মঙ্গলবার, ২১ জানুয়ারি, ২০২০ | আপডেট ০৩ মিনিট আগে

আখেরি মোনাজাতে অংশ নিলেন প্রধানমন্ত্রী

নিউজ টোয়েন্টিফোর ডেস্ক

আখেরি মোনাজাতে অংশ নিলেন প্রধানমন্ত্রী

ফাইল ছবি

বিশ্ব ইজতেমার আখেরি মোনাজাতে অংশ নিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। টেলিভিশনে সরাসরি সম্প্রচারিত ইজতেমার মোনাজাত দেখে প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে মোনাজাতে অংশ নেন তিনি।

বেলা পৌনে ১১টায় শুরু হওয়া এই আখেরি মোনাজাত চলে প্রায় আধ ঘণ্টাব্যাপী। 

কাকরাইল মসজিদের ইমাম ও তাবলিগের শুরা সদস্য হাফেজ মাওলানা মোহাম্মদ জুবায়ের হাসান আখেরি মোনাজাত পরিচালনা করেন। 

রাজধানীর উপকণ্ঠে টঙ্গীর তুরাগতীরে আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে আজ শেষ হয়েছে মুসলমানদের দ্বিতীয় বৃহত্তম জমায়েত বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব।

মোনাজাতে অংশ নিতে ময়দান ও আশপাশের সড়কগুলোতে অবস্থান নেন লাখো মুসল্লি। আশপাশে থাকা দালান-কোঠার ছাদেও নারী-পুরুষসহ অনেক মুসল্লিকে মোনাজাতে অংশ নিতে দেখা গেছে।

এবারই প্রথম আরবির সঙ্গে বাংলায় বিশ্ব ইজতেমার আখেরি মোনাজাত করা হল। মাওলানা জুবায়ের আগে ভারতের মাওলানা সাদ কান্ধলভি কিংবা জোবায়রুল হাসানের আরবি ও উর্দু বয়ান বাংলায় তরজমা করে শোনাতেন।

তাবলীগের আমির ভারতের মাওলানা জোবায়রুল হাসানের মৃত্যুর পর গত দুই বছর দিল্লির মাওলানা সাদ কান্ধলভী আরবি কিংবা উর্দুতে মোনাজাত পরিচালনা করতেন।

নানা বিতর্ক আর তাবলিগ জামাতের একাংশের বিক্ষোভের পর মাওলানা সাদকে এবার ইজতেমায় অংশ না নিয়েই ভারতে ফিরে যেতে হয়েছে। 

ভোর থেকে আখেরি মোনাজাতে অংশ নিতে ময়দানে উপস্থিত হন লাখো মুসল্লি।

গত শুক্রবার ভোরে আম বয়ানের মধ্য দিয়ে শুরু হয়েছিল ৫৩তম বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব। এই পর্বে অংশ নেন ঢাকাসহ ১৭ জেলার মুসলমানরা।

ইজতেমা ময়দান ছাড়াও দক্ষিণে খিলক্ষেত, উত্তরে চেরাগ আলী, পূর্বে টঙ্গী বিসিক শিল্পনগরী ও পশ্চিমে আশুলিয়া পর্যন্ত  প্রায় ১০ বর্গকিলোমিটার এলাকায় প্রায় ২৫ লাখ মানুষ শামিল হন এই মোনাজাতে।

মোনাজাত শেষে টঙ্গী থেকে সবার বাড়ি ফেরার সুবিধার্থে ১৯টি বিশেষ ট্রেনের ব্যবস্থা করেছে রেল কর্তৃপক্ষ।

মন্তব্য