শুক্রবার, ১৮ অক্টোবর, ২০১৯ | আপডেট ০৪ মিনিট আগে

প্রেমে প্রতারিত হয়ে অন্তঃসত্ত্বা কিশোরীর আত্মহত্যা

নোয়াখালী প্রতিনিধি

প্রেমে প্রতারিত হয়ে অন্তঃসত্ত্বা কিশোরীর আত্মহত্যা

নোয়াখালীর হাতিয়া উপজেলার বুড়িরচর ইউনিয়নের রেহানিয়া গ্রামে বৃহস্পতিবার রাত ৩টায় প্রেমে প্রতারিত হয়ে এক অন্তঃসত্ত্বা কিশোরী (১৫) গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। 

ভিকটিমের সাথে একই গ্রামের শাহারাজ উদ্দিন (২০) নামে এক যুবকের সাথে প্রেমের সম্পর্ক ছিলো। ভিকটিম একই এলাকার দিনমজুর মোঃ নুরুল ইসলামের মেয়ে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ভিকটিমের সাথে একই গ্রামের মোয়াজ্জম হোসেনের ছেলে মোঃ শাহারাজের সাথে দীর্ঘদিন ধরে প্রেমের সম্পর্ক চলে আসছিলো। শাহারাজ বিয়ে করার প্রলোভন দিয়ে গত ৩ মাস আগ থেকে ওই কিশোরীর সাথে শারীরিক সম্পর্ক গড়ে তুলে। এতে ওই কিশোরী ৩ মাসের অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়লে পরিবারের পক্ষ থেকে শাহারাজকে বিয়ে করার জন্য প্রস্তাব দেয়া হয়। 

শাহারাজ বিয়ে করবে বলে সময়ক্ষেপন করলে, তার বাবা-মা স্থানীয় আক্তার মেম্বারকে বিষয়টি জানায়। আক্তার মেম্বার শাহারাজের সাথে কথা বলে বিষয়টি সমাধান করবে বলে তার পরিবারকে আশ্বস্ত করেন। কিন্তু, মেম্বার স্থানীয় মাস্টার সর্দারের ছেলে মোঃ দুলালের মধ্যস্থতায় শাহারাজ থেকে অনৈতিক সুবিধা নিয়ে চুপ থাকে।

এদিকে, শাহারাজ উদ্দিন গত ৪দিন আগে অন্য আরেকটি মেয়েকে সামাজিকভাবে বিয়ে করে। বিষয়টি জানতে পেরে, রাগে ক্ষোভে গতকাল গভীর রাতে কিশোরীটি নিজ গায়ের ওড়না গলায় পেঁছিয়ে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে।

আক্তার মেম্বার এর সাথে যোগাযোগ করা হলে, তিনি তার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, কিশোরীর বাবা গত ৩ সেপ্টেম্বর বিষয়টি অবহিত করলে, তিনি শাহারাজের পরিবারের সাথে যোগাযোগ করেন। তাদের পক্ষ থেকে কোন সাড়া পাওয়া যায়নি। গতকাল তিনি শুনেছেন, সে অন্যত্র বিয়ে করে বউ বাড়িতে নিয়ে এসেছে।   

হাতিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ আবুল খায়ের জানান, আমি ঘটনাটি শুনে স্থানীয় পুলিশ ফাঁড়ির ক্যাম্প-ইন-চার্জ মোঃ নাজির আহম্মেদকে কিশোরীর লাশ ময়নাতদন্ত করে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে ঘটনার সাথে জড়িতদের আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশনা প্রদান করেছি।


(নিউজ টোয়েন্টিফোর/কামরুল)

মন্তব্য