শুক্রবার, ৩ এপ্রিল, ২০২০ | আপডেট ০৬ ঘণ্টা ০৫ মিনিট আগে

জয়ে দিয়ে বিদায় নিল রংপুর

অনলাইন ডেস্ক

জয়ে দিয়ে বিদায় নিল রংপুর

১২ ম্যাচে ৫ জয় পেয়ে শেষ চারের লড়াই থেকে ছিটকে পড়েছে রংপুর রেঞ্জার্স। টুর্নামেন্টের মাঝপথে অজি অলরাউন্ডার শেন ওয়াটসনকে উড়িয়ে এনেও ভাগ্য বদলাতে না পারা রংপুর শেষ পর্যন্ত আসরের শেষ ম্যাচ জিতে বিদায় নিলো।

ঢাকা প্লাটুনের বিপক্ষে টানা দুই ম্যাচের একটিতে হার, একটি জয় পেল দলটি। আজ টসে হেরে আগে ব্যাট করে ২০ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে ১৪৯ রান সংগ্রহ করে রংপুর রেঞ্জার্স।

লুইস গ্রেগরি করেন সর্বোচ্চ ৪৬ রান। এছাড়া আল-আমিনের ৩৫, জহুরুল ইসলাম করেন ২৮ রান। শেন ওয়াটসন এই ম্যাচেও দ্যুতি ছড়াতে পারেননি ব্যাট হাতে। মাত্র ১০ রান সাজঘরে ফেরেন মাশরাফি মুর্তজার বলে ক্যাচ দিয়ে।

থিসারা পেরেরা ইনিংসের শেষ ওভারে জহুরুল অমি ও তাসকিনকে বোল্ড করে হ্যাট্রিকের সম্ভাবনা জাগিয়েছিলেন বটে কিন্তু মোস্তাফিজ রানআউট হওয়াতে ওভারে উইকেটের হ্যাট্রিক হয়েছিল। তবে হ্যাট্রিক হয়নি থিসারার। এই ওভারে টানা ৪টি উইকেট পড়ে রংপুরের।

তিন উইকেট নিয়ে সন্তুষ্ট থাকতে হয় থিসারা পেরেরাকে। এছাড়া শাদাব খান দুটি ও একটি করে উইকেট নেন মাশরাফি মুর্তজা ও মেহেদী হাসান।

ব্যাট করতে নেমে রংপুরের বোলারদের তোপের মুখ পড়তে হয় ঢাকার ব্যাটারদের। প্লে-অফ নিশ্চিত করা ঢাকার জন্য এই ম্যাচটা গুরুত্বপূর্ণ ছিল পয়েন্ট টেবিলে এক বা দুই নম্বর জায়গা নিশ্চিত করা। কিন্তু ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতায় ১১ রানে হেরে দুই নম্বরের থাকা জায়গাটা খানিক নড়বড়ে হয়ে গেল বলা যায়।

তামিম ইকবালের ৩৩ বলে ৩৪ রানের ইনিংসটাই ঢাকার ব্যাটসম্যানদের হয়ে সর্বোচ্চ ইনিংস। এছাড়া মেহেদী হাসানের ২৪ বলে ২০, মুমিনুল হকের ১৮ আর শাদাব খান করেন ১৬ রান।

শেষদিকে মাশরাফির ১৩ বলে ১২ রান শুধু হারের ব্যবধানটাই কমিয়েছে ঢাকার। তাতে রংপুর রেঞ্জার্স জিতেছেছে ১১ রানে। রংপুরের হয়ে ২ উইকেট করে নেন তাসকিন আহমেদ, জুনাইদ খান ও আরাফাত সানী। ১টি করে উইকেট নেন মুস্তাফিজ ও লুইস গ্রেগরি।

নিউজ টোয়েন্টিফোর/কামরুল 

মন্তব্য