সোমবার, ৬ এপ্রিল, ২০২০ | আপডেট ৩২ মিনিট আগে

ধর্ষণ থেকে বাঁচতে গিয়ে প্রাণ হারাল তরুণী

অনলাইন ডেস্ক

ধর্ষণ থেকে বাঁচতে গিয়ে প্রাণ হারাল তরুণী

একের পর এক ধর্ষণের ঘটনা ঘটেই চলেছে ভারতে। কিছুদিন আগেই হায়দ্রাবাদের তরুণী পশু চিকিৎসককে গণধর্ষণ করে গায়ে আগুন ধরিয়ে খুন করা হয়েছিল। তারপরই উন্নাওয়ে আবার ধর্ষণের শিকার যুবতীকে আদালতে যাওয়ার পথেই পুড়িয়ে মারার চেষ্টা করা হয়। কদিন হাসপাতালে মৃত্যুর সঙ্গে লড়াই শেষ হয়েছিল তার অধ্যায়। প্রায় একই ধরনের ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটল এবার মুজাফ্ফরপুরে। ধর্ষণ থেকে বাঁচার চেষ্টা করতে যাওয়ায় গায়ে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয় তরুণীর। সোমবার রাতে মৃত্যু হয়েছে সেই তরুণীর।

ভারত জুড়ে চলছে ধর্ষণের প্রতিবাদ। আর এরই মাঝে প্রায় প্রতিদিনই শিরোনামে উঠে আসছে একটার পর একটা ধর্ষণের খবর। এবার ধর্ষণ থেকে আত্মরক্ষা করতে গিয়ে প্রাণ হারালো ২০ বছর বয়সী এক তরুণীকে। গত ৭ ডিসেম্বর রাতে এ পৈশাচিক ঘটনা ঘটে। অবশেষে গতকাল সোমবার রাত ১১.৪০ নাগাদ প্রাণ হারান সেই তরুণী। 

আহিয়াপুর থানা এলাকার বাসিন্দা ওই তরুণীকে ধর্ষণের চেষ্টা করে তার এক প্রতিবেশী। তরুণী এমন ভয়ংকর পরিস্থিতি থেকে নিজেকে বাঁচানোর প্রাণপণ চেষ্টা করেন। কিন্তু ধর্ষণে বাধা পেতেই ওই প্রতিবেশীর রোষের মুখে পড়ে যান তিনি। তার গায়ে আগুন লাগিয়ে দেয় অভিযুক্ত। তরুণীর গলা ফাটানো চিৎকার শুনে ছুটে আসে আশপাশের লোকেরা। 

তাকে উদ্ধার করে পরের দিনই নিয়ে তাকে ভর্তি করা হয় মুজাফ্ফরপুরের শ্রীকৃষ্ণ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। তার শরীরের প্রায় ৯৫ শতাংশই পুড়ে গিয়েছিল। পরে তাকে পাটনার এক বেসরকারি হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হলে সেখানে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ে সোমবার রাত ১১টা ৪০ নাগাদ প্রাণ হারান তরুণী। চিকিৎসকরা জানান, ক্রমেই তরুণীর শারীরিক পরিস্থিতির অবনতি হচ্ছিল। দেহের আভ্যন্তরীণ অঙ্গ ক্ষতিগ্রস্থ হয়ে পড়েছিল দিনে দিনে। যার ফলে তাকে বাঁচানো সম্ভব হয়নি।

 

নিউজ টোয়েন্টিফোর/ডিএ

মন্তব্য