাতক পাপিয়াকে আটক করেছি। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হবে। এখনো কোনো মামলা হয়নি। তবে এই পরিবারের অনেকেই মাদকসেবন করেন বলে শুনেছি।

news24bd.tv / কামরুল 

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

নিষিদ্ধ যৌনাচারের সামগ্রী বিক্রিতে ত্রিশোর্ধ্ব নারী-পুরুষদের টার্গেট করত তারা

অনলাইন ডেস্ক

নিষিদ্ধ যৌনাচারের সামগ্রী বিক্রিতে ত্রিশোর্ধ্ব নারী-পুরুষদের টার্গেট করত তারা

রাজধানীতে নিষিদ্ধ যৌনাচারের সামগ্রী ও উদ্দীপক দ্রব্য নানা ধরনের বিজ্ঞাপন দিয়ে বিক্রি করা একটি চক্রের মূল হোতাসহ ৬ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) সাইবার ইনভেস্টিগেশন টিম তাদের গ্রেপ্তার করে বলে রোববার (২৮ ফেব্রুয়ারি) সিআইডির সদর দপ্তরে এক সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়।


গুলি ছুড়ে ইয়েমেনের ক্ষেপণাস্ত্র আকাশেই ধ্বংস করেছে সৌদি

জানা গেল আসল রহস্য, ১৩-১৪ বছরের দুই বোনের সঙ্গেই শরীরিক মেলামেশা ছিল তার

আবাহনীকে ৪-১ গোলে উড়িয়ে দিল বসুন্ধরা কিংস

৬৬ নারীকে ধর্ষণ


সাইবার ক্রাইম কমান্ড অ্যান্ড কন্ট্রোল সেন্টারের অতিরিক্ত ডিআইজি মো. কামরুল আহসান জানান, গ্রেপ্তাররা হলো- চক্রের মূল হোতা মো. মেহেদী হাসান ভূইয়া ওরফে সানি (২৮), রেজাউল আমিন হৃদয় (২৭), মীর হিসামউদ্দিন বায়েজিদ (৩৮), সিয়াম আহমেদ ওরফে রবিন (২১), ইউনুস আলী (৩০), আরজু ইসলাম জিম (২২)। তাদের কাছ থেকে ১২ লাখ টাকার উদ্দীপক টয় সামগ্রী, ৫টি মোবাইল ফোন, ১টি ল্যাপটপ ও ৯টি সিম কার্ড জব্দ করা হয়েছে। গ্রেফতার ৬ জনের বিরুদ্ধে পল্টন থানায় বিশেষ ক্ষমতা আইন ও ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হয়েছে।

অতিরিক্ত ডিআইজি জানান, চক্রটি দীর্ঘদিন ধরে ফেসবুক পেজ ও নানা নামে ওয়েবসাইট চালু বিকৃত যৌনরুচির কাজে ব্যবহৃত সামগ্রী বিজ্ঞাপন দিত। যারা বিজ্ঞাপন দেখে আকৃষ্ট তাদের কাছে চড়া মূল্যে এসব সামগ্রী বিক্রি করত তারা। তারা ত্রিশোর্ধ্ব নারী-পুরুষদের টার্গেট করত। এছাড়া যারা একাকি জীবন-যাপন তাদেরকেও শিকার করত এই চক্রটি।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

কারচুপির অভিযোগে মসজিদের মাইকে হামলার আহ্বান, রণক্ষেত্র জামালপুর

তানভীর আজাদ মামুন, জামালপুর

কারচুপির অভিযোগে মসজিদের মাইকে হামলার আহ্বান, রণক্ষেত্র জামালপুর

জামালপুর পৌরসভায় একটি কেন্দ্রে দুই কাউন্সিলর প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে দফায় দফায় ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও মোটরসাইকেল ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে।

আজ সকাল ৮টা থেকে জামালপুর, ইসলামপুর ও মাদারগঞ্জ এই তিনটি পৌরসভায় ভোটগ্রহণ শুরু হয়। তবে দুপুরের দিকে জামালপুর পৌরসভার সিংহজানী বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোট কারচুপির অভিযোগে দুই কাউন্সিলর প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়।

পরে বিভিন্ন মসজিদের মাইকে ঘোষণা দিয়ে প্রতিপক্ষের ওপর হামলার আহ্বান জানায় অপরপক্ষ। এসময় দুইপক্ষের মধ্যে দফায় দফায় ঘণ্টাব্যাপী ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এছাড়া একটি মোটরসাইকেল ভাঙচুর করা হয়। 


জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ফটক আটকে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

শিক্ষা জাতির উন্নয়নের মূল চাবিকাঠি: প্রধানমন্ত্রী

অসুস্থ মাকে বাঁচাতে ক্রিকেটে ফিরতে চান শাহাদাত

প্রেমিকের আশ্বাসে স্বামীকে তালাক, বিয়ের দাবিতে অনশন!


পরে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে র‌্যাব, পুলিশ ও বিজিবি যৌথভাবে লাঠিচার্জ করে।

এদিকে, জামালপুর পৌর নির্বাচনে বিএনপির মেয়র প্রার্থী অ্যাডভোকেট শাহ মো. ওয়ারেছ আলী মামুন ভোট কারচুপির অভিযোগ এনে নির্বাচন বয়কটের ঘোষণা দিয়েছেন। দুপুরে শহরের সরদার পাড়া এলাকায় নিজ কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এই ঘোষণা দেন তিনি।

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর