মঙ্গলবার, ১৪ জুলাই, ২০২০ | আপডেট ১৩ মিনিট আগে

সব পুরুষের যা জানা উচিৎ

অনলাইন ডেস্ক

সব পুরুষের যা জানা উচিৎ

দ্রুত বীর্যপাত বর্তমানে পুরুষের কমন সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে। একে ইংরেজিতে প্রি-ম্যাচিউর ইজেকুলেশন বলা হয়।

অনেক পুরুষরাই যৌনমিলনের সময় নিজের অথবা তাদের যৌনসঙ্গিনীর চাহিদার তুলনায় দ্রুত বীর্যপাত করে ফেলেন। যদি এটা কদাচিৎ ঘটে তাহলে তেমন সতর্ক হওয়ার কারণ নেই।

কিন্তু যদি নিয়মিত আপনার ও আপনার সঙ্গিনীর ইচ্ছার চেয়ে দ্রুত বীর্যপাত ঘটে অর্থাৎ মিলন শুরু করার আগেই কিংবা একটু পরে আপনি নিস্তেজ হয়ে যান -তাহলে বুঝতে হবে আপনার যে সমস্যাটি হচ্ছে তার নাম প্রি-ম্যাচিউর ইজেকুলেশন।

এ ক্ষেত্রে অবশ্যই আপনাকে চিকিৎসকের শরণাপন্ন হতে হবে।

বিশেষজ্ঞের মতে, প্রতি তিনজন পুরুষের মধ্যে একজন এ সমস্যায় আক্রান্ত হচ্ছেন। এটি একটি সাধারণ সমস্যা, যার চিকিৎসাও রয়েছে। কিন্তু অনেক পুরুষ এ বিষয়ে তাদের চিকিৎসকের সাথে কথা বলতে কিংবা চিকিৎসা নিতে সঙ্কোচ বোধ করেন।

বিশেষজ্ঞরা দেখেছেন, দ্রুত বীর্যপাতের ক্ষেত্রে শারীরিক বিষয়গুলোও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। কিছু পুরুষের ক্ষেত্রে দ্রুত বীর্যপাতের সঙ্গে পুরুষত্বহীনতার সম্পর্ক রয়েছে।

বর্তমানে অনেক চিকিৎসা বেরিয়েছে- যেমন বিভিন্ন ওষুধ, মনস্তাত্ত্বিক কাউন্সেলিং ও বিভিন্ন যৌনপদ্ধতি শিক্ষা। এগুলো বীর্যপাতকে বিলম্ব করে আপনার ও আপনার সঙ্গিনীর যৌনজীবনকে মধুর করে তুলবে।

প্রি-ম্যাচিউর ইজাকুলেশন দুই প্রকার-

১। প্রাইমারি প্রি-ম্যাচিউর ইজাকুলেশন : এটি হলো আপনি যৌন সক্রিয় হওয়া মাত্রই বীর্যপাত ঘটে যাওয়া।

২। সেকেন্ডারি প্রি-ম্যাচিউর ইজাকুলেশন: এ ক্ষেত্রে আগে আপনার যৌনজীবন তৃপ্তিদায়ক ছিল, কিন্তু বর্তমানে দ্রুত বীর্যপাত ঘটছে।

প্রি- ম্যাচিউর ইজাকুলেশনের কারণ:- কী কারণে দ্রুতবীর্যপাত হচ্ছে তা নিরূপণ করতে বিশেষজ্ঞরা এখন পর্যন্ত চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। এক সময় ধারণা করা হতো, এটা সম্পূর্ণ মানসিক ব্যাপার। কিন্তু বর্তমানে গবেষণায় জানা গেছে দ্রুত বীর্যপাত একটি জটিল ব্যাপার। এর সাথে মানসিক ও জৈবিক দুটিরই সম্পর্ক রয়েছে।

মানসিক কারণ:- কিছু চিকিৎসক বিশ্বাস করেন, প্রাথমিক বয়সে যৌন অভিজ্ঞতা ঘটলে তা এমন একটি ধরনে প্রতিষ্ঠিত হয় যে, পরবর্তী জীবনে সেটা পরিবর্তন করা কঠিন হতে পারে। যেমন-

