মসজিদে মাইক ব্যবহারের অনুমতি দিল না আদালত

অনলাইন ডেস্ক

মসজিদে মাইক ব্যবহারের অনুমতি দিল না আদালত

ভারতের উত্তরপ্রদেশে দুটি মসজিদকে আজানের সময়ে মাইক ব্যবহার করার অনুমতি দিল না ভারতের এলাহাবাদ হাইকোর্ট। 

মসজিদে আজানের সময়ে মাইক ব্যবহারের অনুমতি নবায়নের জন্য আবেদন করা হয়েছিল। কিন্তু তা খারিজ করে দেয় আদালত।

প্রদেশটির জৌনপুর জেলার বাদ্দোপুর গ্রামে অবস্থিত ওই দুই মসজিদে মাইক বাজানো নিয়ে বিচারপতি পঙ্কজ মিথাল এবং ভিপিন চন্দ্র দীক্ষিতের ডিভিশান বেঞ্চ বলেছে, কোনো ধর্মই এটা শেখায় না যে প্রার্থনা করার সময়ে মাইক ব্যবহার করতে হবে বা বাজনা বাজাতে হবে। আর যদি সেরকম কোনো ধর্মীয় আচার থেকেই থাকে, তাহলে নিশ্চিত করতে হবে যাতে অন্যদের তাতে বিরক্তির উদ্রেক না হয়।

শব্দদূষণ রোধ আইন এবং সুপ্রিম কোর্টের নানা রায় তুলে ধরে হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ বলেছে, ভারতীয় সংবিধানের ২৫ নম্বর অনুচ্ছেদ অনুযায়ী প্রত্যেক ব্যক্তির নিজের ধর্ম পালন করার অধিকার আছে ঠিকই কিন্তু সেই ধর্মাচরণের ফলে অন্য কারো অসুবিধা করার অধিকার কারো নেই। এই আদালত মনে করে অখণ্ড রামায়ন, কীর্তন প্রভৃতির সময়ে মাইক ব্যবহার করার ফলে একদিকে যেমন শব্দদূষণ হয়, তেমনই বহু মানুষের অসুবিধাও হয়।

এলাহাবাদ হাইকোর্টে ২০ বছর আগের একটি রায়কে উদ্ধৃত করে ডিভিশন বেঞ্চ।

সেই রায়ে বলা হয়েছিল, অখণ্ড রামায়ন, আজান, কীর্তন, কাওয়ালি বা অন্য যে কোনো অনুষ্ঠান, বিয়ে প্রভৃতির সময়ে মাইক ব্যবহার করার ফলে বহু মানুষের অসুবিধা হয়। সাধারণ মানুষের কাছে আবেদন জানানো হচ্ছে যাতে মাইক ব্যবহার না করা হয়।

আদালতের সর্বশেষ এই রায়টি দেওয়া হয়েছে দুটি মসজিদের মাইক ব্যবহারের অনুমতি নবায়নের আবেদনের প্রেক্ষিতে।

কিন্তু অন্যান্য কোনো মসজিদে আজান বা মন্দিরে রামায়ন পাঠ বা কীর্তন অথবা মঞ্চে কাওয়ালি অনুষ্ঠানে মাইক ব্যবহারের অনুমতি দেওয়া হবে না, এটা বলা হয়নি।

মাইক ব্যবহারের অনুমতি চেয়ে দাখিল করা পিটিশন খারিজ করে দিয়ে স্থানীয় প্রশাসনের কাজে হস্তক্ষেপ করতে চায় না বলেও জানিয়েছে আদালত।

(নিউজ টোয়েন্টিফোর/তৌহিদ)

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

মিয়ানমারে পুলিশের গুলিতে আরও দুই বিক্ষোভকারী নিহত

অনলাইন ডেস্ক

মিয়ানমারে পুলিশের গুলিতে আরও দুই বিক্ষোভকারী নিহত

মিয়ানমারে পুলিশের গুলিতে আরও দুই বিক্ষোভকারী নিহত হয়েছেন। প্রত্যক্ষদর্শীরা ওই দুই বিক্ষোভকারীর মাথায় গুলি লাগার বিবরণ দিয়েছেন।

সামাজিক মাধ্যমে প্রকাশিত বেশ কিছু ছবিতে দেখা গেছে উত্তরাঞ্চলীয় মিতকিনা শহরে দু’জনের মরদেহ রাস্তায় পড়ে আছে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, নিহত ব্যক্তিরা বিক্ষোভে অংশ নিয়েছিলেন। বিক্ষোভকারীদের ওপর টিয়ার গ্যাস এবং গুলি ছুড়েছে পুলিশ। সে সময় বেশ কয়েকজন পুলিশের গুলিতে হতাহত হয়েছে।

