সোমবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৯ |

বন্যপ্রাণীর অস্থিরতা কমাতে

সুন্দরবনে প্রবেশ নিষিদ্ধ

সামছুজ্জামান শাহীন, খুলনা থেকে

সুন্দরবনে প্রবেশ নিষিদ্ধ

ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের আঘাত সামাল দিতে আপাতত: ম্যানগ্রোভ সুন্দরবনে সব ধরনের পর্যটক ও বনজীবীদের প্রবেশ নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে বন বিভাগ।

ক্ষতিগ্রস্ত বনকে প্রাকৃতিকভাবে পূর্বের অবস্থায় ফিরিয়ে আনতে সময় দেওয়া ও আতঙ্কিত বন্যপ্রাণীর অস্থিরতা কমাতে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

সোমবার বিকেলে খুলনা অঞ্চলের বন সংরক্ষক মঈনুদ্দিন খান এ তথ্য জানান।

তবে রাত নয়টায় আনুষ্ঠানিকভাবে এই ঘোষণা দেওয়া হয়।

এদিকে সোমবার দুপুরে সুন্দরবন ভ্রমণের দেওয়া সকল অনুমতি রাত নয়টায় বাতিল ঘোষণা করে বনবিভাগ। এতে জাহাজ মালিকদের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়।

জানা যায়, সোমবার দুপুরে সুন্দরবন ভ্রমণের অনুমতি দেওয়ায় টু’র অপারেটররা কিছু বিদেশিসহ কয়েকশ’ পর্যটক নিয়ে ইতিমধ্যে ধাংমারি স্টেশনে অবস্থান করছে। রাতে এই ট্যুর বাতিল ঘোষণা করায় বিপাকে পড়েন জাহাজ মালিকরা।

তবে খুলনা অঞ্চলের বন সংরক্ষক মঈনুদ্দিন খান জানান, সুন্দরবনকে নিজের মতো ঘুরে দাঁড়াতে সময় দেওয়া প্রয়োজন। এ কারণে আমরা আপাতত কোনো ধরনের পর্যটক বা পাশ-পারিমটের অনুমতি দেব না।

তিনি বলেন, প্রাথমিকভাবে ঘূর্ণিঝড়ে বন বিভাগের কিছু ক্যাম্প, কাঠের পন্টুন, জেটি, ওয়াকওয়ে ক্ষতিগ্রস্থ হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। তবে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি বা বন্য প্রাণীর মৃত্যুর খবর পাওয়া যায়নি। বনের ক্ষয়ক্ষতি নিরূপণে বন
বিভাগের চারটি রেঞ্জের ১৬টি স্টেশনের কর্মীরা কাজ শুরু করেছে।

এর আগে ২০০৭ সালের ১৫ নভেম্বর ঘূর্ণিঝড় ‘সিডর’ এবং ২০০৯ সালের ২৫ মে ঘূর্ণিঝড় ‘আইলা’য় একইভাবে সুন্দরবনে ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

(নিউজ টোয়েন্টিফোর/তৌহিদ)

মন্তব্য