শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ | আপডেট ১১ ঘন্টা ৩৫ মিনিট আগে

বসুন্ধরা সিমেন্টের সহায়তায় ৬০জনকে রত্নগর্ভা মা সম্মাননা

নিউজ টোয়েন্টিফোর ডেস্ক

বসুন্ধরা সিমেন্টের সহায়তায় ৬০জনকে রত্নগর্ভা মা সম্মাননা

‘দি ইঞ্জিনিয়ার্স-রত্নগর্ভা মা, ২০১৯’ সম্মাননা পেয়েছেন ৬০ জন। এসব গর্বিত মায়ের হাতে মেডেল, ক্রেস্ট ও সার্টিফিকেট তুলে দিয়েছেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী বেগম ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা। 

শনিবার (৭ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে বসুন্ধরা সিমেন্টের সহায়তায় এ সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠানের আয়োজন করে ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন বাংলাদেশ (আইইবি) ও দ্য ইঞ্জিনিয়ার্স ফাউন্ডেশন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রতিমন্ত্রী বলেন, আজকের অনুষ্ঠানে উপস্থিত রত্নগর্ভা মায়েদের প্রতি রইলো আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন। মায়েরাই পারেন সন্তানকে দেশের জন্য সুনাগরিক হিসেবে গড়ে তুলতে। তাদের মায়া-মমতায় পরিবারে যে বন্ধন সৃষ্টি হয়, তার মধ্যই দিয়েই আদর্শ সমাজ গড়ে ওঠে। আদর্শ সমাজের নাগরিকরাই একটি সুখি-সমৃদ্ধ দেশ গড়ে তুলতে পারে।

বেগম ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা বলেন, এ অনুষ্ঠানে ৬০ জন রত্নগর্ভা মায়ের মুখে বিজয়ের হাসি দেখতে পাচ্ছি। আপনারা বহু ত্যাগ-তিতীক্ষা ও কষ্টের মাধ্যমে সন্তানদের মানুষ করতে পেরেছেন। আজ তার ফল পাচ্ছেন। আপনাদের সন্তানরা মানুষের মতো মানুষ হয়েছে।

বক্তব্য রাখছেন বসুন্ধরা গ্রুপের চিফ মার্কেটিং অফিসার (সিমেন্ট সেক্টর) খন্দকার কিংশুক হোসেন। ছবি: বাংলানিউজ
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বসুন্ধরা গ্রুপের চিফ মার্কেটিং অফিসার (সিমেন্ট সেক্টর) খন্দকার কিংশুক হোসেন বলেন, এ অনুষ্ঠানে উপস্থিত সব রত্নগর্ভা ও রত্নদের বসুন্ধরা সিমেন্টের পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন। বসুন্ধরা গ্রুপ শুধু ব্যবসা-বাণিজ্যের সঙ্গেই সম্পৃক্ত নয়, বিভিন্ন সামাজিক কার্যক্রমেও অংশ নিয়ে থাকে। রত্নদের তৈরি করতে মায়েদের অবদানকে সম্মান জানানোর জন্য আজকের এ আয়োজন। এতে বসুন্ধরা সিমেন্টকে সম্পৃক্ত করায় ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন বাংলাদেশ ঢাকা কেন্দ্রকে কৃতজ্ঞতা জানাই। ভবিষ্যতে এ ধরনের মহতি উদ্যোগে বসুন্ধরা গ্রুপ ও বসুন্ধরা সিমেন্ট সবসময় পাশে থাকবে।

আইইবির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি প্রকৌশলী নুরুজ্জামান বলেন, মায়ের কোনো বিকল্প নাই। যা কিছু আছে, সব কিছুতেই মা। ধন-সম্পদ যতই থাক, মায়ের মতো আর কিছু নেই। আমরা ৬০ জন মাকে সম্মান জানানোর ব্যবস্থা করেছি। আমাদের প্রধানমন্ত্রী মমতাময়ী মায়ের কারণেই দেশ আজ উন্নয়নের মহাসড়কে এগিয়ে চলছে।

আইইবির সাধারণ সম্পাদক খন্দকার মনজুর মোর্শেদ বলেন, আইইবি ঢাকা কেন্দ্র আজ যে উদ্যোগ নিয়েছে, তা নিঃসন্দেহে প্রশংসনীয়। এজন্য তাদের অভিনন্দন। সন্তানকে দেশের যোগ্য নাগরিক হিসেবে গড়ে তোলার জন্য মায়ের অবদান সবার শীর্ষে।  হাজার দুঃখ-কষ্টের মধ্যেও সন্তানের সুখের কথা চিন্তা করেন মা। এজন্য আমরা তাদের কাছে চিরকৃতজ্ঞ ও চিরঋণী।

এখন থেকে প্রতিবছর এ সম্মাননা দেওয়ার ধারা অব্যাহত রাখার ঘোষণা দেন তিনি।

আইইবির চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার মো. ওয়ালিউল্লাহ সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন আইইবি ঢাকা কেন্দ্রের ভাইস-চেয়ারম্যান প্রকৌশলী মোসলেহ উদ্দিন, ভাইস প্রেসিডেন্ট এমএম সিদ্দিকী প্রিন্স, সাধারণ সম্পাদক মো. শাহাদৎ হোসেন শীবলু। ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন আইইবির ভাইস-চেয়ারম্যান প্রকৌশলী মোজাম্মেল হক।

(নিউজ টোয়েন্টিফোর/তৌহিদ)

মন্তব্য