বুধবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০১৯ | আপডেট ০২ ঘণ্টা ৪৪ মিনিট আগে

আবাহনীর হৃদয় ভেঙে শিরোপা জিতল তেরেঙ্গানু

অনলাইন ডেস্ক

আবাহনীর হৃদয় ভেঙে শিরোপা জিতল তেরেঙ্গানু

শিরোপা পুনরুদ্ধার করা হলো না চট্টগ্রাম আবাহনীর। স্বাগতিকদের স্বপ্ন ছিনিয়ে নিয়ে শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্লাব কাপের তৃতীয় আসরের শিরোপা জিতে নিয়েছে তেরেঙ্গানু এফসি।

মালয়েশিয়ার সুপার লিগের ক্লাবটির বিপক্ষে ফাইনালে দুর্দান্ত ফুটবল খেলেও ২-১ গোলের ব্যবধানে হেরেছে জামাল ভূঁইয়ারা। টুর্নামেন্টে একটি ম্যাচও না হেরে অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হিসেবে শিরোপা জিতেছে তেরেঙ্গানু।

বৃহস্পতিবার (৩১ অক্টোবর) টুর্নামেন্টের একমাত্র ভেন্যু চট্টগ্রাম এম এ আজিজ স্টেডিয়ামে শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্লাব কাপের ফাইনাল দেখার জন্য ঢল নামে ফুটবলপ্রেমীদের। ৩৫ ‍হাজার দর্শক ধারণ ক্ষমতার স্টেডিয়াম ভরে যায় কানায় কানায়। এর বাইরে টিকেট কেটেও হাজার তিনেক দর্শক ঢুকতে পারেননি স্টেডিয়ামে। কিন্তু দর্শকদের সব উল্লাস ম্লান হয়ে যায় স্বাগতিক দলের হারে। সেই সঙ্গে পর্দা নামে ১৩ দিনের ফুটবল উৎসবের।

ম্যাচের শুরুতে অবশ্য হাডাহাড্ডি লড়াইয়ে ফুটবলের দুর্দান্ত পসরা সাজায় দুই ফাইনালিস্ট। রেফারির বাঁশি বাজার প্রথম মিনিটেই গোলের সুযোগ পায় চট্টগ্রাম আবাহনী। সতীর্থের বাড়ানো বলে লুকা রতকোভিচ মাথা ছোঁয়াতে পারলেই গোলের দেখা পেতে পারতো স্বাগতিকরা।

এরপর অষ্টম মিনিটে তেরেঙ্গানুর গোলপোস্ট রক্ষা করেন গোলরক্ষক আমিরুল্লাহ বিন রাজালি। এরপরই ফ্রি-কিক পায় মোহাম্মদ নাজুফি বিন জেইনের দল। কিন্তু তাদের অধিনায়ক লি অ্যান্ড্রু টাকের শটটি চলে যায় গোলপোস্টের বাইরে।

ফাইনালে এক গোল করে ম্যান অব দ্য ম্যাচের পুরস্কার ৫০০ ডলার জিতেছেন তেরেঙ্গানু ডিফেন্ডার হাকিম বিন মামাত। ম্যান অব দ্য টুর্নামেন্টে হয়েছেন তেরেঙ্গানুর লি অ্যান্ড্রু টাক। পুরস্কার হিসেবে তার হাতে উঠেছে ১ হাজার ডলার।

ফাইনালে এক গোলে অ্যাসিস্ট করার পাশাপাশি টুর্নামেন্টে টানা দুই হ্যাটট্রিকে সর্বোচ্চ ৬ গোল করেছেন সাবেক ঢাকা আবাহনী লিমিটেডের এই ইংলিশ মিডফিল্ডার। অন্যদিকে ফাইনালে হারলেও ফেয়ার প্লে জিতেছে স্বাগতিক চট্টগ্রাম আবাহনী।

এর আগে ২০১৫ সালে শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্লাব কাপের প্রথম আসরে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল চট্টগ্রাম আবাহনী। ২০১৭ সালে দ্বিতীয় আসরে চ্যাম্পিয়ন হয় মালদ্বীপের টিসি স্পোর্টস। এবার তৃতীয় আসরে অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হলো তেরেঙ্গানু। 

মন্তব্য