বৃহস্পতিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ | আপডেট ০১ মিনিট আগে

রংপুরে দোতলা বাস বন্ধ করল মোটর মালিক সমিতি

অনলাইন ডেস্ক

রংপুরে দোতলা বাস বন্ধ করল মোটর মালিক সমিতি

রংপুর মহানগরীর বিভিন্ন রুটে চলাচলকারী বিআরটিসির দোতলা বাস চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে মালিক সমিতি। এসময় বাসের চালক হেলপারসহ বিআরটিসির কর্মকর্তা কর্মচারীদের মারধর, বাস আটকিয়ে যাত্রীদের নামিয়ে দেওয়া হয়েছে।

বিআরটিসির কর্মকর্তা কর্মচারীদের অভিযোগ, সোমবার সকাল থেকে রংপুর কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল এলাকায় কোনো কারণ ছাড়াই মটর মালিক সমিতির লোকজন বিআরটিসির দোতলা বাস আটকে চালক হেলপারকে মারধর করে। পরে যাত্রীদের জোর করে বাস থেকে নামিয়ে দেয়। তারা সবগুলো দোতলা বাস চলাচল বন্ধ করে দেয়। এসব বাস পীরগঞ্জ থেকে পাগলাপীর পর্যন্ত চলতো। 

রংপুর কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল ও বিআরটিসি বাস ডিপো এলাকায় দোতলা বাসের ড্রাইভার সালাম জানান, তিনি বাস নিয়ে পাগলাপীর যাওয়ার পথে বাস টার্মিনালের কাছে গেলে মালিক সমিতির লোকজন তার ওপর হামলা চালায়। তারা জোর করে তাকে বাস থেকে নামিয়ে মারধর করে এবং যাত্রীদের বাস থেকে নামিয়ে দেয়।

তারা বলেছে, রংপুর থেকে বিআরটিসির কোন দোতলা বাস চলাতে তারা দেবে না। একই অভিযোগ করেছে আিরটিসি বাস ডিপোর কর্মকর্তা কর্মচারীরা।
 
এ ব্যাপারে বিআরটিসি রংপুর বাস ডিপোর ম্যানেজার নুরুল হক জানান, মোটর মালিক সমিতির লোকজন তাদের চালক সহকারী ও কর্মকর্তা কর্মচারীদের মারধর করে দোতলা বাস চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে।

তিনি বলেন, সরকারি বাস সরকারি রাস্তায় চলবে এতে তারা বাধা দিতে পারে না।

রংপুর জেলা মোটর মালিক সমিতির কর্মচারী রওনক জানান, মালিক সমিতির নির্দেশে তারা দোতলা বাস চলাচল বন্ধ করে দিয়েছেন। কারণ সিটি করপোরেশন এলাকায় দোতলা বাস চলাচল করলে অন্যবাসের যাত্রী হয় না। সে কারণে এসব বাস বন্ধ করে দিয়েছি। জোড় করে নামানোর চেষ্টা করা হলে ৫ তারিখ থেকে ধর্মঘটে যাব।

বিআরটিসির ডাবল ডেকার বাস চলাচল বন্ধ করে দেওয়ার ব্যাপারে রংপুর জেলা মোটর মালিক সমিতির সদস্য সচিব এ.কে.এম আজিজুল ইসলাম রাজু জানান, বিআরটিসির বিপুল সংখ্যক বাস রংপুরের বিভিন্ন রুটে চলাচল করে। এতে আমাদের কোনো আপত্তি নেই। কিন্তু সিটি করপোরেশনের বাইরে ডাবল ডেকার বাস চলাচল করতে পারবে না। আমাদের শ্রমিকরা ক্ষুব্ধ হয়ে বাস আটকে রেখেছে।

প্রসঙ্গত, গত বছরের ১৮ ও ২০ মে সিটি সার্ভিসের নামে রংপুরে বিআরটিসির ডাবল ডেকার বাস সার্ভিস চালু করা হয়। স্পিকার শিরিন শারমিন চৌধুরী এবং সিটি মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা বাসগুলোর উদ্বোধন করেন। এরপর থেকে বাসগুলো পীরগঞ্জ-পাগলাপীর এবং বগুড়া-সৈয়দপুর রুটে চলাচল করছিল।

(নিউজ টোয়েন্টিফোর/তৌহিদ)

মন্তব্য