বৃহস্পতিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ |

ত্রিশের পরে নারীরা শরীর ঠিক রাখবেন যেভাবে

অনলাইন ডেস্ক

ত্রিশের পরে নারীরা শরীর ঠিক রাখবেন যেভাবে

নারী এবং পুরুষের শরীরের গঠনে বেশকিছু পার্থক্য রয়েছে। পুরুষদের তুলনায় নারীদের শরীর বেশি জটিল। সে কারণেই নিজেদের প্রতি বেশি খেয়াল রাখা উচিত নারীদের। এখনকার নারীকে ঘরে-বাইরে সবদিক সামলাতে হয়। বয়স ৩০ পার হলে নারীকে নিতে হবে বিশেষ যত্ন।এই নিয়মগুলো মেনে চললে সুস্থতাই হবে সঙ্গী।

৩০ এর পর থেকে নারীর হাড়ের স্বাস্থ্যের অবনতি ঘটতে শুরু করে। তাই এই সময় বেশি করে ক্যালসিয়াম সমৃদ্ধ খাবার খাওয়া উচিৎ। সেইসঙ্গে সকাল ৭-৮ পর্যন্ত গায়ে রোদ লাগাতে হবে। এতে শরীরে ভিটামিন ডি-এর ঘাটতি দূর হবে। ফলে হাড় ভালো থাকবে। ক্যালসিয়াম সমৃদ্ধ খাবারগুলোর মধ্যে অন্যতম- দুধ, দই, পনির, ব্রকলি, বাদাম প্রভৃতি।

যেসব রোগের ভ্যাকসিন বাজারে পাওয়া য়ায়, সেগুলো আপনি নিতে পারেন কি না সে বিষয়ে চিকিৎসকের সঙ্গে পরামর্শ করে নিন। বেশিরভাগ মেয়েরাই ক্যালসিয়াম ডেভিসিয়েন্সি এবং অ্যানিমিয়ায় ভোগেন। এই দুটি ক্ষেত্রে কী কী ব্যবস্থা নেওয়া যায়, সে বিষয়ে জেনে নেওয়াটা জরুরি।

৩০ এর পর থেকে নারীর শরীরে এমনকিছু পরিবর্তন হতে শুরু করে যে তার প্রভাবে হরমোনাল ফাংশন ঠিক মতো হয় না। ফলে নানাবিধ রোগ মাথা চাড়া দিয়ে ওঠে। এই কারণে নিয়মিত অশ্বগন্ধা এবং তুলসির মতো প্রকৃতিক উপাদান খাওয়া শুরু করলে ভালো। কারণ এমনটা করলে হরমোনের ক্ষরণ ঠিক মতো হতে শুরু করে।

প্রতিদিন স্বাস্থ্যকর খাবার খেতে হবে। প্রয়োজনে চিকিৎসকের সঙ্গে পরামর্শ করে একটা ডায়েট চার্ট বানিয়ে নিন। সেই সঙ্গে প্রতিদিন শরীরচর্চা করুন। যাদের বয়স একটু বেশি তারা নির্দিষ্ট সময় অন্তর অন্তর চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

৩০ এর পর থেকে নারীর শারীরিক ক্ষমতা কমতে শুরু করে। ফলে স্বাভাবিকভাবেই শরীর এত মাত্রায় ক্লান্ত হয় যে- কোনো কাজ করতেই ইচ্ছে হয় না। এমনটা যাতে না ঘটে সেজন্য রোজ ডায়েটে মাংস, ডিম, নানাবিধ বীজ, বাদাম এবং ব্রাউন রাইসের মতো আয়রন সমৃদ্ধ খাবার রাখতে হবে।

যেসব রোগ শুধু মেয়েদেরই হয়, যেমন- পলিসিসটিক ওভারিয়ান সিনড্রোম, ব্রেস্ট ক্যান্সার, ওভারিয়ান ক্যান্সার প্রভৃতি রোগের বিষয়ে একটু জেনে নিন। বিশেষত লক্ষণগুলো সম্পর্কে। এমনটা করলে দেখবেন অনেক রোগকেই আপনি প্রথম স্টেজে আটকে দিতে পারবেন।

স্ট্রেস হলো এমন একটি বিষ, যা একটু একটু করে শেষ করে দেয় মানব জীবন। বিশেষত মেয়েদের শরীরের উপরে তো স্ট্রেসের খুব বাজে প্রভাব পরে। তাই আজ থেকেই স্ট্রেসকে বিদায় দিন। বিশেষ করে যারা মা হওয়ার কথা ভাবছেন, তারা স্ট্রেস থেকে নিজেদের দূরে রাখুন। কারণ মানসিক চাপ শুধু আপনার উপর নয়, আপনার সন্তানের উপরও কু প্রভাব ফেলে।

(নিউজ টোয়েন্টিফের/তৌহিদ)

মন্তব্য