সোমবার, ৬ এপ্রিল, ২০২০ | আপডেট ৪৩ মিনিট আগে

ফরিদপুরে স্বামী-স্ত্রীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

ফরিদপুর প্রতিনিধি

ফরিদপুরে স্বামী-স্ত্রীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

ফরিদপুরে এক ঘরে মিললো স্বামী ও স্ত্রীর লাশ। স্ত্রী মৃত অবস্থায় শয্যায় শোয়া ছিল, অপরদিকে স্বামীকে ঘরের সিলিং ফ্যানে গলায় ওড়না পেচানো ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া যায়। 

এ ঘটনা ঘটেছে ফরিদপুর শহরের পূর্ব খাবাসপুর মহল্লার লঞ্চ ঘাট এলাকায়। আজ সোমবার রাত ৮টার দিকে ফরিদপুর কোতয়ালী থানার পুলিশ ঘরের দরজা ভেঙ্গে লাশ দুটি উদ্ধার করে।

মৃত স্বামী ও স্ত্রীর নাম  রাজীব বিশ্বাস (৩৪) ও সোনালী বণিক স্মৃতি (২২)। এরা দুজনই গোপালগঞ্জ জেলার মুকসুদপুর উপজেলার বাটিকামারী এলাকার বাসিন্দা। স্মৃতি মুকসুদপুরের বাটিকামারী এলাকার খোকন বণিকের মেয়ে। রাজীবের বাবার নাম মৃত নিরঞ্জন বিশ্বাস।

এলাকাবাসী জানায়, গত দুই বছর আগে ফরিদপুরের লঞ্চ ঘাট এলাকার মো. বরকতের একতলা পাকা বাড়িটি ভাড়া নেন তারা। বরকতের বাড়িটি লঞ্চ ঘাট এলাকায় কুমার নদের পূর্ব পাড় সংলগ্ন। রাজীব একটি কলেজে শিক্ষকতা করতেন বলে প্রাথমিক ভাবে জানা গেছে। 

স্থানীয় এলাকাবাসীরা জানান, সকালে স্বামী ও স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া হওয়ার কথা শুনেছেন। দুপুর ও বিকেল পর্যন্ত রাজীর ও স্বপ্না যে বাড়িতে থাকেন সে বাড়ির প্রতিটি দরজা ও জানালা ভিতর থেকে বন্ধ ছিল। দুপুর, বিকেল, সন্ধ্যায় ওই বাড়ির কোন সাড়া শব্দ না পেয়ে প্রতিবেশীরা ঘরের জানালা বাইরে থেকে খুলে দেখতে পান রাজীবের শরীর সিলিং ফ্যানের সাথে ঝুলছে এবং স্বপ্না একই কক্ষে শয্যায় পড়ে আছেন। পরে তারা পুলিশে খবর দেন।

ফরিদপুরের পুলিশ সুপার আলিমুজ্জামান জানান, দরজা ভেঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় রাজীবের লাশ এবং শয্যায় পড়ে থাকা অবস্থায় স্বপ্নার লাশ উদ্ধার করে। তিনি বলেন, যে ঘর  থেকে লাশ উদ্ধার করা হয় সেটি ভিতর থেকে বন্ধ ছিল। স্ত্রীকে হত্যার পর স্বামী গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।

 

নিউজ টোয়েন্টিফোর/কামরুল 

মন্তব্য