শুক্রবার, ১৫ নভেম্বর, ২০১৯ | আপডেট ০৩ ঘণ্টা ০২ মিনিট আগে

টং দোকানদার থেকে শত কোটি টাকার মালিক রাজীব

নিজস্ব প্রতিবেদক

যুবলীগ নেতা ও কাউন্সিলর তারেকুজ্জামান ওরফে রাজীব ছিলেন টং দোকানদার, এখন হয়ে গেছেন কয়েকশো কোটি টাকার মালিক। রাজীব গ্রেফতার হওয়ার পর মোহাম্মদপুর হাউজিং সোসাইটির স্থানীয়রা বিক্ষোভ করেন। তাদের অভিযোগ, শনিবার সকালেও তাদের কাছে থেকে চাঁদা নেয়া হয়েছে।

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের ৩৩ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর তারেকুজ্জামান ওরফে রাজীব নিম্নবিত্ত পরিবারের সন্তান ছিলেন। ফুটপাতের সামান্য টং দোকানদার ছিলেন রাজীব। তাঁর বাবা রডের মিস্ত্রি হিসেবে কাজ করতেন। তাঁর চাচা ছিলেন রাজমিস্ত্রি। সেই রাজীব এখন আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ। কাউন্সিলর নির্বাচিত হওয়ার পর থেকেই রাজীবের পরিবর্তন শুরু হয়।

রাজীবকে গ্রেফতারের পর তার সম্পর্কে বেরিয়ে আসছে চাঞ্চল্যকর সব তথ্য। তার অপরাধ জগত নিয়ে উঠে আসছে নানা অভিযোগ।  মালিক হয়েছেন কয়েকশ' কোটি টাকার। গড়েছেন অঢেল টাকার সম্পদ।

রবিবার সকালে রাজীবের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ মিছিল বের করেন। টং দোকানদার থেকে কোটি কোটি টাকার মালিক হওয়া রাজীবের বিরুদ্ধে রয়েছে মোহাম্মদপুরের বেড়িবাঁধ, চন্দ্রিমা হাউজিং, সাতমসজিদ হাউজিং, ঢাকা উদ্যানসহ বিভিন্ন এলাকায় দখলবাজি ও চাঁদাবাজির সীমাহীন অভিযোগ।

মোহাম্মদপুর এলাকায় একাধিক বাড়ি, জমি ও একাধিক বিলাসবহুল গাড়ির মালিক তিনি।

এদিকে রাজিবের বাড়িটির বাজারমূল্য প্রায় ১০ কোটি টাকার মতো।  বসবাস করেন আলিশান বাড়িতে। গুলশান ও মোহাম্মদপুরে আটটি ফ্ল্যাট রয়েছে তার।

এই ঘটনায় অস্ত্র ও মাদক আইনে ২ টি মামলা দায়েরে প্রস্তুতি নিয়েছে র‌্যাব। এরপর পরবর্তী সিদ্ধান্ত অনুযায়ী তাকে তোলা হবে আদালতে।

 

 

 

মন্তব্য