এক প্রত্যক্ষদর্শী রয়টার্সকে বলেন, তিনি এবং আরও বেশ কয়েকজন রাস্তা থেকে বিক্ষোভকারীদের মরদেহ সরিয়েছেন। তিনি জানান, দু’জনকে মাথায় গুলি করা হয় এবং তারা ঘটনাস্থলেই মারা গেছেন। এছাড়া পুলিশের গুলিতে আরও তিনজন আহত হয়েছে।


আরও পড়ুনঃ


সমালোচনা আমাদের কাজের সফলতা : কবীর চৌধুরী তন্ময়

পাবনায় থাকছেন শাকিব খান

সাধ্যের মধ্যে ৮ জিবি র‍্যামের রেডমি ফোন

কমেন্টের কারণ নিয়ে যা বললেন কবীর চৌধুরী তন্ময়


এক বিক্ষোভকারী বলেন, ‘বেসামরিক লোকজনকে গুলি করে হত্যা করাটা কতটা অমানবিক! শান্তিপূর্ণভাবে বিক্ষোভ করার অধিকার আমাদের আছে।’এদিকে, সামরিক শাসনের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়ে দেশটির বৃহত্তম ইয়াঙ্গুন শহরের দোকান-পাট, কারখানা এবং ব্যাংকের সব কার্যক্রম বন্ধ রাখা হয়েছে।

সোমবার এক বিবৃতিতে মিয়ানমার সেনাবাহিনী জানিয়েছে, তারা আগের দিন ৪১ জনকে গ্রেফতার করেছে।

news24bd.tv / নকিব

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

সীমান্তে নজরদারি বাড়াতে মহাকাশে ভারতের কৃত্রিম উপগ্রহ

অনলাইন ডেস্ক

সীমান্তে নজরদারি বাড়াতে মহাকাশে ভারতের কৃত্রিম উপগ্রহ

সীমান্তে বিশেষ নজরদারি বাড়ানো লক্ষ্যে জিআইএসএটি-ওয়ান নামে একটি কৃত্রিম উপগ্রহ মহাকাশে পাঠাচ্ছে ভারত। আগামী ২৮ মার্চ অন্ধ্রের শ্রীহরিকোটা থেকে এই উপগ্রহটি উৎক্ষেপণ করা হবে।

শুধু নজরদারিই নয়, যেকোনো প্রাকৃতিক বিপর্যয়েও নজর রাখতে পারবে এই উপগ্রহটি।

এ নিয়ে সংবাদমাধ্যমে ইন্ডিয়ান স্পেস রিসার্চ অর্গানাইজেশনের (ISRO) এক কর্মকর্তা বলেন, আগামী ২৮ মার্চ একটি জিও ইমেজিং স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ করা হবে এবং এটিকে ৩৬ হাজার কিলোমিটার দূরের কক্ষপথে স্থাপন করা হবে।


আরও পড়ুনঃ


সমালোচনা আমাদের কাজের সফলতা : কবীর চৌধুরী তন্ময়

পাবনায় থাকছেন শাকিব খান

সাধ্যের মধ্যে ৮ জিবি র‍্যামের রেডমি ফোন

কমেন্টের কারণ নিয়ে যা বললেন কবীর চৌধুরী তন্ময়


উপগ্রহটি ভারতের পক্ষে একটি গেম চেঞ্জার হবে বলে মন্তব্য করেছেন ইসরোর ওই কর্মকর্তা। হাই রেজোল্যুশন একটি ক্যামেরার মাধ্যমে সীমান্ত ছাড়াও গোটা দেশের উপরেই এটি নজর রাখবে।

news24bd.tv / নকিব

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

সুইজারল্যান্ডে বোরখা নিয়ে বিতর্কিত আইন পাস

অনলাইন ডেস্ক

সুইজারল্যান্ডে বোরখা নিয়ে বিতর্কিত আইন পাস

সুইজারল্যান্ডে এক গণভোটে প্রকাশ্যে মুখ ঢাকা পোশাক বা বোরখা নিষিদ্ধের প্রস্তাব পাস হয়েছে। গত রবিবার অনুষ্ঠিত গণভোটে ৫১ দশমিক ২ শতাংশ মানুষ প্রস্তাবটির পক্ষে রায় দিয়েছেন। বিপক্ষে ভোট পড়ে ৪৮ দশমিক ২ শতাংশ।

দেশটির নিয়মানুযায়ী, যে কোনো বিষয়ে এক লাখ মানুষ স্বাক্ষর প্রদান করলে সেই প্রস্তাবের ওপর জাতীয় ভোট অনুষ্ঠিত হয়। দেশটির কট্টর ডানপন্থি দল সুইস পিপলস পার্টি (এসপিপি) পার্লামেন্টে এই প্রস্তাব আনে।

