বৃহস্পতিবার, ৯ এপ্রিল, ২০২০ | আপডেট ০৪ ঘণ্টা ০৬ মিনিট আগে

পরিচালকের রুম থেকে কেঁদে বের হলেন নায়িকা!

অনলাইন ডেস্ক

পরিচালকের রুম থেকে কেঁদে বের হলেন নায়িকা!

পরিচালক অরিন্দম শীল ও অভিনেত্রী রূপাঞ্জনা মিত্র

অভিনেত্রীকে স্ক্রিপ্ট পড়ে শোনানোর জন্য অফিসে ডেকেছিলেন পরিচালক। কিন্তু, সেখানে গিয়ে অভিনেত্রী দেখলেন ওই পরিচালক ছাড়া পুরো অফিস খালি। এক পর্যায়ে পরিচালকের কক্ষ থেকে কাঁদতে কাঁদতে বের হন অভিনেত্রী। যাদের কথা হচ্ছে তারা হলেন ভারতের বাংলা ছবির জনপ্রিয় পরিচালক অরিন্দম শীল ও টালিউড অভিনেত্রী রূপাঞ্জনা মিত্র। কিন্তু, কী হয়েছিল সেদিন?

অভিনেত্রীর অভিযোগ, ''অরিন্দমের প্রযোজিত ভূমিকন্যাতে কাজ করেছিলাম। কাজ শুরুর দিকে আমাকে একদিন ইস্টার্ন বাইপাসের কাছে তার অফিসে স্ক্রিপ্ট শোনানোর নাম করে ডেকে পাঠান। অফিসে পৌঁছে দেখি, পুরো অফিস ফাঁকা, কেউ নেই। সেখানে পরিচালক আমার সঙ্গে ইঙ্গিতপূর্ণ অশালীন আচরণ শুরু করেন। শুধু তাই নয়, ঘনিষ্ঠ আলিঙ্গনের মাধ্যমে তাকে কদর্য ইঙ্গিতও করেছিলেন অরিন্দম। আমি বেশ ঘাবড়ে গিয়েছিলাম। এত বছর ইন্ডাস্ট্রিতে থাকার পর এমন বাজে প্রস্তাব আসতে পারে ভাবতে পারিনি। সেদিন মনের জোরে ঘর থেকে বেরিয়ে এসেছিলাম। তবে বের হয়ে অঝোরে কেঁদেছি। ওই ঘটনার পর ডিপ্রেশনে চলে গিয়েছিলাম।''

রূপাঞ্জনা সাংবাদিকদের বলেন, ''ওই সময় তার স্ত্রীও এসে পড়েন। আমি প্রস্তাবে রাজি হইনি বলে আমার ফটোশ্যুট হলেও, ভূমিকন্যার পোস্টার থেকে আমাকে বাদ দেয়া হয়। এই পরিচালকই সাত-আট বছর আগে আমার এক বান্ধবীকেও (সেও পর্দার পরিচিত মুখ) অশালীন প্রস্তাব দেন। আমার বান্ধবী আর্টিস্ট ফোরামে অভিযোগও করেছিল।’

এতদিন পর মুখ খোলার কারণ হিসেবে তিনি বলেন, ''ঘটনাটার এক বছর কেটে গেছে। তখন মুখ খুলিনি কারণ আমি ওই বেসরকারি চ্যানেলটির সঙ্গে কনট্র্যাক্টে ছিলাম। মুখ খুললে চ্যানেলটির নাম জড়িয়ে যেত। এছাড়া মানসিকভাবে এতটাই ভেঙে পড়েছিলাম যে, ভেবে পাচ্ছিলাম না কী করব! এখন মনে হল এই সব মানুষের মুখোশ খুলে দেওয়া দরকার। আজ আমাকে প্রস্তাব দিয়েছে। কাল নতুন কোনও মেয়েকে একই প্রস্তাব দেবে।''

তবে অভিনেত্রীর অভিযোগ 'রাজনৈতিক স্ট্যান্টবাজি' বলে উড়িয়ে দিয়েছেন অরিন্দম। অভিযোগের ব্যাপারে পরিচালক অরিন্দম শীল বলেছেন, আমি জানি না ও কেন এসব বলছে। ও আমার দীর্ঘদিনের বন্ধু। যেদিনের কথা ও বলছে সে দিন অফিস থেকে বেরিয়ে ও আমায় টেক্সট করেছিল, আই অ্যাম সো এক্সসাইটেড। একসঙ্গে ওয়ার্কশপ করতে হবে কিন্তু। সেই টেক্সটও দেখাতে পারি আমি। তার কথা মতো যে ‘কুপ্রস্তাব’ দেবে তাকে কি ও আবার পাল্টা টেক্সট করবে?

২০১৩ সাল থেকে পরিচালনায় নিয়মিত হওয়া অরিন্দম শীল আবর্ত (২০১৩), এবার শবর (২০১৫), হর হর ব্যোমকেশ (২০১৫), স্বাদে আহ্লাদে (২০১৫)-সহ বেশ কয়েকটি ছবি পরিচালনা করেছেন। সূত্র: আনন্দবাজার

মন্তব্য