শুক্রবার, ১৮ অক্টোবর, ২০১৯ | আপডেট ০৩ মিনিট আগে

অনিশ্চয়তায় পাহাড়ের ২১০ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান

ফাতেমা জান্নাত মুমু, রাঙামাটি প্রতিনিধি

নানা সংকটে অনিশ্চয়তার মধ্যে রয়েছে পার্বত্যাঞ্চলের ২১০টি প্রাথমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। বেতন ভাতা বন্ধ রয়েছে প্রায় ৫ বছর। সরকারি কোনো সুযোগ সুবিধা না পেয়ে মানবেতর দিন কাটাচ্ছেন শিক্ষকরা। এতে ব্যাহত হচ্ছে শিক্ষা কার্যক্রম। 

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, আমলাতান্ত্রিক জটিলতায় বাধাগ্রস্ত হচ্ছে এসব বিদ্যালয় জাতীয়করণ কার্যক্রম।

নিউজ টোয়েন্টিফোরের প্রতিনিধি ফাতেমা জান্নাত মুমু জানাচ্ছেন, ২০০৯ সালে পার্বত্য ৩ জেলায় ইউএনডিপির উদ্যোগে বেসরকারিভাবে গড়ে উঠেছিল প্রায় ২১০টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। এসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষা কার্যক্রমের দায়িত্ব নেন সংস্থাটি। কিন্তু ২০১৪ সালে সংস্থাটি হঠাৎই বন্ধ করে দেয় সব ধরণের সহযোগিতা। এতে মারাত্মক ক্ষতির মুখে পড়ে প্রতিষ্ঠানগুলো।

তাই নামে বিদ্যালয় থাকলেও অবকাঠামোগত উন্নয়নের ছোঁয়া লাগেনি এসব প্রতিষ্ঠানে। নানা সংকটের মধ্যে এসব বিদ্যালয়ে শিক্ষা কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছে শিক্ষকরা। মিলছে না চাহিদামতো বেতন-ভাতাও।

জেলা পরিষদের মাধ্যমে এসব অবহেলিত বিদ্যালয়ের সংকটের কথা সংশ্লিষ্ঠ মন্ত্রাণালয়ে জানানো হয়েছে বলে জানান 
রাঙ্গামাটি জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. খোরশেদ আলম।

তবে আমলাতান্ত্রীক জঠিলতায় এসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে বলে জানান পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমা

তিনি বলেন, আমলাতান্ত্রীক জঠিলতায় প্রধানমন্ত্রীর আদেশও মানা হচ্ছে না।

পার্বত্যাঞ্চলের এসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো জাতীয়করণসহ সরকারী সুযোগ সুবিধা নিশ্চিত করা হলে শিক্ষার সুযোগ পাবে পাহাড়ে বাসবাসকারী ছেলে-মেয়েরা।

(নিউজ টোয়েন্টিফোর/তৌহিদ)

মন্তব্য