লোকজনের দৃষ্টি এড়ানোর জন্য তড়িঘড়ি করে চরম পুলকে পৌঁছানোর তাগিদ।

অপরাধ বোধ, যার কারণে যৌনক্রিয়ার সময় হঠাৎ করেই বীর্যপাত ঘটে যায়। অন্য কিছু বিষয়ও আপনার দ্রুত বীর্যপাত ঘটাতে পারে। এর মধ্যে রয়েছে:

১। পুরুষাঙ্গের শিথিলতা:- সব পুরুষ যৌনমিলনের সময় তাদের লিঙ্গের উত্থান ঠিকমতো হবে কি না তা নিয়ে চিন্তিত থাকেন কিংবা কতক্ষণ লিঙ্গ উত্থিত অবস্থায় থাকবে তা নিয়ে দুশ্চিন্তায় ভোগেন, সেসব পুরুষের দ্রুত বীর্যস্খলন ঘটে।

২। দুশ্চিন্তা:- দ্রুত বীর্যপাত হয় এমন অনেক পুরুষের দ্রুত বীর্যপাতের একটি প্রধান কারণ দুশ্চিন্তা। সেটা যৌনকাজ ঠিকমতো সম্পন্ন করতে পারবেন কি না সে বিষয়ে হতে পারে। আবার অন্য কারণেও হতে পারে। বীর্যপাতের আরেকটি প্রধান কারণ হলো অতিরিক্ত উত্তেজনা।

কারণ জানার জন্য প্রয়োজনীয় পরীক্ষা: আপনার দ্রুত বীর্যপাতের কারণ উদঘাটন করতে আপনার কিছু মানসিক বিষয়ও জানা প্রয়োজন।

যদি আপনার দ্রুত বীর্যপাত ঘটতে থাকে এবং লিঙ্গত্থানে সমস্যা হয়, তাহলে চিকিৎসক পুরুষ হরমোনের মাত্রা (টেস্টোস্টেরন) দেখার জন্য রক্ত পরীক্ষাসহ আরো কিছু পরীক্ষা করতে দিতে পারেন।

প্রি- ম্যাচিউর ইজাকুলেশনের জটিলতা:- যদিও দ্রুত বীর্যপাত আপনার মারাত্মক স্বাস্থ্য বিপর্যয়ের ঝুঁকি বাড়ায় না, কিন্তু এটা আপনার ব্যক্তিগত জীবনে ধস নামাতে পারে। যেমন-

১। সম্পর্কে টানাপড়েন:- দ্রুত বীর্যপাতের সাধারণ জটিলতা হলো যৌন সঙ্গিনীর সাথে সম্পর্কের অবনতি। যদি দ্রুত বীর্যপাতের কারণে আপনার সঙ্গিনীর সাথে মনোমালিন্য চলে, আপনি দেরি না করে চিকিৎসকের শরণাপন্ন হোন।

২। বন্ধ্যত্ব সমস্যা:- দ্রুত বীর্যপাত মাঝে মধ্যে আপনার বন্ধ্যাত্ব ঘটাতে পারে। যেসব দম্পতি সন্তান নেওয়ার চেষ্টা করছেন সেটা অসম্ভব হতে পারে। যদি দ্রুত বীর্যপাতের ঠিক মতো চিকিৎসা করা না হয়, তাহলে আপনার ও আপনার সঙ্গিনীর দুজনেরই বন্ধ্যাত্বের চিকিৎসার প্রয়োজন হতে পারে।

হোমিওপ্যাথিক সমাধান :-

দ্রুত বীর্যপাত সমস্যা সমাধানের সর্বাধুনিক, উন্নত এবং পার্শ্ব প্রতিক্রিয়াহীন হোমিওপ্যাথিক চিকিত্সা রয়েছে। যা সমস্যা সমাধানে কার্যকরী ভূমিকা পালন করে।


ডিএইচএমএস (ঢাকা)
 

আরও পড়ুন: মিলনের ভালো সময় কোনটি?

আরও পড়ুন: শারীরিক মিলনের ৫ উপকার
আরও পড়ুন: যে খাবার খেলে কমে গোপন শক্তি!

মন্তব্য