মঙ্গলবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ | আপডেট ০৩ মিনিট আগে

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর এমন ‘ধাক্কা খায়নি’ যুক্তরাষ্ট্র

অনলাইন ডেস্ক

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর এমন ‘ধাক্কা খায়নি’ যুক্তরাষ্ট্র

যুক্তরাষ্ট্রের ড্রোন হামলায় ইরানের ইসলামি বিপ্লবী গার্ড বাহিনীর (আইআরজিসি) কুদস ব্রিগেডের প্রধান জেনারেল কাসেম সোলাইমানি নিহতের পর পাল্টা জবাবে ইরাকে অবস্থিত মার্কিন আইন আল আসাদ সামরিক ঘাঁটিতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায় তেহরান।

এ হামলার পর মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রথমে নিজ সেনাদের প্রাণহানি বা ক্ষয়ক্ষতির খবর অস্বীকার করে। এখন অবশ্য ধীরে ধীরে এ সংক্রান্ত নানা খবরাখবর প্রকাশিত হচ্ছে। নিউজ ওয়েবসাইট 'ডিফেন্স ওয়ান'র এক প্রতিবেদনে এ ব্যাপারে খবর প্রকাশিত হয়।

খবরে বলা হয়েছে, ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় আহত অন্তত ১১ মার্কিন সেনাকে চিকিৎসার জন্য কুয়েত ও জার্মানিতে স্থানান্তর করা হয়েছে। মার্কিন সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকেও বিষয়টি স্বীকার করা হয়েছে।

মার্কিন সেনাবাহিনীর মুখপাত্র বিল এরিন এক বিবৃতিতে বলেছেন, আহতদের কিছু সংখ্যককে জার্মানিতে ও কিছু সংখ্যককে কুয়েতের হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয়েছে। তাদের অধিকাংশই মাথায় ও ব্রেনে আঘাতপ্রাপ্ত।

দাবি করা হয়েছে, ইরাকের আইন আল আসাদ ঘাঁটিতে ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় কোনো মার্কিন সেনা মারা যায়নি। তবে প্রচণ্ড বিস্ফোরণের কারণে সেখানে অবস্থিত সেনারা ব্রেনে আঘাত পেয়েছে।

মার্কিন সেনাবাহিনী ও পেন্টাগন দাবি করছে তারা সবেমাত্র এ সংক্রান্ত খবর পেয়েছে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প, প্রতিরক্ষামন্ত্রী মার্ক স্পারসহ অন্যান্য কর্মকর্তারা বারবার বলে আসছিলেন ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় কোনো সেনা হতাহত হয়নি।

কিছুই হয়নি বলে মিথ্যা কথা বলে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বহুবার তাদের মর্যাদা রক্ষার চেষ্টা করেছেন। কারণ দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর এই প্রথম কোনো মার্কিন ঘাঁটিতে এতবড় হামলার ঘটনা ঘটেছে।

(নিউজ টোয়েন্টিফোর/তৌহিদ)

মন্তব্য