এদিকে মুসলিমবিদ্বেষী এ প্রস্তাব পাস হওয়ায় এই দিনটিকে দেশটির জন্য একটি কালো দিন হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন সুইস ইসলামি গ্রুপের নেতারা।

প্রস্তাব অনুযায়ী, কোনো ব্যক্তি জনসমক্ষে মুখ ঢেকে রাখতে পারবেন না। রেস্টুরেন্ট, স্টেডিয়াম, গণপরিবহন—এমনকি রাস্তায় হাঁটার ক্ষেত্রেও মুখ আবৃত করে এমন পোশাক পরা যাবে না।

তবে ধর্মীয় উপাসনালয় এবং নিরাপত্তা ও স্বাস্থ্যগত কারণে এই নিয়ম প্রযোজ্য হবে না। অর্থাৎ করোনা থেকে রক্ষায় মাস্ক পরতে কোনো সমস্যা নেই। তবে প্রার্থনাস্থলে এই নিয়মের ছাড় দেওয়া হবে।

সুইজারল্যান্ডে সচরাচর বোরকা, নেকাব পরিহিত নারী তেমন একটা দেখা যায় না। তার পরও এমন প্রস্তাব ওঠা নিয়ে রাজনৈতিক বিতর্ক আছে।

এই বিষয়ে সুইস পিপলস পার্টির সংসদ সদস্য জ্যঁ-লুক অ্যাডোর বলেন, বোরকা পরা খুব বেশি নারী সুইজারল্যান্ডে নেই সেটি সৌভাগ্যের। তার যুক্তি— কোন বিদ্যমান সমস্যা নিয়ন্ত্রণের বাইরে যাওয়ার আগেই সমাধান করা উচিত।

ইতিমধ্যে দেশটির দুটি অঞ্চলে নিয়মটি কার্যকর রয়েছে, যা সারা দেশে প্রযোজ্য হবে কিনা সেই বিষয়ে রোববার গণভোট হয়।


আরও পড়ুনঃ


সমালোচনা আমাদের কাজের সফলতা : কবীর চৌধুরী তন্ময়

পাবনায় থাকছেন শাকিব খান

সাধ্যের মধ্যে ৮ জিবি র‍্যামের রেডমি ফোন

কমেন্টের কারণ নিয়ে যা বললেন কবীর চৌধুরী তন্ময়


তবে প্রশাসনিক অঞ্চলের ছয়টিতে বেশিরভাগ মানুষ এই প্রস্তাব সমর্থন করেননি। এর মধ্যে রয়েছে সুইজারল্যান্ডের বড় তিনটি শহর জুরিখ, জেনেভা ও বাসেল।

news24bd.tv / নকিব

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

ব্রিটিশ রাজপরিবারেই বর্ণবৈষম্যের ভয়াবহ চিত্র

অনলাইন ডেস্ক

ব্রিটিশ রাজপরিবারেই বর্ণবৈষম্যের ভয়াবহ চিত্র

বর্ণবাদ মানেই হলো সাদা কালোয় ভেদাভেদ। বিশ্বব্যাপী বর্ণবাদের বিরুদ্ধে সমালোচনার ঝড় উঠেছে। বিশ্বে বিভিন্ন দেশে বর্ণবাদের বিরুদ্ধে আন্দোলন চলছে। অথচ খোদ ব্রিটিশ রাজপরিবারেই বর্ণবাদের ভয়াবহ চিত্র। 

প্রিন্স হ্যারির স্ত্রী ডাচেস অব সাসেক্স মেগান মের্কেল ব্রিটিশ রাজপরিবারের বর্ণবৈষম্য নিয়ে বিস্ফোরক সব মন্তব্য নিয়ে আলোচনার ঝড় উঠেছে।

অপরাহ উইনফ্রেকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি দাবি করেছেন, তার ছেলে অর্চির গায়ের রংয়ের জন্য তাকে প্রিন্স বানাতে চায়নি ব্রিটেনের রাজপরিবার।

মেগানের মা কৃষ্ণাজ্ঞ, বাবা শ্বেতাঙ্গ। নিজে কিছুদিন মডেলিং করেছেন। প্রেম করে বিয়ে করেন ব্রিটেনের রাজপুত্র প্রিন্স হ্যারিকে। মেগানের এমন ব্যাকগ্রাউন্ডের কারণে তাকে ভালোভাবে নেয়নি পরিবারটি। এক সময় স্বামীকে নিয়ে আলাদা হয়ে যান তিনি।

রবিবার সিবিএস-এ প্রকাশিত সাক্ষাৎকারে মেগান বলেন, “তারা আমার সন্তানকে প্রিন্স করতে চায়নি। আমি গর্ভবতী থাকতেই এসব আলোচনা শুনতে হয়েছে। ছেলে হবে কি মেয়ে হবে, সেটা কোনও ব্যাপার ছিল না। মূল ব্যাপার ছিল তার গায়ের রং কেমন হবে।”


