সোমবার, ২০ জানুয়ারি, ২০২০ | আপডেট ০৪ ঘণ্টা ০৪ মিনিট আগে

‘মুরগি খুন’ থানায় দম্পতি

অনলাইন ডেস্ক

‘মুরগি খুন’ থানায় দম্পতি

মুরগি ‘খুনের’ অভিযোগ নিয়ে থানায় অভিযোগ করেছেন এক দম্পতি। মুরগির ময়নাতদন্তও দাবি করেছেন তারা। ভারতের পশ্চিমবঙ্গের জলপাইগুড়ির ঘটনা এটি। দেশটির সংবাদমাধ্যম সংবাদ প্রতিদিনে এ খবর প্রচার করা হয়।

ওই দম্পত্তির অভিযোগের পর পুলিশ মুরগির ময়নাতদন্তের আশ্বাস দেন। জলপাইগুড়ির ধাপগঞ্জের বাসিন্দা আমিনুল ইসলাম এবং মুনসুরা বেগম দম্পতি এ অভিযোগ করেন। ব্যাপারটি ভাইরাল হওয়ায় গোটা রাজ্যের মানুষের মুখে মুখে শোনা যাচ্ছে।

পুলিশ জানায়, আমিনুল ইসলাম এবং মুনসুরা বেগমের বেশ কয়েকটি পোষ্য মুরগি রয়েছে। তারা মালিক এবং তার প্রতিবেশীর জমি সীমানা বোঝে না। মাঝেমধ্যেই প্রতিবেশী ইমাজ্জিন আলীর মরিচ ক্ষেতে ঢুকে পড়ে ওই ১০টি মুরগি।
তাদের আনাগোনা ভালো চোখে দেখতেন না ইমাজ্জিন।

অভিযোগ, গত ২৩ ডিসেম্বর খেতে ঢুকে পড়া মুরগির জন্য বিষ মেশানো মুড়ি, ভাত ছড়িয়ে রাখে ইমাজ্জিন। ওই খাবার খায় ১০টি মুরগি। খাবার খাওয়ার পর আটটি মুরগিই মারা গেছে।

কীভাবে মুরগিগুলো মারা গেল, তা বুঝতে অসুবিধা হয়নি দম্পতির। মুনসুরা তার প্রতিবেশীর বাড়িতে যান। ঝগড়াঝাটির মাঝে ইমাজ্জিন তার শ্লীলতাহানি করে বলেও অভিযোগ।

পরে মরা মুরগি নিয়ে জলপাইগুড়ি আদালতেই যান আমিনুল-মুনসুরা। সেখান থেকে দুজনকে কোতোয়ালী থানায় পাঠানো হয়।

পুলিশ বলছে, ওই দম্পতি তাদের মুরগিগুলো ‘খুন’ হয়েছে দাবি করে ময়নাতদন্ত চাইছেন। যদিও আইন অনুযায়ী, কোনো পশু বা প্রাণীকে খুন করা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ। তবে সেক্ষেত্রে পুলিশের অভিযোগ নেওয়া অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

পরে মুরগিগুলোর ময়নাতদন্তের আশ্বাস দেয় পুলিশ।

(নিউজ টোয়েন্টিফোর/তৌহিদ)

মন্তব্য