বৃহস্পতিবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০১৯ | আপডেট ২৫ মিনিট আগে

ক্ষুধার জ্বালায় লোকালয়ে ঢুকে প্রাণ হারাল বাঘ

নিউজ টোয়েন্টিফোর ডেস্ক

ক্ষুধার জ্বালায় লোকালয়ে ঢুকে প্রাণ হারাল বাঘ

ক্ষুধার জ্বালায় লোকালয়ে ঢুকে প্রাণ হারাল একটি রয়েল বেঙ্গল টাইগার। বাঘটি একটি মৎস্য ঘেরে ঢুকে দুই ব্যক্তিকে আক্রমণ করলে এলাকাবাসী সেটিকে পিটিয়ে হত্যা করে। মঙ্গলবার ভোর সাড়ে ৬ টার দিকে বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে নিশানবাড়িয়া ইউনিয়নের গুলিশাখালী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

খবর পেয়ে ভিলেজ টাইগার রেসপন্স কমিটির (ভিটিআরটি) কর্মী বারেক হাওলাদার, মামুন, নাছির, আমজাদ ও রুম্মান নিহত বাঘটিকে উদ্ধার করে নিশানবাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদে নিয়ে যান। পরে গুলিশাখালী ফরেষ্ট স্টেশন কর্মকর্তা শেখ খায়রুল ইসলাম ঘটনাস্থলে পৌঁছে সাড়ে ৬ফুট লম্বা বাঘটির মরদেহ জিউধরা ফরেষ্ট ক্যাম্পে নিয়ে যান। 

স্থানীয়রা জানান, সোমবার রাতে সুন্দরবন ছেড়ে গুলিশাখালী গ্রামে ঢুকে পড়ে একটি বাঘ। বাঘটি দেখে সারা রাত আতঙ্কের মধ্যে থাকে গ্রামবাসী। পরে মঙ্গলবার সকালে গ্রামের একটি মাছের ঘেরে ঢুকে বাঘটি মাসুম নামে এক যুবকের ওপর আক্রমণ করে। এ সময় ওই যুবককে বাঁচাতে স্থানীয়রা এগিয়ে যান। বাঘটি তাদের ওপর হামলা চালালে স্থানীয়রা বাঘটিকে পিটিয়ে হত্যা করে।

স্থানীয় এক মৌয়াল (সুন্দরবনে মধু সংগ্রহকারী) বলেন, দেখে মনে হচ্ছে বাঘটির বয়স খুব বেশি নয়। এছাড়া দীর্ঘদিন সম্ভবত ঠিকমতো খাবার পায়নি। যথেষ্ট দুর্বল ছিল বাঘটি। তার মতে চোরা শিকারিদের কারণে সুন্দরবনে হরিণ ও অন্যান্য পশু-পাখি কমে গেছে। এতে বাঘের খাবারের সংকট দেখা দিয়েছে। খাবারের সন্ধানে প্রায়ই বাঘ বন ছেড়ে বিভিন্ন লোকালয়ে ঢুকে পড়ে মারা পড়ছে। 

বাঘের থাবায় আহত পাঁচজনকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্ষে ও গুরুতর হওয়ায় একজনকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

বাঘটির মরদেহ উদ্ধারকারী ভিটিআরটি সদস্য বারেক হাওলাদার বলেন, ভোররাতে ক্ষুধার্ত এই বাঘ খাবারের সন্ধানে লোকালেয়ে ঢুকে কয়েকজনকে আক্রমণ করে। এতে পাঁচজন আহত হয়েছে। গুরুতর আহত মাসুম দলালকে খুলনায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে। 

মন্তব্য