বিশ্ব নারী দিবস আজ

নারীর কর্মসংস্থান হলেও বেড়েছে নির্যাতন নিপীড়ন

অস্তিত্ব রক্ষায় এখনো সংগ্রামী নারী, তবে আজো ন্যয্যতা আর নিরাপত্তা বঞ্চিত

সাইবার অপরাধের সবচেয়ে বড় ভুক্তভোগী নারীরা


মেগান আরও বলেন, “সন্তানের গায়ের রং নিয়ে উদ্বেগের কথা রাজ পরিবারের বিশেষ কোনও সদস্য তাকে জানিয়েছিলেন।”

তবে সাক্ষাৎকারে ওই ব্যক্তির নাম প্রকাশ করেননি মেগান।

তিনি জানান, “আমার সব থেকে বড় ভুলটি হল আমি রাজ পরিবারকে বিশ্বাস করেছিলাম। ভেবেছিলাম সেখানে আমাকে সুরক্ষিত রাখা হবে।”

গতবছরের জানুয়ারিতে হ্যারি ও মেগান ব্রিটিশ রাজপরিবারের প্রতিনিধিত্ব না করার সিদ্ধান্তের কথা জানান। তারা স্বাধীনভাবে নিজেদের জীবনযাপন করার জন্য ব্রিটিশ রাজপরিবার থেকে বেরিয়ে যান। এখন তারা যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ায় বসবাস করছেন। 

জনপ্রিয় উপস্থাপক অপেরা উনফ্রেকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে মগোন এই তথ্য ফাঁস করে দেন।

সূত্র: বিবিসি। 

news24bd.tv/আয়শা

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

সৌদি গোয়েন্দা ড্রোন ভূপাতিত করল ইয়েমেন

অনলাইন ডেস্ক

সৌদি গোয়েন্দা ড্রোন ভূপাতিত করল ইয়েমেন

হুথি আনসারুল্লাহ সমর্থিত সামরিক বাহিনী সৌদি সামরিক জোটের একটি ড্রোন ভূপাতিত করেছে। এই ড্রোনটি নির্মাণকারী দেশ হচ্ছে তুরস্ক। 

ইয়েমেনের সামরিক বাহিনীর মুখপাত্র ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ইয়াহিয়া সারিয়ি গতকাল (রোববার) তার টুইটার একাউন্টে দেয়া এক পোস্টে জানিয়েছেন, তার দেশের সামরিক বাহিনী তুরস্কে নির্মিত কারায়েল নামক একটি ড্রোন ভূপাতিত করতে সক্ষম হয়েছে। ড্রোনটি পরিচালনা করেছিল সৌদি নেতৃত্বাধীন কথিত আরব জোট।


বিশ্ব নারী দিবস আজ

নারীর কর্মসংস্থান হলেও বেড়েছে নির্যাতন নিপীড়ন

অস্তিত্ব রক্ষায় এখনো সংগ্রামী নারী, তবে আজো ন্যয্যতা আর নিরাপত্তা বঞ্চিত

সাইবার অপরাধের সবচেয়ে বড় ভুক্তভোগী নারীরা


জেনারেল সারিয়ি জানান, ড্রোনটি জাওফ প্রদেশের আল-মারাজিক এলাকার আকাশে গুপ্তচরবৃত্তি চালাচ্ছিল। ইয়েমেনে তৈরি একটি ক্ষেপণাস্ত্র দিয়েই ড্রোনটি ভূপাতিত করা হয়। তবে এ ক্ষেপণাস্ত্র এখনো আনুষ্ঠানিকভাবে উন্মোচন করা হয়নি।

২০১৫ সালের মার্চ মাস থেকে সৌদি আরব ও তার কয়েকটি আরব মিত্র দেশ ইয়েমেনের ওপর সামরিক আগ্রাসন চালিয়ে আসছে। তবে ইয়েমেনের হুথি যোদ্ধারা ও তাদের সমর্থিত সেনারা ধীরে ধীরে রুখে দাঁড়িয়েছে এবং ইয়েমেনিরা এখন নিয়মিতভাবে পাল্টা হামলা চালিয়ে আসছে।

২০১৫ সালের মার্চ মাস থেকে সৌদি ও তার মিত্ররা মিলে ইয়েমেনের ওপর সামরিক আগ্রাসন চালিয়ে আসছে। কিন্তু, ইয়েমেনের সাধারণ মানুষ এখন  রুখে দাড়িঁয়েছে। পাল্টা হামলা চালানো শুরু করেছে হুথি যোদ্ধারাও। 

news24bd.tv/আয়শা

মন্তব্য

পরবর্তী খবর