সোলাইমানি হত্যার নিন্দা জানানোয় নারীর কারাদণ্ড

অনলাইন ডেস্ক

সোলাইমানি হত্যার নিন্দা জানানোয় নারীর কারাদণ্ড

ড্রোন হামলায় ইরানি জেনারেল কাসেম সোলাইমানির হত্যাকাণ্ডের নিন্দা জানানোর ‘অপরাধে’ একজন মুসলিম নারীকে এক মাসের কারাদণ্ড দিয়েছে কসোভোর একটি আদালত। ওই মুসলিম নারীর নাম ইকবালে বেরিশা হুদুতি। তিনি তিন সন্তানের জননী এবং কসোভোয় একটি ইসলামিপন্থী সংস্থার প্রতিষ্ঠাতা।

তাকে এক মাসের কারাদণ্ড দেওয়ার জন্য কসোভোর সরকারি কৌঁসুলি যে আবেদন করেন তা গ্রহণ করে প্রিস্টিনার ওই আদালত।

কসোভোর স্পেশাল প্রসিকিউশনের প্রধান ব্লেরিম ইসুফাজ দাবি করেছেন, ‘প্রকাশ্যে সহিংসতা উসকে দেওয়ার অপরাধে হুদুতিকে গত ৭ জানুয়ারি আটক করা হয়।

তিনি বলেন, ওই নারী প্রতিশোধ নেওয়ার ডাক দেওয়ার পর তাকে আটক করার সিদ্ধান্ত নেই আমরা।

জেনারেল সোলাইমানিকে ইরান ও ইরাকের আরো কয়েকজন সামরিক কমান্ডারসহ গত ৩ জানুয়ারি বাগদাদ বিমানবন্দরের কাছে ড্রোন হামলা চালিয়ে হত্যা করে মার্কিন সন্ত্রাসী সেনারা।  ওই পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ডের একদিন পর হুদুতি তার ফেসবুক পেজে লেখেন, সোলেইমানি কখনো মরবেন না।

তিনি আরো লিখেছেন, আমেরিকা ইরান ও ইরাকের দুজন শীর্ষস্থানীয় জেনারেলকে হত্যা করে মারাত্মক অন্যায় করেছে। আপনারা বাড়ির মালিককে হত্যা করে গোটা পরিবারকেই হত্যা করেছেন, কাজেই প্রতিশোধ অবশ্যম্ভাবী এবং এর কোনো সীমা থাকবে না।

তিনি ফেসবুকে দেওয়া আরেকটি পোস্টে লেখেন, সন্ত্রাসী আমেরিকা ইরাকে আমাদের শিয়া-ভাই ও কমান্ডারকে হত্যা করেছে। সুতরাং যখনই আমরা আমেরিকার সন্ত্রাসী অপরাধীদের মুখোমুখি হব তখনই আমাদেরকে সক্রিয় হতে হবে।

ইকবালে বেরিশা হুদুতি অবশ্য পরে তার পোস্ট মুছে দিয়ে বলেন, স্থানীয় গণমাধ্যম তার বক্তব্যকে বিকৃত করে তুলে ধরেছে। এ ছাড়া, দ্বিতীয় পোস্টটি তার নয় বলেও দাবি করেন তিনি।

হুদুতি বলেন, দ্বিতীয় ফেসবুক পোস্টটি এমন একটি একাউন্ট থেকে করা হয়েছে যেটি তিনি চালান না।

(নিউজ টোয়েন্টিফোর/তৌহিদ)

মন্তব্য