বৃহস্পতিবার, ১৪ নভেম্বর, ২০১৯ | আপডেট ১৫ মিনিট আগে

বুলবুলের প্রভাব পড়তে পারে পেঁয়াজের বাজারে

অনলাইন ডেস্ক

বুলবুলের প্রভাব পড়তে পারে পেঁয়াজের বাজারে

ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের প্রভাবে সাগর উত্তাল থাকায় বন্ধ হলো পেঁয়াজ আমদানি। তবে বৈরী আবহাওয়া কেটে গেলে তিন চার দিন পর পেঁয়াজ আমদানি পুনরায় শুরু হবে বলে জানানো হয়েছে। তবে এতে পেঁয়াজের বাজার অস্থিতিশীল হতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

টেকনাফ স্থলবন্দর কর্তৃপক্ষ ইউনাইটেড ল্যান্ড পোর্ট এর ব্যবস্থাপক জসিম উদ্দিন চৌধুরী জানান, আজ (শনিবার) সকাল থেকে মিয়ানমার থেকে পেঁয়াজ ও অন্যান্য পণ্য বোঝাই কোনো ট্রলার বন্দরে আসেনি। শুধু আগের দিন এসে নোঙর করা ট্রলারের পেঁয়াজ খালাস হয়েছে।

স্থলবন্দরের পেঁয়াজ আমদানিকারক এম এ হাশেম জানান, ঘূর্ণিঝড়ের সংকেত পাওয়ার পর থেকে পণ্য আমদানি আপাতত বন্ধ রেখেছি। এ মুহূর্তে সাগর খুব উত্তাল রয়েছে, তাই ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাব কেটে না যাওয়া পর্যন্ত মিয়ানমার থেকে পেঁয়াজ বোঝাই কোন ট্রলার ছাড়বে না।

স্থানীয় আমদানিকারকরা বলেছেন,  চলতি নভেম্বর মাসের শুরু থেকেই মিয়ানমার থেকে বেশি পরিমাণে পেঁয়াজ আমদানি হয়েছে। কিন্তু ঘূর্ণিঝড়ের কারণে তিন চার দিন পেঁয়াজ আমদানি বন্ধ থাকতে পারে।

এতে পেঁয়াজের বাজার কিছুটা অস্থিতিশীল হতে পারে। তবে আবহাওয়া স্বাভাবিক হলে বন্ধ আমদানির ঘাটতি পুষিয়ে নিতে আরো বেশি পরিমাণে পেঁয়াজ আমদানি করার চেষ্টা করবেন বলে জানিয়েছেন।

এদিকে টেকনাফ স্থলবন্দর শুল্ক বিভাগ সূত্রে জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার ও শুক্রবার পেঁয়াজ আমদানির শেষ দুই দিনে মিয়ানমার থেকে রেকর্ড পরিমাণ পেঁয়াজ আমদানি হয়েছে। এ দুই দিনে বন্দরে ২ হাজার ৭৪৭ মেট্রিক টন পেঁয়াজ খালাস হয়েছে।

তবে শেষ দিন আসা পেঁয়াজভর্তি বন্দরে নোঙর করা সব ট্রলারের পেঁয়াজ খালাস শেষ হলে এ পরিমাণ আরো বাড়বে বলে জানান শুল্ক কর্মকর্তা আবছার উদ্দিন।

(নিউজ টোয়েন্টিফোর/তৌহিদ)

মন্তব্য