বুধবার, ২০ নভেম্বর, ২০১৯ | আপডেট ২৫ মিনিট আগে

ডেঙ্গুতে আরও ছয়জনের মৃত্যু

নিউজ টোয়েন্টিফোর ডেস্ক

ডেঙ্গুতে আরও ছয়জনের মৃত্যু

এডিস মশাবাহিত ডেঙ্গু জ্বরে গত ৩৬ ঘণ্টায় সারা দেশে শিশু ও নারীসহ অন্তত ছয়জনের মৃত্যু হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে।

এডিস মশার বংশবিস্তারের অনুকূল আবহাওয়া হওয়ায় ডেঙ্গু পরিস্থিতি ঝুঁকিপূর্ণ সময় পার করছে জানিয়ে কীটতত্ব বিশেষজ্ঞ ড. মঞ্জুর এ চৌধুরী বলেছেন, এডিস মশা ডেঙ্গু আক্রান্ত রেগীর শরীর থেকে ভাইরাসযুক্ত রক্ত সংগ্রহ করে দ্রুত তা অন্যদের দেহে ছড়িয়ে দেবার কারণে রোগটি দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে। তাই আক্রান্ত রোগীকে মশারীর ভেতরে রেখে এডিসের কাছ থেকে দূরে রাখতে হবে। 

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, রাজধানীতে যে পদ্ধতিতে মশা মারার ওষুধ ছিটানো হচ্ছে তাতে মশার উপদ্রপ কমছে না।   

এদিকে, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশনস সেন্টার ও কন্ট্রোল রুম থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী আজ (শনিবার) সকাল পর্যন্ত গত গত ২৪ ঘণ্টায় ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ১১৭৯ জন রোগী। এর মধ্যে কেবল রাজধানীতেই ভর্তি হয়েছেন ৬৮৯ জন।

এদিকে, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হিসেবে আক্রান্তদের ২৬ শতাংশই শিশু।

ঢাকার স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ (মিটফোর্ড) হাসপাতালে গত বৃহস্পতিবার রাত আটটা থেকে শনিবার সকাল আটটা পর্যন্ত ৩৬ ঘণ্টায় নতুন ৫৪ জন ডেঙ্গু রোগী ভর্তি হয়েছেন। এই সময়ের মধ্যে চারজন রোগী চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন।

ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ডেঙ্গু জ্বর নিয়ে চিকিৎসাধীন জারিফ নামে ৫ মাস বয়সী শিশুর শুক্রবার বিকালে মারা গেছে। ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এ নিয়ে মোট ৫ জনের মৃত্যু হয়েছে।

এ পর্যন্ত ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ১ হাজার ১৪২ জন রোগী চিকিৎসা নিয়েছেন। বর্তমানে চিকিৎসাধীন আছেন ১১০ জন।

ওদিকে, পাবনার চাটমোহরে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে ফরিদা পারভীন (৪০) নামে এক গৃহবধূ বৃহস্পতিবার (২২ আগস্ট) রাতে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন।

গত এক মাসে ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ৮৬ জন ডেঙ্গু রোগী সনাক্ত হয়েছে। এছাড়া প্রতিদিন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ডেঙ্গু পরীক্ষা করতে ভিড় করছেন রোগীরা। 

ভাঙ্গা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কর্মকর্তা ডাক্তার খালেদুর রহমান মিয়া বলেন, ডেঙ্গু এখন মানুষের মনে আতঙ্কে রূপ নিয়েছে। জ্বর হলেই তারা ডেঙ্গু পরীক্ষা করতে আসছেন। গত এক মাসে ভাঙ্গা উপজেলায় ৮৬ জন ডেঙ্গু রোগী সনাক্ত করা হয়েছে। এর মধ্যে ভাঙ্গা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এসে প্রায় ৩০০ রোগী ডেঙ্গু পরীক্ষা করিয়েছেন। এদের মধ্যে ৩৭ জনকে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত রোগী হিসেবে সনাক্ত করা হয়।

(নিউজ টোয়েন্টিফোর/তৌহিদ)

মন্তব্য